গফরগাঁওয়ে গৃহবধূ হত্যায় বিচার দাবি

ময়মনসিংহ প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২০ এপ্রিল ২০১৯, ২২:৪৫

ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে সাথী আক্তার (১৩) নামে স্কুলপড়ুয়া গৃহবধূকে নির্যাতন করে হত্যার ঘটনায় অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে হাজারো নারী-পুরুষ মানববন্ধন করেছে।

শনিবার দুপুরে গফরগাঁও প্রেসক্লাবের সামনে এ মানববন্ধন হয়।

এর আগে তারা বিক্ষোভ মিছিল শেষে গফরগাঁও থানা কমাউন্ডে গিয়ে হত্যাকারীদের দ্রুত গ্রেপ্তার ও বিচার দাবি করেন।

ঘটনাটি ঘটে গত মঙ্গলবার বিকালে উপজেলার চরমছলন্দ কাঁচারীপাড়া গ্রামে।

ওইদিন রাতেই নিহত বালিকার বাবা আব্দুল লতিফ বাদী হয়ে ছয়জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা করেন।

আসামরিা হলেন- বালিকা বধূর স্বামী শারফুল ইসলাম, শাশুড়ি জোসনারা বেগম, দেবর রাকিব, ননদ নাছিমা খাতুন, সাবিনা খাতুন ও ভগ্নিপতি কবির। ওই মামলায় আটক নাসিমা খাতুন বর্তমানে জেলহাজতে রয়েছেন। অন্য আসামিরা পলাতক।

প্রসঙ্গত, উপজেলার চরমছলন্দ জিরাতিপাড়া গ্রামের আব্দুল লতিফের মেয়ে ও চরমছলন্দ মুসলিম বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী সাথী আক্তারের সাথে রাওনা ইউনিয়নের ছয় বাড়িয়া গ্রামের চানু মিয়ার ছেলে শারফুল ইসলামের প্রায় ছয় মাস পূর্বে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে স্বামী শরিফুল ও তার স্বজনরা নানাভাবে নির্যাতন করতেন। ঘটনার দিন মঙ্গলবার সাথী আক্তারকে আবারো শারীরিকভাবে নির্যাতন করে শ্বশুর বাড়ির লোকজন। এতে সাথী আক্তার অসুস্থ হয়ে পড়লে মঙ্গলবার সকালে গোপনে ময়মনসিংহে চিকিৎসা করাতে নিয়ে যায়। চিকিৎসা শেষে দুপুরে সাথী আক্তারকে নিয়ে শারফুল ভগ্নিপতি কবিরের চরমছলন্দ কাঁচারীপাড়া গ্রামের বাড়িতে যান। বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে শারফুল ও তার স্বজনরা আবার সাথীর ওপর শারীরিক নির্যাতন চালালে মেয়েটি মারা যায়। এ সময় শারফুলসহ ভগ্নিপতি কবিরের বাড়ির লোকজন পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে পুলিশ কবিরের বাড়ি থেকে লাশ উদ্ধার করে।

গফরগাঁও থানার ওসি মোহাম্মদ আবদুল আহাদ খান বলেন, এ ঘটনায় দায়েরকৃত মামলায় গ্রেপ্তার এক নারী জেলহাজতে রয়েছেন। তাকে রিমান্ডে আনার আবেদন করা হয়েছে। বাকি আসামিদের গ্রেপ্তারে পুলিশি অভিযান চলছে।

(ঢাকাটাইমস/২০এপ্রিল/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :