পাঁচ শতাধিক রোগীকে প্যালিয়েটিভ সেবা বিএসএমএমইউর

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২৩ মে ২০১৯, ২১:০০

রাজধানীর কড়াইল বস্তিতে চলমান প্যালিয়েটিভ সেবা কার্যক্রমের মাধ্যমে এ পর্যন্ত ২৮ শিশু ও পাঁচ শতাধিক বয়স্ক রোগীর মাঝে সেবা দিয়েছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ)।

বৃহস্পতিবার বিএসএমএমইউ উপাচার্য কনক কান্তি বড়ুয়া রাজধানী বনানীর খামার বাড়ি কড়াইল বস্তিতে কমিউনিটি প্যালিয়েটিভ কেয়ার সেন্টারের (মমতাময় কড়াইল) চলমান প্যালিয়েটিভ সেবা কার্যক্রম পরিদর্শন করেছেন।

প্যালিয়েটিভ সেবা হলো নিরাময় অযোগ্য রোগীদের আমৃত্যু চিকিৎসাসেবা দানের মাধ্যমে রোগীদেরকে যতটা সম্ভব যন্ত্রণামুক্ত বা ব্যাথামুক্ত রাখা এবং রোগী যাতে স্বস্তি বা আরামবোধ করেন তা নিশ্চিত করা।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) ও ওয়ার্ল্ড ওয়াইড হসপিস প্যালিয়েটিভ কেয়ার এ্যালায়েন্সের  ডব্লিউএইচপিসিএ যৌথ উদ্যোগে ২০১৫ সালে দুই লাখের বেশি মানুষের বসবাসকারী কড়াইল বস্তিতে বয়স্কদের মাঝে এই সেবা কার্যক্রম শুরু হয়। এ পর্যন্ত পাঁচ শতাধিক বয়স্ক রোগীর মাঝে এই চিকিৎসাসেবা প্রদান করা হয়েছে।

এছাড়া বিএসএমএমইউ ও ওয়ার্ল্ড চাইল্ড ক্যান্সারের যৌথ উদ্যোগে ওই বস্তিতে ২০১৭ সাল থেকে শিশুদের জন্যও এই সেবা কার্যক্রম চালু রয়েছে। এ পর্যন্ত ২৮ জন শিশুকে এই সেবা প্রদান করা হয়েছে, যাদের বয়স তিন থেকে ১০ বছর।

পরিদর্শনকালে বিএসএমএমইউ উপাচার্যকে এক শিশু তার নিজের হাতের আঁকা চিত্রকর্ম উপহার দেন। এছাড়া শিশুদের লেখা একটি কবিতার বইও উপাচার্যের হাতে ওই সেন্টারের পক্ষ থেকে উপহার হিসেবে দেয়া হয়। পরে কনক কান্তি বড়ুয়া প্যালিয়েটিভ সেবাগ্রহণকারী রোগীদের সাথে কথা বলেন ও তাদের চিকিৎসাসেবার খোঁজ-খবর নেন।        

বিএসএমএমইউয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া কড়াইল বস্তির কমিউিনিটি প্যালিয়েটিভ কেয়ার সেন্টারের সেবা কার্যক্রম পরিদর্শন শেষে এ বিষয়ে বিএসএমএমইউয়ের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় সহযোগিতা অব্যাহত রাখার আশ্বাস দেন। এসময় ওই বস্তিতে বসবাসকারী বাসিন্দারা সেখানে প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবা চালুর অনুরোধ করলে উপাচার্য সে বিষয়টিও বিবেচনার আশ্বাস দেন।

প্যালিয়েটিভ মেডিসিন বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক নিজামউদ্দিন আহমদ জানান, চলতি বছরের এপ্রিল মাসে কড়াইল বস্তিতে কমিউনিটি প্যালিয়েটিভ কেয়ার সেন্টারে ওয়ার্ল্ড ওয়াইড হসপিস প্যালিয়েটিভ কেয়ার এ্যালায়েন্সের অর্থায়নের সহযোগিতার মেয়াদ শেষ হয়েছে। তারপরও বিএসএমএমইউ সহ আরো কয়েকটি প্রতিষ্ঠান ও সংগঠনের সহায়তায় এই মহতি সেবা কার্যক্রম অব্যাহত আছে।

উল্লেখ্য, ক্যান্সার, স্ট্রোক ও প্যারালাইসিস, স্নায়ুরোগ, দীর্ঘমেয়াদী শ্বাসকষ্ট, কিডনির অকার্যকারিতা, বার্ধক্যজনিত অসুস্থতা ও শয্যাশায়ী রোগীদের প্যালিয়াটিভ চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হয়। মমতাময় কড়াইলের সেবা সমূহ হলো-প্রত্যেক শনিবার বহির্বিভাগে চিকিৎসকের মাধ্যমে সেবা প্রদান, শয্যাশায়ী রোগীদের গৃহ  সেবা প্রদান ও পারিবারিক সেবাশিক্ষা প্রদান, গরীব, অসহায় ও একাকী রোগীদের বিনামূল্যে প্রয়োজনীয় ওষুধ প্রদান, অসহায় একাকী রোগীদের মাসে একবার প্রয়োজনীয় খাবার সামগ্রী বিতরণ, মাসে একবার চক্ষু পরীক্ষা সেবা প্রদান এবং স্বল্পমূল্যে প্রেসার (রক্তচাপ), ডায়াবেটিস, ওজন মাপা ও নেবুলাইজেশন করা  ইত্যাদি।

এ সময় বিএসএমএমইউর প্যালিয়েটিভ মেডিসিন বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. নিজামউদ্দিন আহমদ উপস্থিত ছিলেন।

ঢাকাটাইমস/২৩মে/এএ/ইএস

সংবাদটি শেয়ার করুন

স্বাস্থ্য বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :