স্যোসাল ইসলামী হাসপাতালে রোগীর নামে ভুয়া বিলের প্রমাণ পেল র‌্যাব

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২০ জুন ২০১৯, ২৩:২৭ | প্রকাশিত : ২০ জুন ২০১৯, ২৩:২২

রাজধানীর ধানমন্ডি গ্রিন রোডের স্যোসাল ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড হাসপাতালে রোগীর নামে ভুয়া বিল নিয়ে ঢাকাটাইমসে সংবাদ প্রকাশের পর এতে অভিযান চালিয়েছে র‌্যাব-২। অভিযানে ভুয়া বিল করার প্রমাণ পাওয়াসহ মেয়াদোত্তীর্ণ রি এজেন্ট জব্দ করেছে বাহিনীটি। এছাড়াও ভুক্তভোগী ওই রোগীর নামে হ্যান্ড গ্লাভস ব্যবহারের বিলও জব্দ করেছে র‌্যাব।

বৃহস্পতিবার রাতে এ অভিযান পরিচালনা করেন র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সরওয়ার আলম। রাত ১১টার সময়ও অভিযান চলছিল। হাসপাতালে বড় ধরনের অনিয়ম-প্রতারণার প্রমাণ পাওয়ার ব্যাপারে সরওয়ার আলম ঢাকাটাইমসকে বলেন, হাসপাতালটিকে এখনই কোনো সাজা দেয়া হবে না। বিষয়টি নিয়ে বড় ধরনের তদন্ত করে যথাযথ সাজার ব্যবস্থা করা হবে।

হার্টের রোগীকে খাওয়ানো হয়েছে দিনে ১১৯টি ট্যাবলেট! শিরোনামে ঢাকাটাইমসে প্রকাশিত ওই খবরে বলা হয়,  হার্টের সমস্যা নিয়ে ৫২ বছর বয়সী এক নারী ওই হাসপাতালে ভর্তি হন। তাকে সুস্থ করতে নয় দিন ধরে হাসপাতাল থেকে খাওয়ানো হয়েছে এক হাজার ৭৩টি ট্যাবলেট। গড়ে প্রতিদিন ১১৯টি করে। ওষুধ বাবদ রোগীর পরিবারকে বিল দেওয়া হয়েছে প্রায় ৫০ হাজার টাকার। তাছাড়া রোগীর শ্বাস-প্রশ্বাসে সমস্যা নেই হাসপাতাল থেকে জানানো হলেও অক্সিজেন বাবদ বিল করা হয়েছে ২০ হাজার টাকা! 

ওই রোগীর ছেলে শাকিল আহমেদ ঢাকাটাইমসকে বলেন, ‘৭ জুন আমার মায়ের হার্ট অ্যাটাক হয়। বেড ভাড়া পাঁচ হাজার আর ওষুধ বাবদ যা লাগে এমন চিন্তা করে মাকে ভর্তি করাই ওই হাসপাতালে। সেখানে ভর্তির পর মাকে কখনো আইসিইউ বা লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়নি বা কোনো অপারেশনও করা হয়নি। নয় দিন পর হাসপাতাল থেকে জানানো হয় আমার মাকে ১০৭৩ পিস ট্যাবলেট খাওয়ানো হয়েছে। এটা জেনে আমি বাইরে থেকে ওষুধ এনে খাওয়ানো শুরু করি।’

শাকিল বলেন, ‘তারা কী এমন চিকিৎসা করালো যে, প্রতিদিন ১০৯টি করে ট্যাবলেট আমার মাকে খাওয়ালো! এটা শুনে আমি অবাক হয়েছি। আমার পরিবারের কেউ মায়ের এত ওষুধ খাওয়ানো দেখেনি। হাসপাতাল থেকেই বলা হচ্ছিল আমার মায়ের শ্বাস-প্রশ্বাস ঠিক আছে। কিন্তু যখন বিল দেওয়া হয়েছে সেখানে অক্সিজেন বিল বাবদ ২০ হাজার টাকা ধরা হয়েছে।’  
হাসপাতালের বিল ভাউচারে দেখা যায়, নয় দিনে ১০৭৩ পিস ট্যাবলেট খাওয়ানো হয়েছে। এর বিল করা হয়েছে প্রায় ৪৯ হাজার ৩৪৫ টাকা। অক্সিজেন বাবদ ধরা হয়েছে ২০ হাজার ১০০ টাকা। সব মিলিয়ে বিল করা হয়েছে এক লাখ ৮৩ হাজার ৮৭৪ টাকা। এরমধ্যে এক লাখ ৩২ হাজার টাকা পরিশোধ করেছেন রোগীর স্বজনেরা।

ঢাকাটাইমস/২০জুন/ এসএস/ ইএস

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজধানী বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :