চুয়াডাঙ্গায় পূর্ববিরোধের জেরে কৃষককে পিটিয়ে হত্যা

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১৯ জুন ২০১৯, ২২:৪৭

চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার হাসনহাটি গ্রামে হেদায়েত মণ্ডল নামে এক কৃষককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। পূর্ববিরোধের জের ধরে বুধবার রাতে এ হামলা চালানো হয় বলে অভিযোগ নিহতের পরিবারের। এ ঘটনার পর ওই গ্রামে দুই পক্ষের মধ্যে তীব্র উত্তেজনা বিরাজ করছে।

নিহত হেদায়েত মণ্ডল হাসনহাটি গ্রামের মৃত পুটে মণ্ডলের ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার হাসনহাটি গ্রামে একটি ইটভাটা নির্মাণকে কেন্দ্র করে ওই গ্রামের হেদায়েত মণ্ডল ও কাদের আলীর মধ্যে বেশ কিছুদিন ধরে বিরোধ চলছিল। এই বিরোধের জের ধরে বুধবার রাতে হেদায়েত মণ্ডলের ছেলে আক্তারের সাথে কাদের আলীর ভাগ্নে শাহীনের কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে দুই পক্ষ জড়িয়ে পড়ে সংঘর্ষে। এ সময় ঘটনাস্থলেই লুটিয়ে পড়ে হেদায়েত মণ্ডল। তাকে দ্রুত উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক জাকির হোসেন তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ঘটনার বর্ণনা দিয়ে প্রত্যক্ষদর্শী মামুন জানায়, বুধবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে হেদায়েত মণ্ডলের ছেলে আক্তার মোটরসাইকেল নিয়ে গ্রামের তিন রাস্তার মোড়ে দাঁড়িয়ে ছিল। এ সময় পাশ দিয়ে ট্রাক্টর নিয়ে যাচ্ছিলেন কাদের আলীর ভাগ্নে শাহীন। এ সময় ট্রাক্টরের সাথে মোটরসাইকেলের ধাক্কা লাগলে আক্তার ক্ষিপ্ত হয়ে শাহীনকে চড় ধাপ্পড় মারেন। এরপর এ ঘটনাকে নিয়ে দুই পরিবার জড়িয়ে পড়ে সংঘর্ষে।

নিহতের ছেলে আক্তারের অভিযোগ, ট্রাক্টর দিয়ে চাপা দিয়ে আমাকে হত্যার চেষ্টা চালানো হয়েছিল। এর প্রতিবাদে আমি শাহীনকে ধাপ্পড় দিলে সে বাড়িতে গিয়ে তাদের পক্ষের ১০/১২ জনকে নিয়ে আমার ওপর হামলা করে। এ সময় আমার বাবা  (হেদায়েত মণ্ডল) তাদের নিবৃত করতে এগিয়ে আসলে তাকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করা হয়।

পরে স্থানীয়রা হেদায়েত আলী মণ্ডলকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেয়ার পথে তিনি মারা যান।

সদর থানার ওসি আবু জিহাদ ফকরুল আলম খাঁন জানান, ঘটনার পর হাসনহাটি গ্রামে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। একই সাথে হামলাকারীদের গ্রেপ্তারে পুলিশ অভিযান শুরু করেছে।

(ঢাকাটাইমস/১৯জুন/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :