‘আইনজীবীরা মিথ্যা বলেন’ বাস্তবতা কতটুকু!

ব্যারিস্টার রাগিব রউফ চৌধুরী
 | প্রকাশিত : ১৪ জুন ২০১৯, ১২:১২

সম্প্রতি ঢাকায় এক জাতীয় বিতর্ক অনুষ্ঠানে উপস্হিত ছিলাম। আমার পরবর্তী বক্তা একটি প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক। তিনি তার বক্তব্যে আমার বক্তব্যের সূত্র ধরে অনেকটা অপ্রাসঙ্গিকভাবে সামনে বসা ৩/৪ শ বিতার্কিক ছাত্রছাত্রীকে বললেন, ‘আইনজীবীরা অনেক মিথ্যা কথা বলেন। তোমরা কখনও মিথ্যা বলবে না।’ তার এই বক্তব্যে আমি খুব অবাক হলাম। উপস্থিত ছাত্রছাত্রীরা উনার এই বক্তব্যের সাথে সাথে আমাকে দেখছিল। তারা আমার প্রতিক্রিয়া বোঝার চেষ্টা করছিল। হয়ত বুঝতে চাচ্ছিল আমি মিথ্যাবাদী কি না।

অধ্যাপক সাহেব আমার পরবর্তী বক্তা হওয়াতে উনার এই কথার প্রতিক্রিয়া জানানোর সুযোগ আমার ছিল না। এই পরিবেশে প্রতিবাদ করাও ভালো দেখায় না। উনার সাথে ব্যক্তিগত পরিচয় থাকলে জানতে চাইতাম উনি আইনজীবীদের মিথ্যাবাদী বলার কারণ কী। ভাবছিলাম অধ্যাপক সাহেবের এই বক্তব্য আমি কেন মেনে নিতে পারছিলাম না। মনে হলো আমিতো আমার পেশাগত জীবনে আমার জানা মতে কোনো বিচারপ্রার্থীর পক্ষে মিথ্যা কথা বলিনি আদালতে। বলার প্রয়োজনও হয়নি।

ঢালাওভাবে আইনজীবীদের মিথ্যাবাদী অপবাদ দিতে হলে আগে জানতে হবে একটি শুনানিতে আইনজীবীদের মিথ্যা কথা বলার সুযাগ কতখানি থাকে এবং আইনজীবীরা মিথ্যা বলেন কি না। ফৌজদারি মামলায় আমার জানামতে কোনো বিচারপ্রার্থী আইনজীবীর কাছে এসে কখনো বলেন না যে, তিনি অপরাধটি করেছেন। একজন আইনজীবী কোনো আসামির জামিন চাওয়ার ক্ষেত্রে কিংবা বিচারের সময়ে মামলায় পুলিশ কর্তৃক প্রস্তুতকৃত ও দাখিলকৃত সুরতহাল রিপোর্ট, সাক্ষীদের ১৬১ ধারার জবানবন্দি, চার্জশিট, ডাক্তারের ময়নাতদন্ত, কেমিক্যাল রিপোর্ট , সাক্ষীদের বক্তব্য আদালতের সামনে উপস্থাপন করেন। আসামির বক্তব্যকে সত্যি ধরে নিয়ে আইনজীবী তার পক্ষে আদালতে শুনানি করেন। সাক্ষ্য প্রমাণে দুর্বলতা বা ত্রুটি থাকলে এর সুবিধা আসামি পান। এর মধ্যে আইনজীবীর কী করার আছে?

আইনজীবী মিথ্যা বলবেন কখন? দেওয়ানি মামলাও হয় কাগজপত্রের ওপর ভিত্তি করে। একজন ভালো আইনজীবীতো আর কাগজ বানিয়ে আনেন না। অথচ অনেকেই না জেনে বা না বুঝে আইনজীবীদের এই অপবাদ দিয়ে মজা পান। Liar Liar এর মত অনেক সিনেমাও হয়েছে এই প্রেক্ষাপটে। কিন্তু বাস্তবতা একদমই ভিন্ন।

যখন কেউ বিপদে পড়েন তখন আইনজীবীর কাছে আসেন আর কাজ শেষ হয়ে গেলে আইনজীবীদের বিভিন্ন ধরনের অপবাদ দিয়ে তৃপ্ত হন, যা কোনোভাবেই যুক্তিসঙ্গত নয়। পয়সা পেলে অনেকেই ভালো খারাপের পার্থক্য বুঝতে পারেন না বা বুঝতে চান না। কিন্তু দোষ দিয়ে শান্তি পান আইনজীবীদের।

লেখক: জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের কেন্দ্রীয় দপ্তর সম্পাদক

সংবাদটি শেয়ার করুন

নির্বাচিত খবর বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :