সৌদি বিনিয়োগে পুঁজিবাজার উন্নয়নের আশা

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১২ মে ২০১৯, ০৯:৫২
ফাইল ছবি

দেশে সৌদি আরবের বিনিয়োগ আনতে গঠিত কমিটির কার্যক্রম দ্রুতগতিতে এগোচ্ছে। সৌদি আরব যেসব ক্ষেত্রে বিনিয়োগে আগ্রহ দেখিয়েছে সেগুলোর পর্যালোচনা কম সময়ের মধ্যে শেষ হবে বলে সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্রে জানা গেছে। পর্যালোচনা প্রতিবেদন সৌদি সরকারের কাছে পৌঁছানোর পর বিনিয়োগের সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হবে।

এখন পর্যন্ত সৌদি আরব পুঁজিবাজারসহ দেশের বিভিন্ন ক্ষেত্রে ৩৫ বিলিয়ন ডলার (দুই লাখ ৯৭ হাজার কোটি টাকা) বিনিয়োগে আগ্রহ দেখিয়েছে বলে বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিডা) সূত্রে জানা গেছে। এর মধ্যে পুঁজিবাজারেই আসবে সাড়ে চার হাজার কোটি টাকা।

আর এই বিষয়টি এগিয়ে নিতে সরকার ‘নির্বাহী মনিটরিং কমিটি’ নামে এ-সংক্রান্ত দুটি কমিটি গঠন করেছে। একটি মন্ত্রীদের সমন্বয়ে। অন্যটি সচিব পর্যায়ের কর্মকর্তাদের নিয়ে। বুধবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে এই দুই কমিটির সনম্বয়ে তৃতীয় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৈঠকে উপস্থিত একাধিক সূত্রে জানা গেছে, বৈঠকে আটটি প্রকল্প নিয়ে কথা হয়েছে। এর মধ্যে ঢাকা-চট্টগ্রাম-কক্সবাজার ট্রেন, ঢাকা-বরিশাল ট্রেন লাইনসহ আরও কয়েকটি প্রকল্প নিয়ে কথা হয়েছে। ঢাকাকে একটি এভিয়েশন হাব বানানো হবে। যেটা দুবাইতে আছে। এভিয়েশন হাব হচ্ছে, যেখানে উড়োজাহাজ মেরামতসহ নানা সুবিধা থাকবে। বিনিয়োগ সুরক্ষা তহবিল নিয়েও কথা হয়েছে। এ ছাড়া বিশ্বের বৃহৎ তেল উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান সৌদি আরবের আরামকো কোম্পানির বাংলাদেশে বিনিয়োগ নিয়েও কথা হয়েছে। এই প্রতিষ্ঠানটি একাই বাংলাদেশে প্রায় সাড়ে ৭ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করতে আগ্রহী। বাংলাদেশি মুদ্রায় এই বিনিয়োগের পরিমাণ প্রায় (প্রতি ডলার ৮৫ টাকা ধরে) ৬৪ হাজার কোটি টাকা।

জানতে চাইলে বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিডা) নির্বাহী চেয়ারম্যান কাজী এম আমিনুল ইসলাম ঢাকা বলেন, ‘আগামী ১৪ মে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের সঙ্গে আমাদের পর্যালোচনামূলক বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে। যেখানে সৌদি আরবের বিনিয়োগের বিষয়ে কথা হবে। আমাদের পুঁজিবাজার এখানো শক্তিশালী অবস্থানে নেই। এখানে বিনিয়োগের যথেষ্ট সুযোগ রয়েছে। তাই আমরা বিদেশি বিনিয়োগকারীদের এখানে আকৃষ্ট করতে কাজ করছি।’

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্যোগে কয়েক বছর ধরেই এদেশে সৌদি আরবের বিনিয়োগ আনার চেষ্টা চলছে। সৌদি বাদশাহ এবং প্রিন্স দুজনই বাংলাদেশের ব্যাপারে আগ্রহী। এ কারণে সম্প্রতি সৌদি আরবের মন্ত্রী পর্যায়ের একটি প্রতিনিধিদল বাংলাদেশ সফর করে গেছেন। ওই সময় বাংলাদেশের চলমান ও প্রস্তাবিত কয়েকটি বড় প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য সৌদি আরবের কাছে ৩৫ বিলিয়ন ডলার চাওয়া হয়। শুধু তাই নয়, পুঁজিবাজার উন্নয়নে জরুরি ভিত্তিতে দেশটির কাছে সাড়ে চার হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ চাওয়া হয়েছে। বাংলাদেশের এই প্রস্তাব ইতিবাচক দৃষ্টিতে দেখছে সৌদি আরব।

চীনের সাংহাই ও শেনজেন স্টক এক্সচেঞ্জে সৌদি আরবে বিনিয়োগ রয়েছে। এ ছাড়া আরও কয়েকটি বড় স্টক মার্কেটে সৌদি আরব বিনিয়োগ করবে। এক্ষেত্রে বাংলাদেশের পুঁজিবাজারও তাদের পছন্দ।

পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থার বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) চেয়ারম্যান এম খায়রুল হোসেন ঢাকা টাইমস বলেন, ‘আমরা বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিডা) কাছে জানতে চেয়েছি সৌদি আরব আমাদের পুঁজিবাজারে কীভাবে বিনিয়োগ করবে? তারা কি সরাসরি শেয়ার কিংবা নাকি অন্য কোনোভাবে। এখনো বিডা আমাদের কিছু জানায়নি। তাই এই বিনিয়োগ কী পর্যায়ে আছে এখন বলা যাচ্ছে না। তবে দেশের পুঁজিবাজারে সৌদি বিনিয়োগ আসলে বাজার আরও উন্নত হবে।’

বিডা সূত্রে জানা গেছে, তেলনির্ভর অর্থনীতি থেকে বেরিয়ে এসে উৎপাদনশীল খাতে সৌদি আরব বিনিয়োগ বাড়ানোর পদক্ষেপ নিয়েছে। দেশটির পাবলিক ইনভেস্ট ফান্ডে ২৫০ বিলিয়ন ডলার রয়েছে। এর পুরোটাই এখন বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বিনিয়োগের উদ্যোগ নিয়েছে সৌদি সরকার। বাংলাদেশ তাদের সেই বিনিয়োগ আনতে সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

জানা গেছে, আগামী ২০৩০ সাল নাগাদ বিনিয়োগ বৃদ্ধির ভিশন ঠিক করেছে মধ্যপ্রাচ্যের শক্তিশালী অর্থনীতির এই দেশটি। সঠিক পরিকল্পনায় এই বিনিয়োগ কীভাবে, বাংলাদেশের কোন কোন খাতে করা করা হবে তা নির্দিষ্ট করে দিতে ইতোমধ্যে গঠন করা হয়েছে বিজনেস কাউন্সিল। এই কাউন্সিলের নাম দেয়া হয়েছে ‘সৌদি-বাংলাদেশ জয়েন্ট ওয়ার্কিং কমিটি ফর ইনভেস্টমেন্ট।’ সৌদি সরকারের অর্থ ও পরিকল্পনামন্ত্রী এই কমিটির নেতৃত্ব দিচ্ছেন। এ ছাড়া বাংলাদেশ সরকারের অর্থ মন্ত্রণালয়, বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ বিডা, অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ, পরিকল্পনা, বাণিজ্য ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধিদের রাখা হয়েছে।

(ঢাকাটাইমস/১২মে/আরএ/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

পুঁজিবাজার বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :