পুরস্কার পেলেন শ্যামপুর জোনের এসি মফিজুর

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১০ এপ্রিল ২০১৯, ২০:০০ | প্রকাশিত : ১০ এপ্রিল ২০১৯, ১৯:৫০

অপহরণের পর পাঁচ বছর বয়সী শিশুকে উদ্ধারের কৃতিত্বপূর্ণ কাজের স্বীকৃতি হিসেবে পুরস্কার পেয়েছেন শ্যামপুর জোনের সহকারী কমিশনার (এসি) মফিজুর রহমান। তার নেতৃত্বে গত ১৯ মার্চ কদমতলী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সাজু মিয়া ও উপপরিদর্শক লালবুর রহমান অভিযান চালিয়ে পাঁচ বছরের শিশু মিনাকে উদ্ধার করেন।

আজ বুধবার ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) আইনশৃঙ্খলা রক্ষা ও জননিরাপত্তা বিধানসহ ভালো কাজের স্বীকৃতি হিসেবে ডিএমপির বিভিন্ন পর্যায়ের পুলিশ সদস্যদের নগদ অর্থ ও সনদ দিয়ে পুরস্কৃত করেন ডিএমপির কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া।

আজ বেলা ১১টার দিকে ডিএমপির সদর দপ্তরে মার্চ ২০১৯ মাসের মাসিক অপরাধ পর্যালোচনা সভায় ভালো কাজের স্বীকৃতি হিসেবে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে বিজয়ীদের হাতে নগদ অর্থ পুরস্কার তুলে দেয়া হয়।

বিট পুলিশিং কার্যক্রমে শ্রেষ্ঠ কর্মকর্তা হন ধানমন্ডি জোনের অতিরিক্ত উপকমিশনার আব্দুল্লাহিল কাফি শ্যামপুর জোনের সহকারী কমিশনার মফিজুর রহমান, কামরাঙ্গীরচর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহীন ফকির, গেন্ডারিয়া থানার ওসি এম এ জলিল, রূপনগর থানার ওসি শেখ মো. শাহ আলম এবং দক্ষিণখান থানার ওসি তপন চন্দ্র। পুরস্কার হিসেবে নগদ ১০ হাজার টাকা ও সনদ দেওয়া হয় তাদের।

মফিজুর রহমান ৩৩তম বিসিএস পরীক্ষায় উর্ত্তীণ হয়ে বাংলাদেশ পুলিশে যোগদান করেন। তিনি ২০১১ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজি বিভাগে স্নাতকোত্তর করেন। তিনি ফরিদপুর জেলার আলফাডাঙ্গা উপজেলার কৃতী সন্তান।

পুরস্কার পাওয়ার প্রতিক্রিয়ায় মফিজুর রহমান ঢাকাটাইমসকে বলেন, ‘এ ধরনের পুরস্কার আমাদের কাজের প্রেরণা জোগাবে।’

অপহৃত শিশুটির উদ্ধারের ঘটনা সম্পর্কে জানা যায়, গত ২৮ জানুয়ারি ধোলাইপারের ডিপটি এলাকায় থেকে শিশুটি হারিয়ে যায়। এ ঘটনায় ওর মা পারভীন বেগম কদমতলী থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন। পুলিশ তদন্তের একপর্যায়ে জানতে পারে দোলা নামের এক নারী শিশুটিকে অপহরণ করেছেন। তিনি শিশুটিকে নিয়ে সিরাজগঞ্জের উদ্দেশে রওনা হবেন। এ খবর পেয়ে ডিএমপির সহকারী কমিশনার মফিজুর রহমানের নেতৃত্বে কদমতলী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সাজু মিয়া ও উপপরিদর্শক লালবুর রহমান অভিযান চালান। পরে তারা গাজীপুরের শ্রীপুর থানার ভুতুলিয়া গ্রামের জহিরের বাড়ি থেকে মিনাকে উদ্ধার করেন।

মার্চে আরও যারা পুরস্কার পেলেন

মার্চ মাসে ডিএমপির শ্রেষ্ঠ অপরাধ বিভাগ নির্বাচিত হয়েছে তেজগাঁও বিভাগ। শ্রেষ্ঠ সহকারী পুলিশ কমিশনার নির্বাচিত হয়েছেন পল্লবী জোনের এস এম শামীম, শ্রেষ্ঠ পুলিশ পরিদর্শক (অফিসার ইনচার্জ) শাহবাগ থানার (ওসি) আবুল হাসান,  শ্রেষ্ঠ পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) রূপনগর থানার ওসি (তদন্ত) গোলাম রব্বানী, শ্রেষ্ঠ পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশনস্) যাত্রাবাড়ী থানার আয়ান মাহমুদ, শ্রেষ্ঠ উপপরিদর্শক (এসআই) যৌথভাবে যাত্রাবাড়ী থানার এসআই বিলাল আল আজাদ ও কোতোয়ালি থানার এসআই নাহিদুর রহমান, শ্রেষ্ঠ এএসআই যৌথভাবে তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানার সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) মাসুদ হোসেন ও মতিঝিল থানার এএসআই হেলাল উদ্দিন।

শ্রেষ্ঠ ওয়ারেন্ট তামিলকারী অফিসার নির্বাচিত হয়েছেন মোহাম্মদপুর থানার এসআই তারেক জাহান খান, শ্রেষ্ঠ অস্ত্র উদ্ধারকারী অফিসার মোহাম্মদপুর থানার ওসি অপারেশন মোহাম্মদ শরীফুল ইসলাম, শ্রেষ্ঠ বিস্ফোরক উদ্ধারকারী অফিসার কোতোয়ালি থানার এসআই নাহিদুর রহমান, শ্রেষ্ঠ মাদকদ্রব্য উদ্ধারকারী অফিসার  কদমতলী থানার ওসি জামাল উদ্দিন মীর, শ্রেষ্ঠ চোরাই গাড়ী উদ্ধারকারী অফিসার শাহবাগ থানার এসআই গোলাম রসুল।

ডিএমপির গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) শ্রেষ্ঠ বিভাগ নির্বাচিত হয়েছে ডিবি উত্তর। শ্রেষ্ঠ অতিরিক্ত উপ-কমিশনার হয়েছেন গুলশান জোনাল টিমের অতিরিক্ত উপকমিশনার (এডিসি) গোলাম সাকলায়েন, অস্ত্র উদ্ধারে শ্রেষ্ঠ টিম ডেমরার জোনাল টিমের নাজমুল হাসান ফিরোজ, বিস্ফোরক দ্রব্য উদ্ধারে শ্রেষ্ঠ টিম কোতোয়ালি জোনাল টিমের আহসানুজ্জামান, চোরাই গাড়ি উদ্ধারে শ্রেষ্ঠ টিম লিডার হয়েছেন গাড়ি চুরি উদ্ধার ও প্রতিরোধ টিমের রাহুল পাটওয়ারী, মাদকদ্রব্য উদ্ধারে শ্রেষ্ঠ টিম লিডার হয়েছেন গুলশান জোনাল টিমের এডিসি গোলাম সাকলায়েন, জঙ্গি গ্রেপ্তারে শ্রেষ্ঠ টিম লিডার ডেমরা জোনের এসি নাজমুল হাসান ফিরোজ; অজ্ঞান, মলম পার্টি গ্রেপ্তারে শ্রেষ্ঠ টিম ডিএমপির শুটিং ইনসিডেন্ট ইনভেস্টিগেশন পরিদর্শক রিয়াজ উদ্দিন আহম্মেদ।

ডিএমপির ট্রাফিক বিভাগের শ্রেষ্ঠ বিভাগ নির্বাচিত হয়েছে ট্রাফিক উত্তর বিভাগ। শ্রেষ্ঠ সহকারী পুলিশ হয়েছেন উত্তরা জোনের এসি জুলফিকার আলী, শ্রেষ্ঠ ট্রাফিক পরিদর্শক (টিআই) এ কে এম আসাদুজ্জামান, শ্রেষ্ঠ সার্জেন্ট যৌথভাবে উত্তরা জোনের সাদ্দাম হোসেন ও লালবাগ ট্রাফিক জোনের নাহিদুর রহমান।

ট্রাফিক সচেতনামূলক কর্মসূচির জন্য বিশেষ পুরস্কারে ভূষিত হলেন ট্রাফিক পূর্ব বিভাগের (ট্রাফিক মতিঝিল) এডিসি নাজমুন নাহার ও ট্রাফিক উত্তরের (ট্রাফিক-শিল্পাঞ্চল) এসি কাজী রোমানা নাসরিন।

বিশেষ ক্যাটাগরিতে পুরস্কারপ্রাপ্তরা হলেন, প্রটেকশন বিভাগ, স্পেশাল অ্যাকশন গ্রুপ, ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম বিভাগ, ডিবি উত্তর, রমনা বিভাগ ও গুলশান বিভাগ।

বিশেষ পুরস্কার পেলেন হত্যা মামলার আসামি গ্রেপ্তারে ডিবি উত্তরের এডিসি গোলাম সাকলায়েন, ডিবির এডিসি সাজ্জাদ ইবনে রায়হান, ডেমরা জোনাল টিমের এসি নাজমুল হাসান ফিরোজ, কামরাঙ্গীচরের ওসি শাহীন ফকির, শাহবাগ থানার এসআই মনজুর হোসেন, দিয়াবাড়ি পুলিশ ফাঁড়ির এসআই শফিউল আলম ও খিলক্ষেত থানার এসআই মোফাখখারুল ইসলাম এমরান।

উইমেন সাপোর্ট অ্যান্ড ইনভেস্টিগেশন বিভাগের এডিসি নুসরাত জাহান মুক্তা (ফিলিপাইনের নাগরিককে আইনি সহায়তা), তেজগাঁও বিভাগের এডিসি মৃত্যুঞ্জয় দে সজল (অস্ত্রসহ ছিনতাইকারী গ্রেপ্তার), গুলশান বিভাগের এডিসি সৈয়দ মামুন মোস্তফা (মাদকদ্রব্য উদ্ধার), ডিবি দক্ষিণের এডিসি শামসুল আরেফিন (দস্যুতার ঘটনায় চারজন গ্রেপ্তার), তেজগাঁও শিল্পাঞ্চলের এসি সালমান হাসান (দালাল চক্রের সদস্য গ্রেপ্তর), কাউন্টার টেরোরিজম বিভাগের এসি অহিদুজ্জামান নুর ( হিজবুত তাহরীরের তিন জন সদস্য আটক)।

প্রতারক চক্রের সদস্য গ্রেপ্তারে পুরস্কৃত হয়েছেন ডিএমপির সিরিয়াস ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন বিভাগের অর্গানাইজড ক্রাইম প্রিভেনশন টিমের এসি নাজমুল হক, ডিবি উত্তরের ক্যান্টনমেন্ট জোনাল টিমের এসি হান্নানুল ইসলাম, কোতোয়ালি থানা ও সূত্রাপুর থানার এসআই মিজানুর রহমান ও শাহাদাত হোসেন।

মোবাইল টাওয়ারের ব্যাটারী চোর গ্রেপ্তারে ডিবি উত্তরের অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার ও প্রতিরোধ টিমের এসি সুমন কান্তি চৌধুরী, ভিকটিম উদ্ধারসহ আসামি গ্রেপ্তারে শ্যামপুর জোনের এসি মফিজুর রহমান, কম্পিউটার সিস্টেমের ক্ষতিসাধনকারী গ্রেপ্তারে সিকিউরিটি এন্ড সাইবার ক্রাইম বিভাগের সোশ্যাল মিডিয়া মনিটরিং টিমের এসি ধ্রুব জ্যোতির্ময় গোপ, ভিকটিম উদ্ধারসহ আসামি গ্রেপ্তারে কামরাঙ্গীরচর থানার ওসি তদন্ত বাবু কুমার সাহা, অস্ত্র ও গুলি উদ্ধারে গুলশান জোনাল টিমের পরিদর্শক জালাল উদ্দিন, ফেসবুকে হুমকি প্রদানকারী গ্রেপ্তারে সাইবার সিকিউরিটি এন্ড ক্রাইম বিভাগের মোবাইল ফিন্যান্স সিকিউরিটি টিমের পরিদর্শক এস এম শাহজালাল, চোরাই মোবাইল উদ্ধারসহ আসামি গ্রেপ্তারে শাহবাগ থানার এসআই গোলাম রসুল, চোরাইমাল উদ্ধারসহ আসামি গ্রেপ্তারে শাহবাগ থানার এসআই সুজন চন্দ্র দে।

ছিনতাইকারী গ্রেপ্তারে পুরস্কৃত হয়েছেন শাহবাগ থানার এসআই চম্পক চক্রবর্তী, কোতওয়ালী থানার এসআই পবিত্র সরকার, আদাবর থানার এসআই প্রদীপ কুমার সরকার, (অপহরনকারী গ্রেপ্তার) কোতওয়ালী থানার এসআই আব্দুল জলিল, (গাড়ি উদ্ধার) গেন্ডারিয়া থানার এসআই শাহাদত আলম, (লুন্ঠিত মালামাল উদ্ধারসহ আসামি গ্রেপ্তার) যাত্রাবাড়ী থানার এসআই ওয়াছিউল আলম, (হিজবুত তাহরীরের সদস্য গ্রেপ্তার) শেরেবাংলানগর থানার এসআই সুধাংশু সরকার, (ভিকটিম উদ্ধারসহ আসামি গ্রেপ্তার) মোহাম্মদপুর থানার  এসআই জহিরুল ইসলাম, (ডাকাত গ্রেপ্তার) উত্তরা পশ্চিম থানার এসআই শাহীন মিয়া, (ভুয়া সেনা সদস্য গ্রেপ্তার) ওয়ারী ট্রাফিক জোনের সার্জেন্ট তানজিলা খাতুন, (ছিনতাইকারী আটক) লালবাগ ট্রাফিক জোনের  সার্জেন্ট কায়সার মাহমুদ জীবন, (মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার) রমনা মডেল থানার এএসআই রাশেদ খান, (ছিনতাইকারী আটক) বিমানবন্দর ট্রাফিক জোনের এএসআই  মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান, (ছিনতাইকারী আটক) শাহবাগ ট্রাফিক জোনের এএসআই আবু হানিফ, (ছিনতাইকারী আটক) শাহবাগ ট্রাফি জোনের কনস্টবল নম্বর ৮৯৯২ আবুল কালাম আজাদ।

(ঢাকাটাইমস/১০এপ্রিল/এএ/মোআ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

প্রশাসন বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :