সুবর্ণচর ধর্ষণের আসামির জামিন নজিরবিহীন: অ্যাটর্নি জেনারেল

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২৩ মার্চ ২০১৯, ১৮:৫০ | প্রকাশিত : ২৩ মার্চ ২০১৯, ১৬:৩৬

৩০ ডিসেম্বর ভোটের রাতে নোয়াখালীর সুবর্ণচরের দলবেঁধে ধর্ষণের ঘটনায় ‘মূলহোতা’ রুহুল আমিনের জামিনের আদেশ দেয়াকে নজিরবিহীন বলছেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম । বলেন, ‘ছুটির দিনে আদালত বসে এমন জামিন আদেশের বিষয়টি প্রধান বিচারপতির নজরে আনা হবে।’

গত ১৮ মার্চ রুহুলকে এক বছরের জামিন দেন হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ। ব্যাপক সমালোচনার পর রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনে একই আদালত আজ শনিবার রুহুলের জামিন বাতিল করেন।

দুপুরে নিজ কার্যালয়ে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় রাষ্ট্রের প্রধান আইন কর্মকর্তা বলেন, ‘সুবর্ণচরের গণধর্ষণের ঘটনার মূলহোতা রুহুল আমিনের জামিন নজিরবিহীন ঘটনা। যেখানে পুরো জাতি ধর্ষণ মামলার ব্যাপারে উদ্বিগ্ন এবং ক্ষুব্ধ, সেখানে জামিন হওয়ায় সবাই হতবাক।’

‘সুবর্ণচরের আলোচিত গণধর্ষণ মামলার আসামি মো. রুহুল আমিনের জামিনের জন্য তার একজন আইনজীবী হাইকোর্টে আবেদন জানিয়েছিলেন। সে আইনজীবীর নাম আশেক ই রসুল। তিনি আমাদের অফিসকে (অ্যাটর্নি জেনারেলের কার্যালয়) জানিয়েছিলেন তার আবেদনটি বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিমের বেঞ্চে শুনানি হবে।’

‘কিন্তু আবেদনটি বিচারপতি মামনুন রহমানের বেঞ্চে শুনানি করেন এবং এ মামলার স্বীকারোক্তিমূলক জবানববন্দি ও ভিকটিমের জবানবন্দি সন্নিবেশিত না করে আদালতকে ভুল বুঝিয়ে ওই আইনজীবী জামিন নেন।’

তিনি বলেন, ‘পরে আমাদের অ্যাটর্নি জেনারেল অফিস থেকে সংশ্লিষ্ট কোর্টের বিচারপতিদের যখন বিষয়টি অবহিত করা হয় তখন আজ সকালে তারা চেম্বারে (খাস কামরায়) বসে এ জামিন আদেশটি রিকল করে বাতিল করেন।

‘ফলে ওই আসামিকে দেয়া পূর্বের জামিন আদেশটি বাতিল হয়ে গেলো। তার অন্তর্বর্তীকালীন জামিন আর কার্যকর থাকল না। এখন আমরা বিষয়টি সংশ্লিষ্টদের জানিয়ে দেব সে যাতে জেল থেকে বের হতে না পারে।’

তিনি আরও বলেন, ‘এটা খুবই ঘৃণ্য তৎপরতা। আমরা বিষয়টি প্রধান বিচারপতির নজরে আনব যে, কিছু কিছু আইনজীবী এক আদালতের কথা উল্লেখ করে অন্য আদালত থেকে শুনানি করেন। বিচারপতিদের কাছেও আমাদের আবেদন তারা যখন মামলার পিটিশন দেখেন তখন তারা যেন লক্ষ্য রাখেন কোন আদালতে কয় নাম্বার কোর্টের আবেদন করে পরে আরেক কোর্টে শুনানি করতে এসেছেন। এটা এক ধরনের আদালতের সঙ্গে প্রতারণা ও আদালত অবমাননার শামিল।’

ওই আইনজীবীর বিষয়টি প্রথমে প্রধান বিচারপতির নজরে আনব এরপ প্রয়োজনে বার কাউন্সিলের নজরে আনা হবে বলেও জানান অ্যাটর্নি জেনারেল।

মাহবুবে আলম বলেন, ‘যদি আদালতের সামনে সব তথ্য-প্রমাণ সন্নিবেশিত হতো তবে অবশ্যই আদালত জামিন দিতেন না। আদালতকে ভুল বুঝিয়ে জামিন নেয়া হয়েছিল, যা আদালত বুঝতে পেরে আদেশটি রিকল করে জামিন বাতিল করেছেন।’

‘আমি আদালতের কাছে ওই আইনজীবীর বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার রুল জারির আরজি জানাব। ২৫ মার্চ এ আবেদন করব।’

রুহুল আমিন সুবর্ণচর উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ও চর জুবলি ইউনিয়নের সাবেক ইউপি মেম্বার। পছন্দের প্রতীকে ভোট দেয়া নিয়ে ওই গৃহবধূ ধর্ষণের ঘটনায় মূলহোতা রুহুলকে দল থেকেও বহিষ্কার করেছে আওয়ামী লীগ। ৪ জানুয়ারি পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে। আলোচিত এ মামলায় গ্রেপ্তারের আড়াই মাসের মাথায় তার জামিন হওয়া নিয়ে ব্যাপক সমালোচনা শুরু হয়।

ঢাকাটাইমস/২৩মার্চ/ডিএম

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

আদালত বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :