চার দশকে ছয় শতাধিক চলচ্চিত্রে অভিনয়

বিনোদন প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ০৬ এপ্রিল ২০১৯, ১৭:৩৮

বাংলা চলচ্চিত্রের শক্তিমান কৌতুক অভিনেতা টেলি সামাদ। সত্তরের দশক থেকে নিয়মিত চলচ্চিত্রে কাজ করেছেন তিনি। মাঝখানে অল্প সময়ের বিরতি নিলেও ২০১৫ সালেও চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন। বর্ণাঢ্য চলচ্চিত্র ক্যারিয়ারে অসংখ্য জনপ্রিয় ছবিতে অভিনয় করে প্রশংসিত হয়েছেন। পেয়েছেন হাজারো মানুষের ভালোবাসা।

টেলিসামাদ ১৯৪৫ সালের ৮ জানুয়ারি মুন্সীগঞ্জের (তৎকালীন বিক্রমপুর) সিরাজদিখান উপজেলার নয়াগাঁও গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদ থেকে উচ্চতর শিক্ষা গ্রহণ করেন। তার বড় ভাই চারুশিল্পী আব্দুল হাই। আর সাবেক রাষ্ট্রপতি অধ্যাপক ইয়াজউদ্দিন আহম্মেদ তার চাচা।

১৯৭৩ সালে ‘কার বউ’ চলচ্চিত্রে কৌতুকাভিনয়ের মাধ্যমে চলচ্চিত্র জগতে প্রবেশ করেন। নয়নমনি ও ‘পায়ে চলার পথ’-এর মতো চলচ্চিত্রের মাধ্যমে দর্শকপ্রিয়তা লাভ করেন। ‘মনা পাগলা’ চলচ্চিত্রে সঙ্গীত পরিচালনার পাশাপাশি ৫০টির মতো চলচ্চিত্রের গানে কণ্ঠ দেন। অভিনয়জীবনে চার দশকে ৬০০’র মতো চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন। ভাত দে, রঙিন রূপবান, অশিক্ষিত, গোলাপী এখন ট্রেনে, কেয়ামত থেকে কেয়ামতসহ বেশকিছু ছবিতে তার অভিনয় দাগ কেটে গেছে বাংলার দর্শকের মনে। ‘মনা পাগলা’ ছবির সংগীত পরিচালনাও করেন তিনি।

জানা গেছে, বাংলাদেশ টেলিভিশনের ক্যামেরাম্যান মোস্তফা মামুন তার ডাক নাম দিয়েছিলেন টেলিসামাদ। তারপর থেকে তিনি এ নামেই পরিচিত হন। ২০১৫ সালে তার অভিনীত সর্বশেষ চলচ্চিত্র জিরো ডিগ্রি মুক্তি পায়। আজ শনিবার (৬ এপ্রিল) দুপুরে অসুস্থতাজনিত কারণে ঢাকার স্কয়ার হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন টেলিসামাদ। তার খাদ্য নালীতে সমস্যার পাশাপাশি বুকে ইনফেকশন, ডায়াবেটিস ছিল। এরআগে ২০১৭ সালে যুক্তরাষ্ট্রে তার বাইপাস সার্জারিও করা হয়।

এরপর ২০১৭ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর তিনি কিছুটা সুস্থ হয়ে দেশে ফেরেন। কিন্তু দেশে আসার পর অক্টোবর ও নভেম্বরে দুই দফা স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল তাকে।

অসুস্থ টেলিসামাদের শারীরিক অবস্থার খোঁজ নিয়ে তার চিকিৎসায় উদ্যোগী হয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১৪ সালে এই অভিনেতার হাতে ২০ লাখ টাকার সঞ্চয়পত্র তুলে দেন।

(ঢাকাটাইমস/০৬এপ্রিল/ইএস/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বিনোদন বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :