হাতেকলমে পুঁজিবাজারের ধারণা পেতে ভিড়

রহমান আজিজ ও জহির রায়হান
 | প্রকাশিত : ০৭ এপ্রিল ২০১৯, ১৯:২৮

‘আমি তো বিনিয়োগ সম্পর্কে কিছুই জানি না। আমার জন্য আপনারা কী সুবিধা নিয়ে এসেছেন?’

‘হ্যাঁ, আপনাদের জন্য আমরা বিনিয়োগ সম্পর্কে মৌলিক ধারণা নিয়ে বই প্রকাশ করেছি। এটা একেবারে বিনামূল্যে দিয়ে দিচ্ছি। এখানে আপনি পাবেন কীভাবে বিনিয়োগ করতে হয়, বিও হিসাব কীভাবে খুলতে হয়, আইপিও কী সে সম্পর্কে সব তথ্য দিচ্ছি।

এভাবেই কথোপকথন হচ্ছিল পুঁজিবাজারে বিনিয়োগের ব্রোকারেজ হাউজ রয়েল ক্যাপিটালের স্টলে। স্টলের কর্মী এক দর্শনার্থীকে বুঝিয়ে দিচ্ছিলেন।

রাজধানীর সেগুনবাগিচায় শিল্পকলা একাডেমিতে গত বৃহস্পতিবার থেকে শনিবার পর্যন্ত চলা পুঁজিবাজার মেলায় অনেকেই বিনিয়োগ সম্পর্কে ধারণা নিতে পেরেছে। মেলার আয়োজক ছিল অনলাইন নিউজপোর্টাল অর্থসূচক। মেলার উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিকবিষয়ক উপদেষ্টা মসিউর রহমান।

এক্সপোতে সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন, ঢাকা ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ, ব্রোকার হাউজ, মার্চেন্ট ব্যাংক, অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট প্রতিষ্ঠান, তালিকাভুক্ত কোম্পানিসহ বিভিন্ন স্টেকহোল্ডারের স্টল ছিল।

অর্থসূচক সম্পাদক জিয়াউর রহমান ঢাকাটাইমসকে বলেন, ‘২০১৫ সাল থেকে অর্থসূচকের উদ্যোগে ক্যাপিটাল মার্কেট এক্সপো অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় এবারের মেলা।’

মেলায় কথা হয় ইউনাইটেড ফাইন্যান্সিয়াল ট্রেডিং কোম্পানি লিমিটেডের এফএভিপি মিজানুর রহমানের সঙ্গে। তিনি এই সময়কে, নতুন-পুরোনো বিনিয়োগকারীদের উপস্থিতি আমাদের মুগ্ধ করেছে। বিও হিসাব খুলতে কী লাগে, ঋণ সুবিধা পাওয়া যায় কি না, পেতে কী করতে হবে ইত্যাদি বিষয়ে প্রশ্ন ছিল আগ্রহী বিনিয়োগকারীদের।’

মেলায় স্টল এসেছে লংকাবাংলা সিকিউরিটিজ কোম্পানির। সেখানে নতুন- পুরোনো অনেক বিনিয়োগাকরী ভিড় করেন। তাদের নানা প্রশ্নের জবাব দেন এ সিকিউরিটিজের কর্মকর্তা আসিফ আহমেদ।

মেলায় অনেক বিনিয়োগকারী এসেছেন অভিযোগ করতে। তাদের নানা অভিযোগ গ্রহণ ও সমাধান করেন বাংলাদেশ সিকিউরিটি অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) উপ-পরিচালক সিদ্দিকুর রহমান। সকাল থেকেই তিনি বিএসইসির স্টলে এ সেবা প্রদান করেন।

নাহি অ্যালুমিনিয়াম কম্পোজিট প্যানেলের ডেপুটি ম্যানেজার মাজহারুল ইসলাম রাসেল বলেন, ‘বিনিয়োগকারীরা বিশেষ করে জানতে চেয়েছেন এ বছর আমাদের কেমন লাভ হবে, নতুন কোনো পণ্য উৎপাদন করবো ইত্যাদি।’

বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন কাজী জাহিদুল ইসলাম। তিনি মেলায় জানতে আসেন পুঁজিবাজারে কীভাবে বিনিয়োগ করা যায়, কোন ব্রোকারেজ হাউজ ক্রয়-বিক্রয়ে কত কমিশন নেয়।

শেল্টেক ব্রোকারেজ লিমিটেডের সিনিয়র ম্যানেজার আলিম-উর-রহমান বলেন, ‘অনেক মানুষের আনাগোনা এ মেলায়। কেউ এসেছেন দেখতে, কেউবা ধারণা নিতে। বেশি এসেছেন নতুন বিনিয়োগকারী। তারা ঋণ সুবিধা সম্পর্কে জানতে চেয়েছেন এবং আমরা সব ধরনের ট্রেডে কত কমিশন নেই সেটি জানতে চেয়েছেন।’

মেলায় অংশ নিয়েছিল বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। তুলে ধরেছেন বিনিয়োগকারীদের করণীয় ও বর্জনীয় বিষয়।

বিনিয়োগকারীদের জন্য করণীয়

আশাতিরিক্ত লাভজনক বিনিয়োগ প্রলোভন থেকে সাবধান থাকুন; আয়-ব্যয়ের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে ব্যক্তিগত বাজেট ও আর্থিক পরিকল্পনা করুন; বিভিন্ন বিনিয়োগ পণ্য ও খাতের ঝুঁকি সম্পর্কে জানুন; সঞ্চয় থেকে কোন সিকিউরিটিজ বা খাতে কত বিনিয়োগ করবেন সে সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নিন; পর্যাপ্ত বিচার-বিশ্লেষণ করে বিনিয়োগ সিদ্ধান্ত নিন; আপনার হিসাবে রক্ষিত সিকিউরিটিজ ও অর্থের বিষয়ে সচেতন থাকুন; বিনিয়োগ সংক্রান্ত আইন-কানুন সম্পর্কে অবগত হয়ে বিধিনিষেধ মেনে চলুন; পুঁজিবাজারে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে কোম্পানির আর্থিক অবস্থার গতিময়তা, ব্যবস্থাপনা এবং অন্যান্য বিষয়ে ধারণা নিন; বাজার মধ্যস্থতাকারী প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে খোঁজখবর নিয়ে বিনিয়োগ হিসাব খুলুন; বিনিয়োগ সিদ্ধান্ত আপনি নিজে নিন; প্রয়োজনে পেশাদার বিনিয়োগ বিশ্লেষকের সহায়তা নিন; আপনার আর্থিক পরিকল্পনা অনুযায়ী বিভিন্ন ধরনের বিনিয়োগের মেয়াদ নির্ধারণ করুন; ঋণ গ্রহণের পূর্বে আপনার ঋণ পরিশোধের সংগতি এবং শর্তসমূহ বিবেচনা করে সিদ্ধান্ত নিন; আপনার কোনো অভিযোগ থাকলে স্টক এক্সচেঞ্জ বা কমিশনকে অবহিত করুন; সময়মতো বিনিয়োগ এবং বিক্রয় সিদ্ধান্ত গ্রহণ করুন।

বিনিয়োগকারীদের জন্য বর্জনীয়

সঞ্চয়ের পুরোটা একই খাতে বিনিয়োগ নয়; আপনার সংগতির অতিরিক্ত ঋণ গ্রহণ নয়; কারো দ্বারা প্ররোচিত হয়ে বিনিয়োগ নয়; গুজবের ভিত্তিতে বিনিয়োগ নয়; বিনিয়োগ মানে নিশ্চিত লাভ-এই ধারণায় বিনিয়োগ নয়; অনিশ্চিত তথ্য বা চটকদার বিজ্ঞাপনে আকৃষ্ট হয়ে বিনিয়োগ নয়; অযৌক্তিক অতিরিক্ত দরে বিনিয়োগ নয়; প্রত্যেকটি বিনিয়োগে ক্ষতির ঝুঁকি রয়েছে, ঝুঁকি বিশ্লেষণ না করে বিনিয়োগ নয়; জ্ঞাতসারে বেআইনি বা অননুমোদিত কোনো খাতে বিনিয়োগ নয়; অপ্রাতিষ্ঠানিক খাতে বিনিয়োগ নয়; না বুঝে কোনো দলিলে স্বাক্ষর নয়; অনুমোদনহীন দলিল বা ফরমে স্বাক্ষর নয়; প্রয়োজনীয় অনুমোদন ব্যতীত ইস্যুকৃত কোনো সিকিউরিটিজ বা চুক্তিপত্রে আয়ের হার অনেক বেশি ও কম ঝুঁকিপূর্ণ বলে প্রতিশ্রুতি দিলেও বিনিয়োগ নয়।

প্রতি কার্যদিবসে সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করে বিএসইসি। সিকিউরিটিজ কমিশন ভবন, ই-৬/সি, শের-ই-বাংলা নগর, আগারগাঁও, ঢাকা-১২০৭ এই ঠিকানায় যোগাযোগ করতে হবে। এছাড়া ওয়েবসাইটে http:/ww/w.financialliteracybd.com এ বিষয়ে বিস্তারিত জানা যাবে; যেখানে অনলাইনে রেজিস্ট্রেশন করা যাবে।

(ঢাকাটাইমস/০৭এপ্রিল/আরজে/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

পুঁজিবাজার বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :