জম্মু-কাশ্মিরে আল কায়েদার ‘যুদ্ধ ঘোষণা’

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১০ জুলাই ২০১৯, ১৭:৪৮

আফগানিস্তানভিত্তিক জঙ্গি সংগঠন আল কায়েদার জম্মু-কাশ্মির সীমান্তে ভারতীয় সেনাদের বিরুদ্ধে সরাসরি ‘যুদ্ধ ঘোষণা’র খবর প্রকাশ হয়েছে।

‘ডোন্ট ফরগেট কাশ্মির’ নামক প্রকাশিত ভিডিওতে জঙ্গি গোষ্ঠীটির প্রধান আয়মান আল-জওয়াহিরি এ ঘোষণা দেন। ভিডিওতে ভারতীয় সেনা ও উপত্যকার সরকারের উপর জঙ্গিদের ‘আপসহীন আঘাত’ হানার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

দ্বিতীয় মেয়াদে ক্ষমতায় এসে নরেন্দ্র মোদি সরকার কাশ্মির ইস্যুতে কঠোর অবস্থান নিয়েছে। বিজেপি নেতা অমিত শাহ সন্ত্রাসের সাথে কোনও আপোস হবে না বলেও বার্তা দিয়েছেন। তারপরই উপত্যকায় বিচ্ছিন্নতাবাদীদের বাড়ি বাড়ি ব্যাপক ধরপাকড় চালানো হয়। তাদের আয়-ব্যয়ের উৎস নিয়েও তদন্ত শুরু হয়েছে।

চলতি বছরের শুরুতে সেনা অভিযানে উপত্যকার সন্দেহভাজন জঙ্গি নেতা জাকির মুসা সেনা মারা যান। তিনি আল-কায়েদার শাখা সংগঠন আনসার গাজওয়াত-উল-হিন্দের প্রধান ছিলেন বলে তথ্য আছে।

সরকারের এক কর্মকর্তা গণমাধ্যমকে বলেন, জঙ্গিদের মনোবল টিকিয়ে রাখার উদ্দেশ্যে আল-কায়েদা প্রধান ভিডিও প্রকাশ করেছে বলে তারা মনে করেন।

ভিডিওতে দেখা যায়, জওয়াহিরি সাদ পোশাক পরিহিত অবস্থায়। ডান দিকে আগ্নেয়াস্ত্র ও বা দিকে কোরান নিয়ে বক্তব্য দিচ্ছেন। তিনি বলেন, ‘আমার মতে, এই মুহূর্তে কাশ্মিরি মুজাহিদদের ভারতীয় সেনাবাহিনী ও রাজ্য সরকারের আপোসহীন নীতিতে আঘাত করা উচিত। ভারতের অর্থনৈতিক ব্যবস্থাকে ধ্বংস করে দিতে হবে। যেন সব ক্ষেত্রেই তারা মুখ থুবড়ে পড়ে।’

১৯৪৭ সালে ব্রিটিশ শাসন থেকে মুক্ত হয়ে ভারত ও পাকিস্তানের জন্ম হয়। তখন থেকেই কাশ্মির নিয়ে দুই দেশের মধ্যে বিরোধ। দুইবার যুদ্ধও করেছে দুই পক্ষ।

কাশ্মিরে কোনোভাবেই নিয়ন্ত্রণ হারাতে চায় না ভারত। সেখানে বিপুল সংখ্যক সেনা মোতায়েন করে রেখেছে তারা। তবে সশস্ত্র গোষ্ঠী তাদের তৎপরতাও অব্যাহত রেখেছে।

আল কায়দা প্রধান বলেন, ‘কাশ্মিরের লড়াই কোন বিচ্ছিন্ন লড়াই নয়। সমগ্র ভারতীয় সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে গোটা মুসলিম বিশ্বের মুসলিম সম্প্রদায়ের জিহাদ। সর্বত্র এই বার্তা পৌছানো উচিত।’

‘কাশ্মির, ফিলিপিনস, চেচনিয়া, মধ্য এশিয়া, সিরিয়া, আরব উপমহাদেশ, সোমালিয়া, ইসলামিক মাঘরেব (উত্তর আফ্রিকার মুসলিম দেশগুলি) ও তুর্কেস্তানে কাফেরদের বিতাড়ন পর্যন্ত তাদের জিহাদকে সমর্থন করা প্রত্যেক মুসলিমের নৈতিক দায়িত্বের ভেতর পড়ে।’

ভারত ও পাকিস্তান-দুই দেশকেই আমেরিকার দালাল বলেও কটাক্ষ করেন আল কায়দা প্রধান। পাকিস্তান সীমান্ত সন্ত্রাসের মাধ্যমে কাশ্মিরে সন্ত্রাসী কার্যকলাপ চালাচ্ছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

জাওয়াহিরি কাশ্মিরে মুজাহিদদের নাশকতায় উৎসাহ দিলেও মসজিদ, বাজার ও মুসলিম জনসমাগমের স্থানগুলো এড়িয়ে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন।

একবিংশ শতকের শুরুর দিকে আফগানিস্তানভিত্তিক জঙ্গি সংগঠন আল কায়দা বেশ তোলপাড় ফেলে। প্রায় দুই দশক ধরে যুক্তরাষ্ট্রের অভিযানেও তাদের শক্তি একেবারে নিঃশ্বেষ হয়ে যায়নি। তবে ইদানীং তাদেরকে নিয়ে আলোচনা আগের চেয়ে কমে এসেছে।

ঢাকাটাইমস/১০জুলাই/আরআর/ডব্লিউবি

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :