জ্বলন্ত এফআর ভবনের সামনে কিশোরের মোনাজাত

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২৯ মার্চ ২০১৯, ২২:৫০
সংগৃহীত

জ্বলছে বনানীর এফআর টাওয়ার। ফায়ার সার্ভিস ও সেনাবাহিনীর সদস্যরা তৎপর আগুন নেভাতে। হাজারো উৎসুক জনতা ভিড় করেছে ভবনের চারপাশে। তাদের কিছুটা সামনে একাকি এক কিশোর দুই হাত তুলে মোনাজাত ধরে আছে। আল্লার কাছে ফরিয়াদ যেন কেউ আগুনে পুড়ে মারা না যায়।

বনানীর ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনার নানা চিত্র আর বর্ণনা নিয়ে সরগরম গণমাধ্যমসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমও। বৃহস্পতিবারের আগুন লাগার পরের নানা ঘটনার ছবি ভেসে বেড়াচ্ছে ফেসবুকে। ওই কিশোরের ছবিটি পোস্ট করেন একজন সাংবাদিক।

ছবিতে দেখা দেখা যাচ্ছে এফআর টাওয়ারের সামনের সড়কের ডিভাইডারে একটি বৈদ্যুতিক পিলারে শরীরের ডান পাশ ঠ্যাস দিয়ে দাঁড়ানো কিশোরটি মোনাজাত ধরে আছে। তার দুই চোখের আকুল দৃষ্টি জ্বলন্ত টাওয়ারের দিকে। নাকি সৃষ্টিকর্তার দিকে!

তার পাশেই উৎসুক জনতার কেউ কেউ ভবনের দিকে ধরে রেখেছে তাদের ফোনের ক্যামেরা।   লাঠি হাতে জনতার ভিড় সামলাচ্ছেন পুলিশ সদস্যরা। কিশোরের সেদিকে কোনো ভ্রুক্ষেপ নেই।

ফেসবুকের স্ট্যাটাস থেকে জানা যায়, এমনটা দেখে এগিয়ে যান দৈনিক প্রথম আলোর সাংবাদিক সামছুর রহমান। প্রথমে তিনি মনে করেছিলেন, ওই কিশোরের কেউ হয়তো আটকা পড়েছে জ্বলন্ত এফআর ভবনে। স্বজনদের জীবন রক্ষার জন্য তাই ফরিয়াদ করছে।

তিনি এগিয়ে গিয়ে কিশোরের সঙ্গে কথা বলে জানতে পারেন তার আকুলতার কথা। এমনই এক আগুন তাকে পিতৃহীন করেছে।

আশিকুর রহমান নামের কিশোরটির বাবা কয়েক বছর আগে নর্দ্দা এলাকায় আগুনে পুড়ে মারা গেছেন। তাই এফআর ভবনে আগুন দেখেই আল্লাহর দরবারে মোনাজাত ধরেছে যাতে ওর বাবার মতো আর কেউ আগুনে মারা না যায়।

আশিক তার মায়ের সঙ্গে বাড্ডার নতুন বাজার এলাকায় থাকে। যে ভবনে আগুন লেগেছে সেখানে খাবার সরবরাহ করত তার মা।

(ঢাকাটাইমস/২৯মার্চ/বিইউ/মোআ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

নির্বাচিত খবর বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :