কেমন হবে ইমার্জেন্সি হ্যাম রেডিও স্টেশন?

আসাদুজ্জামান, S21LE
 | প্রকাশিত : ০৯ জুলাই ২০১৯, ১১:৪৭

দুর্যোগের সময় রাষ্ট্রের অঘোষিত দূতের ভূমিকা পালন করেন একজন হ্যাম বা অ্যামেচার রেডিও অপারেটর। দুর্যোগে প্রচলিত সব যোগাযোগ ব্যবস্থা যেমন, টেলিফোন, সেল্যুলার ফোন নেটওয়ার্ক বন্ধ থাকে। তখন যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যম হিসেবে কাজ করেন হ্যাম রেডিও অপারেটর। তাই তাকে সব সময় ইমার্জেন্সি স্টেশন পরিচালনা জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে।  এজন্য তাকে কিছু উপকরণ সঙ্গে রাখতে হবে, বা সংগ্রহে রাখতে হবে। 

বাংলাদেশের সিনিয়র হ্যাম বেলায়েত রবিন। যিনি বাংলাদেশি কল সাইন (S21RB) এবং অস্ট্রেলিয়ার কল সাইন (VK2VRB) হোল্ডার। তিনি ঢাকা টাইমসকে বলেন, দুযোর্গের সময় অ্যামেচার রেডিও স্টেশন অপারেটর করার মূল চ্যালেঞ্জটা হলো পাওয়ার সাপ্লাই। এজন্য একজন হ্যাম রেডিও অপারেটরকে সব সময় পাওয়ার সোর্সের জন্য ব্যাটারি ব্যাকআপ রাখা ভালো। এক্ষেত্রে ১২ ভোল্টের ব্যাটারি হলে ভালো হয়। এছাড়াও সোলার পাওয়ার কিট, বিভিন্ন ধরনের অ্যান্টেনা যেমন ইয়াগি, অমনি, গ্রাউন্ড প্লেইন, ডায়পোল এবং ৪০ মিটার অ্যান্টেনা থাকা উচিত। সঙ্গে ৫০ ওহমসের ক্যাবল, ক্যাবল কানেক্টর সঙ্গে রাখতে হবে। 

তিনি জানান, একজন হ্যাম রেডিও অপারেটরকে পোর্টেবল হতে হবে। অর্থাৎ তাকে দুর্যোগের সময় বিভিন্ন জায়গায়, তাৎক্ষণিক স্টেশনে সেটাপ করার দক্ষতা থাকা উচিত। এজন্য প্রথমেই যে চ্যালেঞ্জটা নিতে হয় সেটা হলো অ্যান্টেনা স্থাপন করা। এজন্য বিভিন্ন উচ্চতার মাস্ট বা বাঁশের প্রয়োজন হয়। দরকারি টুলসও তার সংগ্রহে থাকা ভালো।

দুর্যোগের বিকল্প শক্তির উৎস সম্পর্কে জানা এবং প্রয়োজনে সেগুলোর ব্যবহার সম্পর্কে হ্যাম রেডিও অপারেটরদের সজাগ থাকার পরামর্শ দিয়েছেন দেশের আরেক হ্যাম তানভীর হাসান (S21VU)। তিনি বলেন, দুর্যোগের সময় যেহেতু বিদ্যুৎ সংযোগ পাওয়া যাবে না বলে ধরে নেয়া হচ্ছে তখন হ্যাম রেডিও স্টেশন পরিচালনার জন্য সোলার কিট থাকা ভালো। এই সোলার কিট দিয়ে ব্যাটারি চার্জ করা এবং রেডিও সেট চার্জ করা যাবে। এজন্য যাবতীয় কানেক্টর সংগ্রহে রাখলে ভালো। 

তানভীর আরো বলেন, দুর্যোগের সময় আকাশের সূর্যের দেখা মেলে না। তখন সোলার প্যানেল থেকে প্রয়োজনীয় শক্তি পাওয়া যায় না। এই পরিস্থিতি মোকাবেলা করার জন্য ছোট আকারের উইন্ড মিল রাখা যেতে পারে। এছাড়াও হস্তচালিত ক্র্যাঙ্ক কেস বা হ্যান্ড পাওয়ারড জেনারেটর দিয়েও রেডিও অপারেটর করার জন্য প্রয়োজনীয় শক্তি মেলে। 

গণমাধ্যম কর্মী এবং নবীন হ্যাম আলাউদ্দিন আল আজাদ আলিফ (S21IG) বলেন, একজন হ্যাম দুর্যোগের সময় রেডিও মাধ্যমে কমিউনিকেশন বজায় রাখেন তাই তাকে একটি ব্যাকপ্যাকে প্রয়োজনীয়  সব উপকরণ সঙ্গে রাখতে হবে। এই ব্যাকপ্যাকের মধ্যে থাকতে পারে ওয়াকিটকি, বেজ রেডিও, ব্যাটারি
কম্পাস, টুল বক্স, সোলার সিস্টেম ইত্যাদি। 

আলিফ মনে করেন, বাংলাদেশ যেহেতু দুর্যোগপ্রবণ দেশ তাই একজন হ্যাম রেডিও অপারেটরকে দুর্যোগের সময় রেডিও নিয়ে সরকারি ও বেসরকারি সংস্থা এবং উদ্ধারকারী দলকে প্রয়োজনীয় সহযোগিতা করার জন্য মানসিকভাবে তৈরি থাকতে হবে। এজন্য তাকে সদাপ্রস্তুত থাকতে হবে। 

নূর আলম সিদ্দিকী (S21NO) নামের আরেক হ্যাম বলেন, দুর্যোগের সময় রেডিও নিয়ে উদ্ধারকাজে অংশ নেয়ার জন্য হ্যাম রেডিও অপারেটরদের স্টেশন যত ছোট হয় ততই ভালো। যাতে তিনি দ্রুত তার স্টেশন নিয়ে বিভিন্ন লোকেশনে ঘুরতে পারেন। 

কম্পিউটার প্রকৌশলী এবং হ্যাম মাহাবুবুর রহমান (S21CV) মনে করেন দুযোর্গের সময় একজন অ্যামেচার রেডিও অপারেটরের ব্যক্তিগত সুরক্ষাটা সবার আগে।  এ নিয়ে তার ভাষ্য, ‘হ্যাম রেডিও অপারেটরকে ব্যক্তিগত সুরক্ষার বিষয়টি মাথায় রাখতে হবে। ভ্রাম্যমান স্টেশন পরিচালনার সময় তার সঙ্গে সেফটি কিট যেমন, ফাস্ট এইড বক্স, হেলমেট, টর্চ লাইট, কম্পাস, ছুড়ি ইত্যাদি সঙ্গে রাখতে হবে।’

(ঢাকাটাইমস/৯জুলাই/এজেড)


 

সংবাদটি শেয়ার করুন

বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :