রোহিত-কোহলি দ্বন্দ্ব চরমে, ভারতীয় দলে প্রকাশ্যে বিভক্তি

ক্রীড়া ডেস্ক, ঢাকা টাইমস
 | প্রকাশিত : ১৩ জুলাই ২০১৯, ১২:৩০

ভারতীয় জাতীয় ক্রিকেট দলে অশান্তির চোরাস্রোত আগে থেকেই ছিল। বিশ্বকাপ সেমিফাইনালে হেরে যাওয়ার পর সেই অশান্তির চিত্র প্রকাশ্যে আসতে শুরু করেছে।

ভারতীয় কয়েকটি গণমাধ্যম জানিয়েছে, দলের মধ্যে দুটি গ্রুপ পরিষ্কার হয়ে গেছে। একটি অধিনায়ক বিরাট কোহলির গ্রুপ, অন্যটি সহ অধিনায়ক রোহিত শর্মার। কোহলির গ্রুপে রয়েছেন কোচ রবি শাস্ত্রীও।

একটি হিন্দি সংবাদপত্রের বরাত দিয়ে অন্যান্য গণমাধ্যম জানিয়েছে, ভারতীয় দলের এক সদস্য জানিয়েছেন, দলে এখন দুটো গোষ্ঠী রয়েছে।

বলা হচ্ছে, কোচ ও অধিনায়কই যাবতীয় সিদ্ধান্ত নেন। যেখানে রোহিতের মতামত চাওয়া হয় না। যা নিয়ে চটে আছেন রোহিত। যার সবচেয়ে বড় উদাহরণ বিশ্বকাপের দল নির্বাচনের সময় দেখা গেছে। যেখানে চার নম্বরে অম্বাতি রায়ডুর জায়গায় বিজয় শঙ্করকে নেওয়া হয়েছিল।

সবচেয়ে বড় কথা কোহলি সমর্থন পেয়ে যাচ্ছেন সুপ্রিম কোর্ট নিযুক্ত কমিটি অফ অ্যাডমিনিস্ট্রেটর্স এর প্রধান বিনোদ রাইয়ের। সেকারণেই নাকি কুম্বলেকে সরানো সহজ হয়ে গিয়েছিল কোহলির পক্ষে। একটি ঘটনায় কোহলির সঙ্গে মতের মিল না হওয়াতেই কোচের পদ থেকে সরে দাঁড়ান কুম্বলে।

ভারতীয় দলের অন্দরের খবর, কোহলির সবচেয়ে ঘনিষ্ঠ ক্রিকেটার লোকেশ রাহুল। তাই দল নির্বাচনে কোহলির পছন্দের ক্রিকেটাররা অগ্রাধিকার পান। চাহালও কোহলি ঘনিষ্ঠ। তাছাড়া খেলেন কোহলির আইপিএল দল রয়েল চ্যালেঞ্জারস ব্যাঙ্গালুরুতে। তাই একজন রিস্ট স্পিনারের দরকার পড়লে চাহালই প্রথম পছন্দ হয়ে যায়। বাদ পড়তে হয় কুলদীপকে। ঠিক তেমনি রাহুলও ব্যর্থ হলেও সুযোগ পেয়ে যান।

অন্যদিকে রোহিত গোষ্ঠীর একনম্বর লোক বুমরা। কিন্তু বুমরা কিংবা রোহিতের পারফরম্যান্স এতটাই ভাল যে দুই ক্রিকেটারকে বাদ দেওয়ার সাহস কোহলি কিংবা শাস্ত্রীর নেই।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফর পর্যন্ত মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে, শাস্ত্রী, ভরত অরুণ এবং সঞ্জয় বাঙ্গারের। তারপর ফের কোচ নির্বাচন হবে। কোহলি চাইবেন শাস্ত্রী থেকে যান। আবার বাকি ক্রিকেটারদের অনেকেই শাস্ত্রী ও বোলিং কোচ ভরত অরুণের ওপর ক্ষিপ্ত। মুখ খুলতে ভয় পান। পাছে দল থেকে বাদ পড়তে হয়। টিম ইন্ডিয়ার একাধিক ক্রিকেটার চাইছেন, শাস্ত্রী ও অরুণের যেন মেয়াদ না বাড়ানো হয়। এরা থাকলে কোহলি নিজের পছন্দমত দল চালাবেন।

কোহলি আর রোহিতের দ্বন্দ্ব শুধুমাত্র খেলার মাঠ ও ড্রেসিংরুমে সীমাবদ্ধ নেই। তা ছড়িয়ে পড়েছে দুই পরিবারের মধ্যেও। সম্প্রতি বিশ্বকাপের এক ম্যাচে একই গ্যালারিতে বসেছিলেন রোহিতের স্ত্রী ঋতিকা ও কোহলির স্ত্রী আনুশকা। তবে কেউ কারো সঙ্গে কথা বলেননি এমনকি সামান্য সৌজন্যতাও দেখাননি।

ঢাকা টাইমস/১৩জুলাই/একে

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

খেলাধুলা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :