প্রেমিকের টানে বাংলাদেশে এসে ডংসন এখন মরিয়ম খাতুন

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২০ এপ্রিল ২০১৯, ১৭:৫৭

কথায় বলে মনের কোনো বয়স নেই। তাই অসম বয়সী প্রেমিকের টানে যুক্তরাষ্ট্র ছেড়ে বাংলাদেশে এসেছেন ডংসন লং। চুয়াডাঙ্গার সাতাশ বছর বয়সী প্রেমিক ফয়সালের জন্য ধর্মও বদলেছেন বায়ান্ন বছরের ডংসন। নতুন নাম নিয়েছেন মরিয়ম খাতুন। সম্প্রতি প্রেমের টানে বাংলাদেশে ছুটে আসছেন অনেক বিদেশি প্রেমিক-প্রেমিকা। এবার সে তালিকায় পাল্লা ভারী করলেন এই মার্কিন নারী।

ফয়সাল আহমেদের বাড়ি চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার বনানীপাড়ায়। তার বাবা সোনালী ব্যাংক কর্মচারী শাহাবুল হোসেন। ফয়সালের সঙ্গে ফেসবুকে আলাপ-পরিচয় ডংসনের। পরিচয় গিয়ে ঠেকে পরিণয়ে। বাংলাদেশে প্রেমিকের কাছে ছুটে আসেন মধ্যবয়সী ডংসন। ইসলাম ধর্মে দীক্ষিত হয়ে নাম নেন মরিয়ম খাতুন। তারপর বিয়ে করেন এই যুগল।

এদিকে জানাে গছে, ফয়সাল বিবাহিত। তার স্ত্রী সন্তান রয়েছে। তাই আমেরিকা থেকে আসা নারীকে গোপনে বিয়ে করেছেন তিনি। শনিবার বিকালে ফয়সালের বাড়িতে গিয়ে নবদম্পতিকে পাওয়া যায়নি। মার্কিন নারীকে বিয়ে করে ফয়সাল এলাকা ছেড়েছেন বলে প্রতিবেশিরা জানান।
এলাকাবাসী বলছেন, ফয়সালের পরিবারের লোকজন বিষয়টি জানলেও কাউকে কিছু বলছেন না। ফয়সাল হয়তো আমেরিকা যাওয়ার জন্য ওই মধ্যবয়সী নারীকে বিয়ে করেছেন। কয়েক দিন ধরে ফয়সালকে এলাকায় দেখা যায়নি। বিদেশি নারীকে নিয়ে হয়তো অন্য স্থানে চলে গেছেন। বর্তমানে তারা কোথায় আছেন জানেন না কেউ।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গত ১৩ এপ্রিল প্রেমিক ফয়সালকে সঙ্গে নিয়ে চুয়াডাঙ্গা জজ আদালতে গিয়ে নোটারি পাবলিকের মাধ্যমে মুসলমান হয়ে নাম পরিবর্তন করেন ডংসন লং। মরিয়ম খাতুন নামে ১০ হাজার টাকা দেনমোহরে ফয়সালকে বিয়ে করেন তিনি।

চুয়াডাঙ্গা জেলা জজ আদালতের নোটারি পাবলিকের আইনজীবী এসএন এ হাশেমী জানান, মধ্যবয়সী এক মার্কিন নারীর সঙ্গে ফয়সাল নামে এক যুবকের বিয়ে হয়েছে। তারা নোটারি পাবলিকের মাধ্যমে বিয়ে করেছেন।

ঢাকাটাইমস/২০এপ্রিল/ডিএম

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :