শীতের অন্ধকারে উষ্ণতা ছড়িয়েছে আলোর উৎসব

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ঢাকা টাইমস
 | প্রকাশিত : ২৩ মার্চ ২০১৯, ১২:২০

ইউরোপের উত্তরাঞ্চলে শীতকাল দীর্ঘ ও অন্ধকারে আচ্ছন্ন এক সময়৷ অবসাদ কাটিয়ে মানুষকে চাঙ্গা করে তুলতে ডেনমার্কের রাজধানী কোপেনহেগেন আলোর উৎসবের আয়োজন করেছে৷ ফেব্রুয়ারি মাসজুড়ে এই উৎসবের সময় অভিনব ইনস্টলেশনে ভরে যায় গোটা শহর৷

উৎসবকালীন সময়ে গোটা কোপেনহেগেন শহর ‘লাইট আর্ট গ্যালারিতে’ রূপান্তরিত হয়৷ বছরের সবচেয়ে অন্ধকার সপ্তাহগুলিতে ডেনমার্কসহ গোটা বিশ্বের শিল্পীরা সেখানে তাদের ইনস্টলেশন আর্ট তুলে ধরেন৷ ফলে শীতকালেও ডেনমার্কের রাজধানী শহর অসংখ্য পর্যটক আকর্ষণ করে৷ খবর ডয়চে ভেলের।

শীতের অবসাদ কাটাতে ডেনমার্কের শিল্পী মাডস ভেগাস ‘ইটারনাল শোডাউন’ নামের শিল্পকর্ম সৃষ্টি করেছেন৷ সূর্যাস্ত থেকে সূর্যোদয় পর্যন্ত কোপেনহেগেন বন্দরে ১৪০টিরও বেশি নিওন বাল্ব সবকিছু আলোকিত করে রাখে৷ মাডস বলেন, ‘কোপেনহেগেন শহরের নাগরিকদের জন্য এবারের শীতকালের শেষে উষ্ণ এই আলো থাকছে৷ এটি মনে করিয়ে দিচ্ছে, যে আমরা অন্ধকার পর্যায় পেছনে ফেলে এসেছি৷ সূর্য শীঘ্র ফিরে আসছে৷’

সবুজ লেজার রশ্মি এই আলোক উৎসবের প্রতীক৷ এই নিয়ে দুবার কোপেনহেগেন শহরে এই উৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে৷ গোটা শহরজুড়ে ইনস্টলেশন সাজানো হয়েছিল৷ বিশাল ব্যয়বহুল আলোকসজ্জার বদলে রুচিসম্মত শিল্পকর্মকে প্রাধান্য দেওয়া হয়৷

আলোর উৎসবের আয়োজক কাটিয়া ট্যুসট্রুপ বলেন, ‘বায়ুদূষণ এড়াতে, প্রাণীদের বিরক্ত না করতে এবং আমাদের ঘুমের ছন্দ নষ্ট না করতে অনেক বছর ধরে ঠিক যতটুকু প্রয়োজন, ততটুকু আলো থাকত– বাকিটা অন্ধকার রাখা হত৷ অন্ধকারের প্রতি শ্রদ্ধা রেখেই আলো সৃষ্টি করা হত৷’

কোপেনহেগেন শহরের জনপ্রিয় টিভোলি পার্কও আলোর উৎসবে মেতে উঠেছিল৷ ডেনমার্কের লেখক হান্স ক্রিস্টিয়ান আন্ডারসেনের রূপকথার গল্প থেকে প্রেরণা নিয়ে অরিগামি হাস সৃষ্টি করা হয়েছিল৷ দিনে বেশ কয়েকবার আকাশে কৃত্রিমভাবে লেজারের মাধ্যমে অরোরা বোরিয়ালিস ফুটিয়ে তোলা হয়েছিল৷

নববর্ষ থেকে বড়দিন সময় পর্যন্ত সাধারণত এই পার্ক বন্ধ থাকে৷ আলোর উৎসবের কারণে গত বছর থেকে শীতকালেও টিভোলি খোলা রাখা হয়৷ টিভোলির আলোক ডিজাইনার ইয়েস্পার কংসহাউগ বলেন, ‘দর্শকরা সত্যি প্রতিক্রিয়া দেখাচ্ছেন৷ এক সমীক্ষা অনুযায়ী আরও বেশি মানুষ সন্ধ্যায় এখানে আসছেন৷ এর আগে কখনো সন্ধ্যাবেলায় এত মানুষ দেখা যায়নি৷ দর্শকরা নিজেদের ভালো অভিজ্ঞতা ও আলোর কথা বলেন৷’

ঢাকা টাইমস/২৩মার্চ/একে

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :