মোস্তাফিজকে চাপ দিতে চান না ওয়ালশ

ক্রীড়া প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২৩ এপ্রিল ২০১৯, ১০:১৮ | প্রকাশিত : ২৩ এপ্রিল ২০১৯, ০৯:৪৪

পেসার মোস্তাফিজুর রহমানকে নিয়ে কোনো প্রকার তাড়াহুড়া করতে চান না বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশ। পায়ের গোঁড়ালির ইনজুরি থেকে সুস্থ হয়ে উঠতে ‘কাটার মাস্টার’কে পর্যাপ্ত সময় দিতে চান তিনি। এছাড়া আগামী মাসে আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজে মোস্তাফিজকে খুব বেশি ব্যবহারের পক্ষেও নন ওয়ালশ।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ কিংবদন্তির মতে মোস্তাফিজ প্রায়শই ছোট-খাটো ইনজুরিতে পড়ছেন, তাই বিশ্বকাপের মাত্র দুই সপ্তাহ আগে ত্রিদেশীয় সিরিজে তাকে যতটা কম ব্যবহার করা যায় ততই ভাল। তাতে করে মেগা ইভেন্টের জন্য মোস্তাফিজ পুরোপুরি প্রস্তুত হতে পারবে। আয়ারল্যান্ডের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হওয়ার আগে ঢাকায় দলের প্রথম অনুশীলন শেষে এ সব কথা বলেন ওয়ালশ।

দলের কয়েকজন পেস বোলারের ইনজুরি নিয়েও শঙ্কিত বোলিং কোচ। পেসার রুবেল হোসেনের সাইড-স্ট্রেন সমস্যা রয়েছে। মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন ভুগছেন টেনিস এলবো সমস্যায়। এমনকি আবু জায়েদ রাহিরও কিছু সমস্যা আছে। তবে বাংলাদেশ দলের পেস বোলিং লাইন আপের মূল সদস্য মোস্তাফিজকে নিয়ে বেশি চিন্তিত ওয়ালশ।

ওয়ালশ বলেন, ‘ফিট থাকলে মোস্তাফিজকে বিশ্বকাপে বড় ভুমিকা পালন করতে হবে। তবে আমাদের মাত্র একজন খেলোয়াড়ের ওপড় নির্ভরশীল থাকতে হবে আমি এমনটা মনে করি না। সাকিব, মাশরাফি এবং রুবেল ধারবাহিকতার মধ্যে আছে। ইনজুরিতে পড়ার পর থেকে ফিজ নিজের সেরা ফর্মে নেই এবং তার ছোট-খাটো কিছু সমস্যা আছে। পুরোপুরি ফিট থাকলে মোস্তাফিজ একাই দলকে জয় এনে দিত পারে। তবে এ জন্য যতটা সম্ভব তাকে আমাদের ফিট রাখতে হবে। সেজন্য আমাদের হাতে এখনো সময় আছে। আমার চিন্তা হচ্ছে বিশ্বকাপে তাকে পুরোপুরি ফিট হিসেবে পেতে তার উপর খুব বেশি চাপ না দেয়া এবং আয়ারল্যান্ড সিরিজে তাকে খুব বেশি ব্যবহার না করা।’

‘আমাদের পাঁচজনের মধ্যে ফিজ, রুবেল এবং সাইফউদ্দিন তিন জনেরই ইনজুরি রয়েছে। আমাদের দরকার তাদেরকে সঠিক ফ্রেমে বোলিংয়ে ফিরিয়ে আনা এবং আয়ারল্যান্ডে স্বল্প বোলিং করিয়ে ক্ষুরধার অবস্থায় ফিরিয়ে আনা এবং বিশ্বকপরে জন্য প্রস্তুত করা। এদের ব্যাক আপ হিসেবে আমাদের তাসকিন আহমেদ, খালেদ আহমেদ এবং শফিউল ইসলাম আছে। প্রয়োজনে তাদের ব্যবহার করা যায়, এমনটা আপনারা বলতে পারেন।’

বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের পিচগুলো ব্যাটিং সহায়ক হবে বলে অনেকেই ধারণা করছেন। ওয়ালশ বলেন, ইংল্যান্ডে পেস বোলারদের জন্য কেবল দক্ষতা থাকলেই হবে না একই সাথে কখন ও কীভাবে তাদের ব্যবহার করতে হবে সেটাও জানতে হবে।

তিনি বলেন, ‘এটা হবে একটা বড় চ্যালেঞ্জ। বিশ্বকাপ লম্বা সময়ের টুর্নামেন্ট। সেখানে বেশ কিছু ভালো উইকেট থাকবে, যেগুলো ব্যাটিং সহায়ক। আমাদের বুদ্ধি খাটাতে হবে এবং ভালোভাবে কাজে লাগানোর চেষ্টা করতে হবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমরা যে সকল মাঠে খেলব সেখানকার কন্ডিশন এবং মাঠ আমাদের বুঝতে হবে। কোন কোন মাঠে বল বেশি সুইং করতে পারে, আমাদের সে বিষয়ে পর্যালোচনা করতে হবে। অধিকাংশ উইকেট সহজবোধ্য ও ফ্লাট হবে। নিজেদের ভিন্নতা ও বাস্তবায়নের বিষয়ে আমাদের কাজ করতে হবে।

‘আজকের দিনে সবাই একে অপরের গবেষণা করে, সুতরাং তারা আমাদের শক্তি ও দুর্বলতা সম্পর্কে জানে। যেমনিভাবে আমরা তাদের সম্পর্কে জানি।’

(ঢাকাটাইমস/২৩ এপ্রিল/এসইউএল)

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

খেলাধুলা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :