লেবাননে বাংলাদেশ দূতাবাসে মুজিবনগর দিবস পালিত

ওয়াসীম আকরাম, লেবানন
 | প্রকাশিত : ১৮ এপ্রিল ২০১৯, ২২:০১

যথাযোগ্য মর্যাদায় লেবাননের বাংলাদেশ দূতাবাসে ১৭ এপ্রিল মুজিব নগর দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে দূতাবাসের হল রুমে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

সভার শুরুতে ওই দিবসের ওপর প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়।

এরপর দূতাবাসের প্রথম সচিব (শ্রম) দূতালয় প্রধান আব্দুল্লাহ আল মামুনের পরিচালনায় রাষ্ট্রদূত আব্দুল মোতালেব সরকারের আসন গ্রহণের মধ্যদিয়ে আলোচনা সভা শুরু হয়।

শুরুতে পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত করেন দূতাবাসের প্রশাসনিক কর্মকর্তা আবুল হোসেন এবং বাংলাদেশ থেকে প্রেরিত রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর বাণী পাঠ করেন শুনান দূতাবাসের প্রথম সচিব আব্দুল্লাহ আল মামুন ও তৃতীয় সচিব আব্দুল্লাহ আল শাফি।

দিবসটির তাৎপর্যের উপর রাষ্ট্রদূত তার বক্তব্যে ঐতিহাসিক এ দিনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ চার জাতীয় নেতার প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন এবং তাদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন এবং শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করেন মুক্তিযুদ্ধের ৩০ লাখ শহীদ এবং দুই লাখ নির্যাতিত মা-বোনকে।

রাষ্ট্রদূত আবদুল মোতালেব সরকার বলেন, বাংলাদেশের  ইতিহাসে ১৭ এপ্রিল এক অবিস্মরণীয় দিন। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণের মাধ্যমে পাকিস্তানি শোষক গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে মুক্তিসংগ্রামের যে পথ চলা শুরু হয়- তা ১৯৭১ সালের ১০ এপ্রিল সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে রাষ্ট্রপতি, সৈয়দ নজরুল ইসলামকে উপ-রাষ্ট্রপতি এবং তাজউদ্দিন আহমেদকে প্রধানমন্ত্রী করে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের সমন্বয়ে স্বাধীন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার গঠনের মাধ্যমে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ লাভ করে। মুজিব নগর সরকার গঠনের মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধ পরিচালনার জন্য ১৯৭০ এর নির্বাচনে জনগণ কর্তৃক নির্বাচিত প্রতিনিধিদের নেতৃত্বে একটি সাংবিধানিক সরকার আত্মপ্রকাশ করে। এই সরকার গঠনের ফলে বিশ্ববাসী স্বাধীনতার জন্য সশস্ত্র সংগ্রামরত বাঙালিদের প্রতি সমর্থন ও সহযোগিতার হাত প্রসারিত করে।

তিনি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধুর আদর্শে, তার অসমাপ্ত কাজগুলো প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশের উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন এবং এ ধারা অব্যাহত রাখতে সবাইকে সহযোগিতার আহবান জানান।

এছাড়াও বক্তব্য রাখেন- বাংলাদেশ কমিউনিটির মশিউর রহমান টিটু, ইকবাল হোসেন জয় ও আলমগীর হোসেনসহ আরো অনেকে।

আলোচনা সভায় জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশ নৌবাহিনীর সদস্যবৃন্দ, দূতাবাসের কর্মকর্তাবৃন্দসহ প্রবাসী বাংলাদেশিরা উপস্থিত ছিলেন।

(ঢাকাটাইমস/১৮এপ্রিল/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

প্রবাসের খবর বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :