উস্কানিমূলক পোস্ট: হিন্দু ছাত্রীকে কোরান বিলির আদেশ আদালতের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৭ জুলাই ২০১৯, ২০:২৯ | প্রকাশিত : ১৭ জুলাই ২০১৯, ১৯:২৬

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ধর্মীয় উস্কানিমূলক পোস্টের অভিযোগে দায়ের করা মামলার রায়ে ভারতের ঝাড়খণ্ডে এক হিন্দু ছাত্রীকে পাঁচটি কোরান বিলির আদেশ দিয়েছেন আদালত। জামিনের শর্ত হিসেবে রিচা প্যাটেল নামক ওই কলেজছাত্রীকে অভিনব এ আদেশ দেয়া হয়। এ রায়ের কারণে হিন্দুত্ববাদী সংগঠনগুলো বিক্ষোভ প্রদর্শন করেছে।

ভারতে ইন্ডিয়া টাইমসের খবরে বলা হয়, ঝাড়খণ্ডে মুসলমানদের একটি সামাজিক সংগঠন `আঞ্জুমান ইসলামিয়া‘-র প্রধান মনসুর খলিফা পুলিশের কাছে রিচা প্যাটেলের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন। তিনি অভিযোগে বলেন, ফেসবুক ও হোয়াটঅ্যাপসের মাধ্যমে রিচা প্যাটেল মুসলমানদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হেনেছেন। রিচা প্যাটেলের পোস্টের কারণে হিন্দু ও মুসলমান ধর্মাবলম্বীদের মাঝে সাম্প্রদায়িক সম্প্রতি বিনষ্টের আশঙ্ক্ষা প্রকাশ করেন।  

অভিযোগের দায়েরের পর গত ১২ জুলাই শুক্রবার সন্ধ্যায় পুলিশ রিচা প্যাটেলকে গ্রেপ্তার করে জেল হাজতে পাঠায়।

রিচা প্যাটেল মুক্তির জন্য রাজ্যের আদালতে জামিনের আবেদন করেন। পরে মঙ্গলবার আদালত রিচা প্যাটেলকে একটি কোরান আঞ্জুমান ইসলামিয়া কমিটি ও চারটি কোরান মুসলমানদের বিভিন্ন স্কুল, কলেজে বিতরণের আদেশ দেন। আর কোরান শরীফ প্রাপ্তির রশিদ আদালতে জমা দেওয়ার নির্দেশ দেন।

স্থানীয় একটি কলেজের বি. কমের ছাত্রী রিচা প্যাটেল ভারতের জি নিউজকে আদালতের আদেশের প্রতিক্রিয়ায় বলেন, ‘তিনি কোরান বিলি করবেন না। মুসলমান ধর্মাবলম্বীদের প্রতি তার কোনো ঘৃণা নাই। দেবতা রামের মতো আল্লাহর ওপর তার সম্পূর্ণ শ্রদ্ধা আছে। নির্দিষ্ট কোন ধর্মাবলম্বীদের আঘাত দেওয়ার উদ্দেশ্যে ফেসবুকে পোস্ট করেননি।’

তার দাবি, ফেসবুকে ‘নরেন্দ্র মোদী ফ্যানস ক্লাব’ নামক একটি গ্রুপ থেকে তিনি পোস্টটি কপি করেছিলেন।

তার পরিবার জানায়, আদালতের আদেশের প্রতি তাদের শতভাগ শ্রদ্ধা আছে। আদালতের কোরান বিতরণের সিদ্ধান্তে তারা মর্মাহত। আদালত সঠিক রায় দেননি বলে তারা মনে করেন। আদালতের আদেশের প্রতিক্রিয়ায় তারা আইনি পরামর্শ গ্রহণ করবেন। আদালতের আদেশের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে উচ্চ আদালতে আবেদন করবেন।

রিচা প্যাটেল বিবিসিকে বলেন, একটা ফেসবুক পোস্টের জন্য অন্য ধর্মের একটি সংগঠনে গিয়ে কোরান বিলি করার নির্দেশে আমার খুবই অস্বস্তি হচ্ছে। ‘তিনি প্রশ্ন করেন, ‘ফেসবুকে আমি আমার নিজের ধর্ম নিয়ে কিছু লিখতে পারবো না? এ কোথাকার নিয়ম? তার জন্য আমার মতো একজন কলেজ ছাত্রীকে গ্রেপ্তার করা হবে? আদালতের নির্দেশকে সম্মান জানিয়েও বলতে বাধ্য হচ্ছি, এটা তো আমার মৌলিক অধিকার হরণ করা হচ্ছে।’

এদিকে বুধবার আঞ্জুমান ইসলামিয়ার প্রধান মনসুর খলিফা জানান, আদালতের নির্দেশ অনুযায়ী এখনও কোরানের পাঁচটি কপি পাননি।

আইনজীবী জেনারেল অজিত কুমার আদালতের রায়কে সমর্থন করে বক্তব্য দেন। তিনি বলেন, ‘আদালতের রায় সঠিক। যারা আদালতের রায়ের বিরোধিতা করছে, তাদের রায়ের গুরুত্ব বোঝার পরামর্শ দেন। সমাজে অসাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখা প্রত্যেকের দায়িত্ব। অসাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি টিকিয়ে রাখার উদ্দেশ্যেই আদালত রিচা প্যাটেলকে কোরান বিতারণের আদেশ দিয়েছেন। কোরান বিতরণের মাধ্যমে রিচা প্যাটেল কোরান সম্পর্কে আরো বেশি জানতে পারবে। আর ভবিষ্যতে কোন সাম্প্রদায়িক পোস্ট দেওয়া থেকে বিরত থাকবে।

পুলিশ কর্তৃক রিচা প্যাটেলকে গ্রেপ্তারের খবরে ঝাড়খন্ডের রাজধানী রাঁচিসহ অন্যান্য অঞ্চলে ভারতীয় হিন্দুত্ববাদী সংগঠনগুলো বিক্ষোভ প্রদর্শন করেছে।

ক্ষমতাসীন বিজেপির ঝাড়খণ্ডের মুখপাত্র প্রাতুল শাহাদেব বলেন, রিচা প্যাটেলের ঘটনায় আদালতের রায়ে আমরা বিস্মিত। আদালত কর্তৃক এ ধরনের রায়ের কথা আমরা অতীতে কখনো শুনিনি।

ঢাকাটাইমস/১৭জুলাই/আরআর/ইএস

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :