‘শিক্ষা খাতে বরাদ্দের নামে শুভঙ্করের ফাঁকি’

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১৮ জুন ২০১৯, ১৭:৪৫

২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটকে গতানুগতিক, ঋণনির্ভর ও ঘাটতির বাজেট। বলে মন্তব্য করেছেন গণতান্ত্রিক বাম ঐক্যের সমন্বয়ক ও বাংলাদেশ কমিউনিস্ট পার্টির (মার্কসবাদী) সাধারণ সম্পাদক কমরেড ডা. এম.এ সামাদ। বাজেটে শিক্ষা খাতে বরাদ্দের নামে শুভঙ্করের ফাঁকি দেয়া হয়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

মঙ্গলবার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এক সমাবেশ ও বিক্ষোভে অংশ নিয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

সভাপতির বক্তব্যে সামাদ বলেন, ‘শিক্ষা খাতে ১৬.৫ শতাংশ বরাদ্দ দেখানো হলেও বাস্তবে এটা সাধারণ শিক্ষা, কারিগরি শিক্ষা, মাদ্রাসা শিক্ষা, ক্যাডেট কলেজ, সামরিক শিক্ষা এবং ২৮ মন্ত্রণালয়ের ট্রেনিংকে যুক্ত করে দেখানো হয়েছে। এতে বরাদ্দ কিছুটা বাড়ানো হয়েছে বলে যে দাবি করা হচ্ছে তা শুভঙ্করের ফাঁকি।’

‘কৃষি খাতের যে বরাদ্দ তাও কৃষি, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ, ভূমি, বন ও পরিবশে, পানিসম্পদ এ ৫ মন্ত্রণালয়ের যৌথ বরাদ্দ।‘
সামাদ বলেন, ‘ঋণনির্ভর এ বাজেটে ঋণের সুদ পরিশোধ করতেই বাজেটের এক বড় অংশ চলে যাবে। ধনীকে আরও ধনী করার এবং গরিবকে আরও গরিব করার এ গণবিরোধী বাজেট প্রত্যাখ্যান করে জনগণের কল্যাণে বাজেট প্রণয়নের দাবি জানাই।’

সমাবেশে বক্তারা বলেন, ‘জনগণের ভোটে এই সংসদ নির্বাচিত হয়নি। তাই এই সংসদের বাজেট দেয়ার নৈতিক অধিকার নেই। ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট পূর্বের মতোই গতানুগতিক, ঋণনির্ভর ও ঘাটতি বাজেট।’
সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক কম. হারুন চৌধুরী, সমাজতান্ত্রিক মজদুর পার্টির সাধারণ সম্পাদক ডা. সামছুল আলম, জাতীয় বিপ্লবী পার্টির আহ্বায়ক আবুল কালাম আজাদ, কমিউনিস্ট পার্টি (মার্কসবাদী)’র কেন্দ্রীয় নেতা কমরেড সামসুল আলম সরকার, সাম্যবাদী দলের কেন্দ্রীয় সদস্য কমরেড আবু মাছুম, জাতীয় বিপ্লবী পার্টির কেন্দ্রীয় সদস্য অরবিন্দু বেপারীসহ কেন্দ্রীয় নেতারা।

(ঢাকাটাইমস/১৮জুন/কারই/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :