এই সংসদকে আমরা স্বীকৃতি দেই না: ফখরুল

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১৬ জুন ২০১৯, ২২:১৮

বর্তমান একাদশ সংসদকে তারা স্বীকৃতি দেন না বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি  বলেছেন, এটা অবৈধ সংসদ। এ সংসদ জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়নি। বর্তমান সরতকারের

আজ রবিবার বিকলে ঠাকুরগাঁওয়ের রুহিয়া থানা বিএনপির এক কর্মিসভায় এসব কথা বলেন তিনি।

বিএনপির মহাসচিব বলেন, রাষ্ট্রীয় দানবের নির্যাতন-নিপীড়ন ও আগ্রাসনের কাছে সাধারণ মানুষ পরাজিত হয়েছে।

এ সরকার নির্বাচনের নামে ডাকাতি করেছে দাবি করে বিএনপির মহাসচিব বলেন, ‘আপনার-আমার সবার অধিকার কেড়ে নিয়ে গেছে। রাতের বেলা অর্ধেক ভোট নেওয়া শেষ এবং সকালবেলা না ঢুকতেই বাকি ভোট শেষ। দুর্ভাগ্য আমাদের জনগণের, সেই অধিকার আমরা রক্ষা করতে পারিনি।

নেতাকর্মীদের হতাশ না হওয়ার তাগিদ দিয়ে বিএনপির মহাসচিব বলেন, ‘কোনো স্বৈরাচার, একনায়ক দীর্ঘদিন টিকে থাকতে পারে না। তার পরাজয় হবে। পরাজিত হতেই হবে।’

‘আমরা জনগণকে সঙ্গে নিয়ে আছি। জনগণকে সঙ্গে নিয়ে এগিয়ে যেতে হবে। জনগণের শক্তির কাছে কোনো শক্তি টিকতে পারে না। সেই শক্তি অর্জন করতে হবে আমাদের। আমরা সঠিক পথে আছি। আমরা গণতন্ত্র  ও জনগণের অধিকার চাই। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে চাই।’

ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের ইতিবাচক সম্পর্কের সুবিধা শুধু ভারত পাচ্ছে বলে বর্ণনা করেন মির্জা ফখরুল। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্ধৃতি দিয়ে তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী বলছেন ভারতের সঙ্গে সম্পর্ক নাকি এখন সবচাইতে ভালো। তাহলে আমরা তিস্তার পানি পাই না কেন। ভারত ট্রানজিট পেয়েছে। অন্যান্য ব্যবসার সুবিধা পেয়েছে। তিস্তাসহ অভিন্ন নদীগুলোর পানির হিস্যার যে সমস্যা সেটা তো সমাধান হচ্ছে না। আমার দেশের মানুষ বিশেষ করে শিক্ষিত যুবকেরা কাজ পায় না। ভারত আমার দেশ থেকে ১০ বিলিয়ন ডলার রেমিট্যান্স নিয়ে যায়।’

সরকারকে উদ্দেশ করে বিএনপির মহাসচিব বলেন, ‘মেগা প্রজেক্টের টাকা তোলার জন্য সাধারণ মানুষের পকেট কেটে নিচ্ছেন। নিজেদের পকেট ভারি করছেন। ঋণের বোঝা বাড়ছে জনগণের কাঁধে।’ কৃষকের ধানের দামের ব্যাপারে সরকারের কোনো খেয়াল নেই বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

বর্তমান সরকার মুখে উন্নয়ন বললেও সাধারণ মানুষের উন্নয়ন হয়নি মন্তব্য করে বিএনপির নেতা বলেন, ‘উন্নয়ন হয়েছে গুটিকয়েক মানুষের। এটা আমাদের কথা নয়, অর্থনীতিবিদরা এ কথা বলছেন। বৈষম্য বেড়ে গেছে। বিশে^ বাংলাদেশে নাকি বড়লোকের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি বাড়ছে।’

রুহিয়া থানা বিএনপির আহবায়ক আনছারুল হকের সভাপতিত্বে সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির সভাপতি তৈমুর রহমান, ঠাকুরগাঁও পৌরসভার মেয়র মির্জা ফয়সাল আমিন, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল, রুহিয়া ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মালেক মানিক প্রমুখ।

(ঢাকাটাইমস/১৬জুন/মোআ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :