সব বিমানবন্দরে ‘ডগস্কোয়াড’ রাখার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৮ জুন ২০১৯, ১৭:৩০ | প্রকাশিত : ১৮ জুন ২০১৯, ১৭:১৭

দেশের আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরসমূহের নিরাপত্তা ব্যবস্থার উন্নয়নে ‘ডগস্কোয়াড’ ইউনিট রাখার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আজ মঙ্গলবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী (একনেক) কমিটির বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী এ নির্দেশ ন। একনেক চেয়ারপারসন প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে মঙ্গলবার শেরেবাংলা নগরে অবস্থিত এনইসি সম্মেলন কক্ষে এ সভা হয়।

সভা-পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীর এ নির্দেশ গণমাধ্যমের সামনে তুলে ধরেন পরিকল্পনা বিভাগের সচিব মো. নূরুল আমিন।

সচিব বলেন, প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ‘কুকুরের ঘ্রাণশক্তি অত্যন্ত প্রবল। বিমানবন্দরে পৃথিবীর অনেক দেশে ডগ স্কোয়াড ইউনিট আছে। আমাদেরও করতে হবে। বিমানবন্দরে অধিকতর নিরাপত্তার জন্য ডগ স্কোয়াড ইউনিট প্রয়োজন।’

সভায় বিমানবন্দরসমূহের নিরাপত্তা প্রকল্পসহ মোট ১১টি প্রকল্পের অনুমোদন দেয় জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক)।

বৈঠক শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান সাংবাদিকদের জানান, প্রকল্পগুলোয় ব্যয় হবে আট হাজার ৫৩ কোটি টাকা।

এর মধ্যে বিমানবন্দরের নিরাপত্তা ব্যবস্থার উন্নয়ন প্রকল্পে ব্যয় ধরা হয়েছে ৬০ কোটি টাকা।

৮ হাজার ৫৩ কোটি টাকার মধ্যে জিওবি প্রায় ৩ হাজার ৩৮৯ কোটি টাকা, সংস্থার নিজস্ব অর্থায়ন প্রায় ৫৫১ কোটি টাকা এবং প্রকল্প ঋণ ৪ হাজার ১১৩ কোটি টাকা প্রায়।

অনুমোদিত প্রকল্পসমূহ-

সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের-নেত্রকোনা-কেন্দুয়া-আঠারবাড়ী-ঈশ্বরগঞ্জ জেলা মহাসড়ক উন্নয়ন প্রকল্প, স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের বাংলাদেশের ৩০টি পৌরসভায় পানি সরবরাহ ও স্যানিটেশন  প্রকল্প, বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের- দেশের আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরসমূহের সিকিউরিটি ব্যবস্থার উন্নয়ন প্রকল্প, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের-ঢাকা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিকতর উন্নয়ন (প্রথম সংশোধনী) প্রকল্প, কৃষি মন্ত্রণালয়ের কুমিল্লা-চাঁদপুর-ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সেচ এলাকা উন্নয়ন, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের দুটি প্রকল্প যথাক্রমে, পোল্ট্রি গবেষণা ও উন্নয়ন জোরদারকরণ  প্রকল্প এবং প্রাণিসম্পদ উৎপাদন উপকরণ ও প্রাণিজাত খাদ্যের মান নিয়ন্ত্রণ গবেষণাগার স্থাপন (প্রথম সংশোদিত) প্রকল্প, বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের- খুলনা ৩৩০ মেগাওয়াট ডুয়েল ফুয়েল কম্বাইন্ড সাইকেল বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্প (প্রথম সংশোধিত), প্রকল্প এবং শিল্প মন্ত্রণালয়ের দুটি প্রকল্প যথাক্রমে- রাসায়নিক গুদাম নির্মাণ প্রকল্প এবং ও বিসিক বিসিক শিল্পপার্ক, টাঙ্গাইল (প্রথম সংশোধিত) প্রকল্প।

(ঢাকাটাইমস/১৮জুন/জেআর/ইএস)

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :