হাসপাতাল থেকে পালিয়ে গেল হত্যা মামলার আসামি

ব্যুরো প্রধান,বরিশাল
 | প্রকাশিত : ২৬ মার্চ ২০১৯, ১৯:২৯

বরিশালে শিশু অপরহণ ও হত্যা মামলার আসামি দুখু মিয়া হ্যান্ডকাপসহ হাসপাতালের চতুর্থ তলার বাথরুম থেকে পালিয়েছেন।

সোমবার রাত সাড়ে ৩টার দিকে পুলিশের চোখে ধুলা দিয়ে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতালের ইএনটি ওয়ার্ডের বাথরুমের গ্রিল খুলে পালিয়ে যান তিনি।

পালিয়ে যাওয়া এই দুখু মিয়া রংপুরের বাসিন্দা। নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় এক শিশু অপহরণ করে মুক্তিপণ আদায় ও পরে হত্যার অভিযোগে দায়ের করা মামলায় তিনি আসামি।

৪ মার্চ ঢাকা পুলিশ ব্যুরো ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) তাকে বরিশাল নগরীর পলাশপুরের গুচ্ছগ্রামে ভাড়া বাসা থেকে গ্রেপ্তার করতে এলে পুলিশের সামনে গলায় ব্লেড দিয়ে আঘাত করে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন দুখু মিয়া।

হাসপাতালে আসামি দুখু মিয়াকে হেফাজতের দায়িত্বে থাকা বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের এএসআই আমিনুল ইসলাম জানান, গলায় আঘাতজনিত কারণে ৪ ফেব্রুয়ারি থেকে দুখু মিয়াকে শেবাচিম হাসপাতালের চতুর্থ তলায় ইএনটি ওয়ার্ডে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছিল।

তিনি বলেন, ‘সোমবার রাত সোয়া ৩টার দিকে দুখু বাথরুমে যাবার কথা বলে। এজন্য আমি এবং কনস্টেবল রিয়াদ তার এক হাতে হ্যান্ডকাপ পরিয়ে ওয়ার্ডের বাথরুমে নিয়ে যাই। দুখু বাথরুমে ঢুকে অনেক জোড়ে কল ছেড়ে দেয়। কিন্তু বাথরুম থেকে বের হতে দেরি হওয়া এবং কোন সাড়া না পেয়ে বাথরুমের দরজায় ধাক্কা দেই। এতেও কোন সাড়া শব্দ না পেয়ে দরজা ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করতেই দেখতে পাই- বাথরুমের জানালার গ্রিল বাথরুমের প্যানের উপর ফালানো। যে জুতা পড়ে বাথরুমে প্রবেশ করে সেই জুতা জোড়াও পড়ে আছে। তাৎক্ষণিক বিষয়টি থানা পুলিশকে অবহিত করা হয়।’

এএসআই  আমিনুল বলেন, ‘আসামি দুখু মিয়া সুস্থ ছিল। এজন্য ইএনটি ওয়ার্ডের চিকিৎসকদের একাধিকবার বলেছি হাসপাতালের প্রিজন সেলে পাঠানোর জন্য। কিন্তু তাদের আসা-যাওয়ায় কষ্ট হবে বলে তাকে ওয়ার্ডেই ভর্তি রাখে।’

আসামি পালানোর বিষয়ে তার (আমিনুল) কিংবা দায়িত্বে থাকা কনস্টেবল রিয়াদের কোন গাফিলতি নেই বলেও দাবি করেন তিনি।

কোতয়ালি মডেল থানার ওসি নুরুল ইসলাম বলেন, ‘আসামীর হেফাজতের দায়িত্বে থাকা পুলিশ জানিয়েছে- দুখু মিয়া জানালার গ্রিল খুলে হ্যান্ডকাপ নিয়ে পালিয়েছে। তবে আসামির পালানোর পেছনে পুলিশের কোন গাফিলতি রয়েছে কিনা সে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। পাশাপাশি পালিয়ে যাওয়া আসামিকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।’

(ঢাকাটাইমস/২৬মার্চ/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :