যদি শিক্ষার্থীরা কৃষকের ধান কেটে দিত...

ওমর আলী
| আপডেট : ১৫ মে ২০১৯, ১৭:৩৬ | প্রকাশিত : ১৫ মে ২০১৯, ১৭:৩২

যখন ক্লাস থ্রিতে পড়ি, এক সাথে খুব বেশি মিশতাম। আমি পান্নু, জাহিদ হুমায়ূন, ওহিদ ভাই। আমাদের বাড়ির পাশে সবার বাড়ি তাই সবার সাথে ভালো একটা সম্পর্ক। এক সাথে স্কুলে যেতাম, খেলতাম, মারামারি করতাম। একদিন স্কুলে যাবো সকালে। পান্নু যাবে না। কেনো যাবে না জানতে পারলাম। পান্নুদের স্কুলের পেছনে একটা জমি আছে সেখানে কৃষি ফসল মসূড়ি পেকেছে। পান্নুর বাবা কৃষি শ্রমিক পাইতেছে না। তাই পান্নু ও পান্নুর ছোট ভাই নওশের দুইজনের উঠানোর দায়িত্ব এসেছে। তাই জমিতে যাবে মসূড়ি উঠাতে। ঐ দিন পান্নুকে স্কুলে নিয়ে গেলাম এবং সবার সাথে আলোচনা করে পরের দিন আমি জাহিদ, হুমায়ূন ওহিদ ভাইসহ পান্নুরা দুই ভাই সকালে জমিতে গিয়ে তাদের মসূড়ি উঠায় দিতেছি। হঠাৎ দেখি পান্নুর মা আমাদের কয়জনের জন্য সকালের নাস্তা খেচুড়ি ও শুকনো মরিচ ভর্তা নিয়ে এসেছেন। সেদিন আমরা সবাই সারাদিন স্কুলে না গিয়ে তাদের সাহায্য করেছিলাম শুধু তাদের সাহায্য ও বন্ধুত্বের সম্পর্কের কারণে। অনেকের এই কথা মনে নেই হয়তো। হঠাৎ করে আজকে যখন নিউজে দেখলাম স্কুল কলেজের ছাত্ররা কৃষকের ধান কেটে দিতেছে; কেনো যেনো খুশিতে মন ভরে গেলো। আমি মনে করি সব জায়গায় স্কুল কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদের উচিত দেশ ও সমাজের যে কোনো সমস্যায় একদিন করে যদি সময় দেয় তাহলে দেশটা সত্যি সামনে এগিয়ে যাবে। আর কোনো কৃষক পাকা ধানে আগুন ধরিয়ে দিবে না ।

লেখক: আবু ধাবি; আরব আমিরাত প্রবাসী

সংবাদটি শেয়ার করুন

ফেসবুক কর্নার বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :