নোবেলের বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ

বিনোদন প্রতিবেদক
 | প্রকাশিত : ১৬ জুলাই ২০১৯, ১০:২৪

ভারতীয় টিভি চ্যানেল জি বাংলায় অনুষ্ঠিত সংগীত বিষয়ক রিয়েলিটি শো ‘ সা রে গা মা পা’ প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে এপার-ওপার দুই বাংলায় ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেয়েছেন গোপালগঞ্জের ছেলে মাঈনুল আহসান নোবেল। সেই জনপ্রিয়তার জেরে ইতোমধ্যে প্লেব্যাক সিংগার হিসেবে তার চলচ্চিত্রেও অভিষেক হয়েছে। কিন্তু তার বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ তুলেছেন দেশের নামকরা গীতিকার ও সুরকার প্রিন্স মাহমুদ।  

‘সা রে গা মা পা’ অনুষ্ঠানে প্রিন্স মাহমুদের কথা ও সুরে জেমসের গাওয়া ‘বাবা’ গানটি গেয়ে ব্যাপক প্রশংসিত হয়েছিলেন নোবেল। কিন্তু সে সময় একবারও তিনি গানটির শ্রষ্ঠা প্রিন্স মাহমুদের নাম বলেননি! এ কারণে সে সময় নোবেল বেশ সমালোচিত হয়েছিলেন। পরে অবশ্য ক্ষমা চেয়ে নেন।

কিন্তু তারপরও নিজেকে শুধরে নেননি নোবেল! একই ভুল তিনি তিনবার করেছেন। ‘বাবা’ গানটির পরে একই অনুষ্ঠানে তিনি প্রিন্স মাহমুদের কথা ও সুরের ‘মা’ এবং ‘এত কষ্ট কেন ভালবাসায়’ গান দুটিও গেয়েছেন। তবে এবারও তিনি গীতিকার বা সুরকার হিসেবে প্রিন্স মাহমুদের নাম বলেননি! বরং তিনি হাসানের আর্ক ব্যান্ডের কথা বলেন।

নোবেলের এমন আচরণে ক্ষেপেছেন গীতকার ও সুরকার প্রিন্স মাহমুদ। নোবেলের ওপর ক্ষোভ উগরে সম্প্রতি ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন তিনি। সেখানে লিখেছেন, ‘সরি, ‘এত কষ্ট কেন ভালোবাসায়’ গানটি আর্ক ব্যান্ডের না। এটা ১৯৯৮ সালে রিলিজ হওয়া আমার কথা ও সুরের মিক্সড অ্যালবাম ‘শেষ দেখা’-তে হাসান গেয়েছিল।’

‘সা রে গা মা পা’র অনুষ্ঠানে তার শ্রষ্ঠ গান গেয়ে নাম উল্লেখ না করায় প্রিন্স মাহমুদ বলেন, ‘নোবেল একই ভুল বারবার করেছে। একই ভুল একাধিকবার করলে সেটা আর ভুল থাকে না, অপরাধের পর্যায়ে চলে যায়। এটা একজন মানুষের সৃষ্টিকে অপমান করা। যেটা নোবেলের মতো নবীন অবুঝেরা বুঝতে পারবে না।’

বাংলা ব্যান্ড সংগীতের প্রখ্যাত এ গীতিকার ও সুরকার বলেন, ‘জি বাংলায় নোবেল যা যা বলেছে, সেটাই প্রচার করেছে কর্তৃপক্ষ। কিছুই বাদ দেয়া হয়নি। তার মানে নোবেল ইচ্ছা করেই এমনটা করেছে। আমার করা গান যেকেউ গাইতে পারে, কোনো সমস্যা নেই। তবে বাণিজ্যিক ব্যবহারের জন্য অনুমতি নিতে হবে। যথাযথ নিয়ম মানতে হবে।’

এদিকে একই ভুল বারবার করায় সোশ্যাল মিডিয়ায় নোবেলের সমালোচনা করেছেন তার অনেক ভক্তরাও। কেউ কেউ আবার নোবেলকে ধূর্ত বলেও অভিহিত করেছেন। অন্যদিকে আগামী ২৮ জুলাই অনুষ্ঠিত হবে নোবেলের ‘সা রে গা মা পা’ রিয়েলিটি শোয়ের গ্র্যান্ড ফিনালে। ওইদিন আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করা হবে প্রতিযোগিতার ফলাফল।

যদিও গত ২৯ জুন কলকাতার বিশ্ব বাংলা কনভেনশন সেন্টারে প্রাথমিক ফলাফল ঘোষণা হয়ে গেছে। সেখানে চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন ভারতের প্রতিযোগী অঙ্কিতা। যৌথভাবে প্রথম রানারআপ হয়েছেন গৌরব সরকার ও স্নিগ্ধজিৎ। শোয়ের অন্যতম আরেক প্রতিযোগী প্রীতমের সঙ্গে যৌথভাবে তৃতীয় রানারআপ হয়েছেন নোবেল।  এই ফলাফলই আনুষ্ঠানিকভাবে জানানো হবে ২৮ জুলাই।

জি বাংলায় ‘সা রে গা মা পা ২০১৮-১৯’ শুরু হয়েছিল গত বছরের সেপ্টেম্বরে। সেখানে ভারত থেকে নির্বাচিত ৪৮ জন প্রতিযোগী অংশ নেন। বাংলাদেশ থেকে অংশগ্রহণ করেন অবন্তি সিঁথি, তানজীম শরীফ, রোমানা ইতি, মেজবা বাপ্পী, আতিয়া আনিসা, মন্টি সিনহা ও মাঈনুল আহসান নোবেল। বাকিরা নানা ধাপে ছিটকে গেলেও নোবেল জায়গা করে নেন চূড়ান্ত পর্বে।

ঢাকাটাইমস/১৬ জুলাই/এএইচ

সংবাদটি শেয়ার করুন

বিনোদন বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :