নেত্রকোণার দুই যুদ্ধাপরাধীর ফাঁসির আদেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২৪ এপ্রিল ২০১৯, ১৪:১৬ | প্রকাশিত : ২৪ এপ্রিল ২০১৯, ১১:৫২

একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় নেত্রকোণার দুই আসামির ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল। অপরাধ প্রমাণ হওয়ায় বিচারপতি শাহিনুর ইসলামের নেতৃত্বে তিন সদস্যের আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল বুধবার এই আদেশ দেন।

ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- হেদায়েত উল্লাহ ওরফে মো. হেদায়েতল্লাহ ওরফে আঞ্জু বিএসসি এবং সোহরাব ফকির ওরফে সোহরাব আলী ওরফে ছোরাপ আলী। দুইজনের মধ্যে কারাগারে থাকা সোহরাব আলী আদালতে উপস্থিত ছিলেন। আরেক আসামি হেদায়েত পলাতক।

২১৮ পৃষ্ঠার রায়ে দণ্ডপ্রাপ্তদের বিরুদ্ধে একাত্তরে পাকিস্তানি বাহিনীর সহযোগিতায় গঠিত শান্তি কমিটি ও রাজাকার বাহিনীতে যোগ দেয়ার বিষয়টি উঠে এসেছে। এছাড়া তারা আটপাড়ার মধুয়াখালী, মোবারকপুর, সুখারী গ্রাম এবং মদন থানার মদন গ্রামে বিভিন্ন মানবতাবিরোধী অপরাধ ঘটান বলেও প্রমাণিত হয়েছে।

দণ্ডপ্রাপ্তদের বিরুদ্ধে প্রসিকিউশনের আনা ছয়টি অভিযোগই সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হয়েছে। এর মধ্যে তিনটি অভিযোগে আসামিদের সর্বোচ্চ সাজার রায় এসেছে। বাকি তিন অভিযোগের প্রত্যেকটিতে তাদের দশ বছর করে কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।

গত ৭ মার্চ মামলাটির শুনানি শেষে সিএভি ঘোষণা করা হয়। এরপর গত মঙ্গলবার বিচারপতি মো. শাহিনুর ইসলামের নেতৃত্বে তিন সদস্যের ট্রাইব্যুনাল রায়ের জন্য বুধবারের দিন ধার্য করেন।

২০১৬ সালের ৮ সেপ্টেম্বর সংবাদ সম্মেলনে দণ্ডপ্রাপ্তদের বিরুদ্ধে তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করেন ট্রাইব্যুনালের প্রধান সমন্বয়ক আব্দুল হান্নান খান। ২০১৭ সালের ১০ জানুয়ারি আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আমলে নেয়ার আদেশ দেন ট্রাইব্যুনাল।

শুরুর দিকে মামলাটিতে আসামি ছিলেন তিনজন। কিন্তু মামলাটির আরেক আসামি এনায়েত উল্লাহ ওরফে মঞ্জু গ্রেপ্তার হওয়ার পর ২০১৭ সালের ২৫ জানুয়ারি ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।
তিনজনের বাড়িই নেত্রকোণার আটপাড়া থানার কুলশ্রীতে হলেও আঞ্জু থাকেন রাজশাহীর বোয়ালিয়া থানার হেতেমখাঁ মেথরপাড়ায়। অপরদিকে ছোরাপের বসবাস ছিলো একই জেলার মদন থানার জাহাঙ্গীরপুরে।

ঢাকাটাইমস/২৪এপ্রিল/আরজেে/এমআর

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :