অস্ত্রোপচারের পর আইসিইউতে কাজী ফিরোজ রশিদের পুত্রবধূ

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ০৮ জুলাই ২০১৯, ২০:৪৭

জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদের ছেলের স্ত্রী মেরিনা শোয়েব গুলিবিদ্ধ হয়ে ঢাকার ল্যাবএইড হাসপাতালে ভর্তি আছেন। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বলছে, পেছন থেকে গুলি লেগেছে মেরিনার। অস্ত্রোপচারের পর তাকে লাইফ-সাপোর্টে রাখা হয়েছিল। আর এখন আইসিইউতে রয়েছেন।

কাজী ফিরোজের পরিবারের দাবি, রবিবার দিবাগত রাতে বাসায় পিস্তল দিয়ে গুলি করে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন মেরিনা রশীদ। মেরিনার গুলি লেগেছে সামনে থেকে, পেটে। তবে তার পিঠে গুলির চিহ্ন রয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, তিনি নিজেই পিন্তল দিয়ে গুলি চালিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন। মেরিনার স্বামী কাজী শোয়েবের লাইসেন্স করা পিস্তল দিয়েই তিনি নিজের পেটে গুলি করেন।

মেরিনার বাবা সিরাজুল ইসলাম পাটোয়ারীর দাবি, দাম্পত্য কলহের কারণে এই ঘটনা ঘটতে পারে। তিনি বলেন, ‘আমার জামাই শোয়েব নাকি সে সময় বাড়িতে ছিল না। এখন বাকিটা আল্লাহ জানেন। আমার মেয়ের সঙ্গে নাকি তার ডিভোর্স হয়েছে। কিন্তু ডিভোর্স হওয়ার পরও কি কারও বউ এতদিন স্বামীর বাসায় থাকে?’

এদিকে মেরিনা রশীদের গুলিবিদ্ধ হওয়ার ঘটনায় সেই অস্ত্রটি উদ্ধার করা হলেও এই ঘটনায় সোমবার রাত আটটা পর্যন্ত কোনও মামলা হয়নি। আর কীভাবে তিনি গুলিবিদ্ধ হলেন সে বিষয়টি নিয়েও কেউ মুখ খুলছেন না। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে পিস্তলটি জব্দ করেছে।

হাসপাতালে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, মেরিনা রশীদের শারীরিক অবস্থা আগের চেয়ে ভালো। তিনি স্বাভাবিক ভাবে শ^াসপ্রশাস নিচ্ছেন। বর্তমানে তিনি ল্যাবএইড হাসপাতালের নিবিড় পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

ল্যাবএইড হাসপাতালের সহকারী ব্যবস্থাপক সাইফুর রহমান লেলিন ঢাকা টাইমসকে বলেন, ‘রবিবার রাতে মেরিনা রশীদের পরিবারের লোকজন আমাদের এখানে তাকে ভর্তি করেছেন। তার পিছন দিকে এক রাউন্ড গুলিবিদ্ধ দেখা গেছে। ওই সময় তিনি অচেতন অবস্থায় ছিলেন। পরে চার সদস্যের একটি মেডিকেল বোর্ড মিলে তার অস্ত্রোপচার করেন। তিনি এখন স্বাভাবিকভাবে শ^াসপ্রশ^াস নিচ্ছেন। দুুই তিনদিন দিন পর তার স্বাস্থ্যের অগ্রগতির ব্যাপারে বিস্তারিত বলা হবে।’

ধানমন্ডি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল লতিফ ঢাকা টাইমসকে বলেন, ‘খবর পেয়ে তাদের ধানমন্ডির বাসায় যায়। সেখানে পরিবারের লোকজনদের সাথে কথা বলেছি। তারা জানিয়েছেন, মেরিনা নিজেই গুলি চালিয়েছেন। তিনি এখন চিকিৎসাধীন। মেরিনা সুস্থ হওয়ার পরই তাকে জিজ্ঞাসাবাদে বিস্তারিত জানা যাবে।’

এ ঘটনায় মামলা হয়েছে কি না এমন প্রশ্নের জবাবে ওসি বলেন, ‘এ ঘটনায় মামলা নিলে তো আত্মহত্যার চেষ্টার মামলা নিতে হবে। এখন তিনি সুস্থ হলেই পরবর্তী করনীয় হবে।’

ঢাকাটাইমস/০৮জুলাই/এএ/ডিএম

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :