সাগরতলে বিশ্বের প্রথম রেস্তোরাঁ

ফিচার প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২২ মার্চ ২০১৯, ১২:২০

যাত্রা শুরু করল ইউরোপের প্রথম ও বিশ্বের সবচেয়ে বড় আন্ডারওয়াটার রেস্টুরেন্ট ‘আন্ডার’৷ নরওয়ের দক্ষিণাঞ্চলে সাগরের পাঁচ মিটার গভীরে ক্রেতারা সাগরতলের জীবন দেখতে দেখতে খাবার উপভোগ করতে পারবেন৷

নরওয়েজিয়ান ভাষায় আন্ডার (তলে) মানে ওয়ান্ডার (বিস্ময়)৷ এটা ইউরোপের প্রথম পানির নিচের রেস্টুরেন্ট বা রেস্তোরাঁ৷ এছাড়া ১০০ অতিথির বসার জায়গাসহ এটি পৃথিবীর সবচেয়ে বড় রেস্তোরাঁ৷ ৫ মিটার গভীর রেস্তোরাঁটির দৈর্ঘ্য ৩৪ মিটার৷

যেন সাগরের শিলা
রেস্তোরাঁটি এমনভাবে তৈরি করা হয়েছে যেন একে সাগর থেকে বেরিয়ে আসা এক শিলা মনে হয় এবং সাগরের নিচের পরিবেশের সঙ্গে মিলে যায়৷ এর অসমতল বাহ্যিক আবরণ বা খোলসটি কৃত্রিম প্রবালপ্রাচীর হিসেবে কাজ করবে৷

সবাইকে নিমন্ত্রণ
গাউটে উবোস্টাড এই রেস্তোরাঁর একজন প্রতিষ্ঠাতা৷ তৈরি হবার পর পরিবারের সদস্যদের নিয়ে রেস্তোরাঁয় যান এই নরওয়েজিয়ান ব্যবসায়ী৷ সেখানে তিনি বলেন, ‘আমরা সারাবিশ্বের পর্যটকদের আকর্ষণ করতে চাই৷ এটাই আমাদের লক্ষ্য৷’

স্থপতি
অসলো ভিত্তিক প্রখ্যাত ভবন নকশা প্রতিষ্ঠান স্ন্যোহেটা এই রেস্তোরাঁর নকশা করেছে৷ তারা এর আগে নিউইয়র্কের সেপ্টেম্বর ১১ মেমোরিয়াল মিউজিয়াম, অসলোর অপেরা হাউসের মতো বড় বড় সব কাজ করেছে৷

বিরাট এক জানালা
রেস্তোরাঁটিতে একটি বিরাট জানালা আছে৷ খেতে খেতে সেই জানালা দিয়ে সাগরের জীববৈচিত্র্য দেখা যায়৷ স্থপতি থরসেন বলেন, ‘এই জানালার কারণে একেবারে বাস্তব অভিজ্ঞতা হবে, অ্যাকুরিয়ামের মতো মনে হবে না৷’’

খরচ কত?
উবোস্টাড আশা করেন বছরে ১২ হাজার মানুষ এখানে খাবার খাবেন৷ একটি মিলের দাম পড়বে সর্বোচ্চ ৪৩০ ডলার বা ৩৭৬ ইউরো (প্রায় ৩৬ হাজার টাকা)৷ খরচটা একটু বেশিই!

(ঢাকাটাইমস/২২মার্চ/এজেড)

সংবাদটি শেয়ার করুন

ফিচার বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :