পাকিস্তানে বাস থেকে নামিয়ে ১৪ যাত্রীকে হত্যা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ঢাকা টাইমস
 | প্রকাশিত : ১৮ এপ্রিল ২০১৯, ১২:৪৬

পাকিস্তানে বাস থেকে নামিয়ে অন্তত ১৪ যাত্রীকে গুলি করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১২ টা থেকে ১টা মধ্যে দেশটির দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় প্রদেশ বেলুচিস্তানের ওরমারা এলাকার মাকরান উপকূলীয় মহাসড়কে ঘটনাটি ঘটেছে। সরকারী কর্মকর্তার বরাত দিয়ে এখবর দিয়েছে আল জাজিরা।

হতাহতদের দেহ পরীক্ষার সময় পাকিস্তানের স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ মুসা বলেন, তারা সবাই গুলিবিদ্ধ হয়েছে। বেশিরভাগেরই মাথায় গুলি করা হয়েছে।

আঞ্চলিক স্বরাষ্ট্র সচিব হায়দার আলী এএফপি নিউজ এজেন্সিকে জানান, হামলা চালানোর আগে হামলাকারীরা  আধা সামরিক বাহিনীর পোশাক পরেছিলেন এবং গুলি বর্ষণের আগে যাত্রীদের বাস থেকে নামতে বাধ্য করা হয়।

সূত্রের বরাত দিয়ে ডন জানিয়েছে, সেনা পোশাক পরা প্রায় ১৫ থেকে ২০ জন অজ্ঞাত বন্দুকধারীর একটি দল করাচী থেকে গওয়াদরগামী পাঁচ থেকে ছয়টি বাস থামায়। বুজি টপ এলাকায় বন্দুকধারীরা একটি বাস থামিয়ে যাত্রীদের পরিচয়পত্র পরীক্ষা করে, তারপর ১৬ জন যাত্রীকে বাস থেকে নামিয়ে নিয়ে যায়। এদের মধ্যে দুই যাত্রী কোনোরকমে রক্ষা পেয়ে পালিয়ে গিয়ে নিকটবর্তী আধাসামরিক বাহিনীর চেকপোস্টে খবর দেন।

বাসে যাত্রীরা করাচী থেকে মাকরান উপকূলীয় মহাসড়ক ধরে বন্দর নগরী গাওয়াদারে যাচ্ছিলেন। গাওয়াদার জেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা আসিফ শাওয়ানি জানান, এটি একটি নির্জন জায়গা। এটি ওরমারার নিকটতম শহর থেকে ৬০ কিলোমিটার এবং গাওয়াদার থেকে ৩০০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত।

স্থানীয় কর্মকর্তারা এ হত্যাকাণ্ডের উদ্দেশ্য ও এর সঙ্গে জড়িতদের বিষয়ে তাৎক্ষণিকভাবে কিছু জানাতে পারেননি। তখনও পর্যন্ত নিহতদের পরিচয়ও শনাক্ত করা সম্ভব হয়নি।

২০১৫ সালেও বেলুচিস্তানের মাসটুং এলাকায় একই ধরনের একটি হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছিল। ওই সময় সশস্ত্র ব্যক্তিরা করাচিগামী দুটি বাসের প্রায় ২৪ জন যাত্রীকে অপহরণ করে নিকটবর্তী পার্বত্য এলাকায় নিয়ে অন্তত ১৯ জনকে গুলি করে হত্যা করেছিল।

ঢাকা টাইমস/১৮এপ্রিল/একে

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :