কেরানীগঞ্জের ওসির বিরুদ্ধে ধর্ষণের মামলা

আদালত প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১১ জুন ২০১৯, ২১:৩১ | প্রকাশিত : ১১ জুন ২০১৯, ১৯:৫৮

কেরানীগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাকের মো. জোবায়েরসহ ১১জনের বিরুদ্ধে ধর্ষণ ও দায়িত্ব অবহেলার অভিযোগে মামলা হয়েছে। ঢাকার ৬ নম্বর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে নালিশী মামলার পর অভিযোগ তদন্তের নির্দেশও দিয়েছেন বিচারক।

মঙ্গলবার এই মামলাটি করেন একজন মানবাধিকার কর্মী। আর শুনানি শেষে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)কে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক শহিদুল ইসলাম।

ওসি জোবায়ের ছাড়া অপর আসামিরা হলেন কেরানীগঞ্জ মডেল থানার ওসি অপারেশন গোলাম সারোয়ার, এসআই রেজাউল আমিন বশার, জনৈক মো. ফারুক, হায়দার, মো. ইকবাল. মো. হানিফ, মো. হানিফ মেম্বার, মো. রফিক, মো. শফিক ও মো. বাবুল ওরফে মধু।

মামলায় বলা হয়, গত ২০ এপ্রিল দুপুর একটার সময় তার সহকর্মীদের সঙ্গে দেখা করার জন্য কেরানীগঞ্জ আরশিনগর মোড়ে যচ্ছিলেন ওই নারী। পথে আমির মাদবরের সিমেন্টের দোকানের সামনে পৌঁছামাত্র দেখতে পান যে, ২০/৩০ জন সন্ত্রাসী কিছু লোককে ধাওয়া করছে। পরে ওই নারী পুলিশ হেল্প লাইন ৯৯৯ এ ফোন করেন।

আসামিরা দেখে ফেললে ওই নারীর ওপর চড়াও হয়ে তাকে কিল ঘুষি মারতে থাকে। এক পর্যায়ে তার কাপড় টেনে ছিড়ে ফেলে শ্লীলতাহানীর চেষ্টা করে। এ সময় গলায় থাকা দেড় ভরি ওজনের চেন ছিনিয়ে নেওয়া হয়।

গত ২৪ এপ্রিল রাত অনুমানিক পৌনে ১২টার দিকে ঘাটারচর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে আসামি হায়দার, রফিক, শফিক এবং আরো কয়েকজন ওই নারীর রিক্সার গতিরোধ করে। পরে স্কুলের পেছনে নিয়ে হায়দার তাকে ধর্ষণ করেন। বাদিনী এ সময় একমাসের অন্তঃস্বত্ত্বা ছিলেন। আসামিদের নির্যাতনের কারণে তার বাচ্চা নষ্ট হয়ে যায়।

ওই নারী থানায় মামলা করতে গেলে পুলিশ তাকে ভয়ভীতি দেখিয়ে আসামিদের সাথে আপোষ করতে বলেন বলেও মামলায় বলা হয়।

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

আদালত বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :