ঢাকা চিড়িয়াখানায় ব্যাপক অনিয়ম পেল দুদক

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২৫ জুন ২০১৯, ২৩:২৮

ঢাকা চিড়িয়াখানাসহ তিন জায়গায় অভিযান পরিচালনা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। এ সময় ব্যাপক অনিয়ম ও দুর্নীতির প্রমাণ পায় সংস্থাটি। অভিযান পরিচালনা করা অন্য দুই জায়গা হলো খাগড়াছড়ি পাসপোর্ট অফিস এবং দিনাজপুরের বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি।

মঙ্গলবার দুদকের পৃথক তিনটি দল এ অভিযান পরিচালনা করে। পরে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে তা জানায় সংস্থাটি।

ঢাকা চিড়িয়াখানা:

অব্যবস্থাপনা, অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগে ঢাকা চিড়িয়াখানায় অভিযান পরিচালনা করেছে দুদক। দুদক অভিযোগ কেন্দ্রে (হটলাইন- ১০৬) আগত এক অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে মিরপুরস্থ ঢাকা চিড়িয়াখানায় আজ (২৫/০৬/২০১৯ খ্রি.) এ অভিযান পরিচালিত হয়। টিম সরেজমিন অভিযানে দেখতে পায়, চিড়িয়াখানার ভেটেরিনারি হাসপাতালের জু-এনিম্যাল ল্যাবরেটরিতে অত্যাধুনিক মেশিনারিজ দীর্ঘদিন যাবত অব্যবহৃত ও পরিত্যক্ত অবস্থায় পরে আছে। তাছাড়া ল্যাবের যন্ত্রপাতি নোংরা ও বিকল অবস্থায় পরে আছে। যন্ত্রপাতি স্থাপনের পর এখানে কোন পশুর চিকিৎসা হয়েছে এমন কোন নজির সরেজমিনে দেখা যায়নি। এখানে একজন উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ও গবেষণা কর্মকর্তা কর্মরত থাকলেও প্রাণীদের বিষয়ে কোন গবেষণা কার্যক্রমের নমুনা পাওয়া যায়নি। পরীক্ষা না করেই পশুদের নিম্নমানের খাবার সরবরাহ করা হয় এমন প্রমাণ পায় দুদক টিম। কোন কোন ক্ষেত্রে খাবার পরিমাপ না করেই পরিমাণে কম সরবরাহ করা হচ্ছে এরূপ চিত্র ফুটে ওঠে।

চিড়িয়াখানায় কর্মরত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে হাজিরা দেওয়ার কথা থাকলেও তা যথানিয়মে অনুসৃত হচ্ছে না মর্মে দুদক টিমের নিকট প্রতীয়মান হয়। এছাড়া চিড়িয়াখানায় কর্মরত সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীর পরিচয়পত্র বহন করার নিয়ম থাকলেও দুদক টিম মাত্র একজন কর্মচারীকে পরিচয়পত্র পরিধান অবস্থায় পায়।

দুদক জানায়, সার্বিক বিবেচনায় উক্ত চিড়িয়াখানায় ব্যবস্থাপনায় ব্যাপক ঘাটতি রয়েছে এরূপ চিত্র ফুটে ওঠে। চিড়িয়াখানায় ওষুধ সরবরাহের রেজিস্ট্রারে গত তিন মাস যাবত সরবরাহকৃত ওষুধের বিবরণ নেই। চিড়িয়াখানা হতে আদৌ কোন ওষুধ সরবরাহ করা হয় কি-না বা প্রাপ্ত ওষুধ বাহিরে বিক্রি করে দেয়া হয় কি-না সে বিষয়ে বিস্তারিত অনুসন্ধানের অনুমোদন চেয়ে কমিশনে প্রতিবেদন পাঠিয়েছে দুদক টিম।

খাগড়াছড়ি পাসপোর্ট অফিস:

এছাড়া নানাবিধ অনিয়মের পরিপ্রেক্ষিতে খাগড়াছড়ি পাসপোর্ট অফিসে অভিযান পরিচালনা করেছে দুদক টিম। সমন্বিত জেলা কার্যালয়, রাঙ্গামাটি হতে আজ এ অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযানকালে পাসপোর্ট অফিসে ব্যাপক অব্যবস্থাপনার চিত্র ফুটে ওঠে। এছাড়া বেশ কিছু কর্মকর্তা-কর্মচারী দুর্নীতির সাথে প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে জড়িত এরূপ প্রমাণ পায় দুদক টিম। টিম পাসপোর্ট অফিসের কর্তৃপক্ষকে সকল অনিয়ম তাৎক্ষণিকভাবে দূরীকরণে পরামর্শ প্রদান করে এবং এবং দুর্নীতির সাথে জড়িত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বদলির বিষয়ে সুপারিশ প্রদান করে।

বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি

নানাবিধ অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে দিনাজপুরের বড়পুকুরিয়া কয়লা খনিতে অভিযান চালিয়েছে দুদক। সমন্বিত জেলা কার্যালয়, দিনাজপুর হতে গতকাল এ অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযান পরিচালনাকালে বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীর সাথে জিজ্ঞাসাবাদে দুদক টিম জানতে পারে, উক্ত কয়লা খনিতে ২০১৪-১৫ অর্থবছর হতে ২০১৬-১৭ অর্থবছর পর্যন্ত তিন মেয়াদে কোম্পানির সর্বমোট ৪ কোটিরও বেশি টাকা অবৈধভাবে আদায় করা হয়েছে। কোম্পানির ট্রাস্টি বোর্ডের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক ও মহাব্যবস্থাপক (অর্থ ও হিসাব) এ আত্মসাতের সাথে জড়িত মর্মে জানা যায়।

এছাড়াও উল্লিখিত কর্মকর্তারা বিভিন্ন দুর্নীতি ও অনিয়মের মাধ্যমে অর্থ উপার্জনের মাধ্যমে বিপুল পরিমাণ অবৈধ সম্পদের মালিক হয়েছেন এরূপ তথ্যও পায় দুদক টিম। এ সকল অনিয়মের বিষয়ে অনুসন্ধানের অনুমতি চেয়ে কমিশনে প্রতিবেদন পাঠিয়েছে অভিযান পরিচালনাকারী দুদক টিম।

ঢাকাটাইমস/২৫জুন/ ইএস

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজধানী বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :