ট্যাংক আটক : ইরানকে জার্মানি ও ফ্রান্সের চাপ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২০ জুলাই ২০১৯, ১৯:৩১

ব্রিটিশ পতাকাবাহী ট্যাংক আটকের ঘটনায় সৃষ্ট উত্তেজনা নিরসনে জার্মানি ও ফ্রান্স ইরানকে চাপ দিয়েছে।
শুক্রবার রাতে স্টেনা টেমপেরো নামের ওই ট্যাংকার আটকের খবর প্রকাশ করে আইআরজিসি। এরপর রাতেই ব্রিটিশ মন্ত্রিসভা জরুরি বৈঠকে বসে। বৈঠক শেষে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ইরানের এই অগ্রহণযোগ্য কার্যকলাপের ব্যাপারে সরকার গভীরভাবে উদ্বিগ্ন। আন্তর্জাতিক নৌ চলাচলের স্বাধীনতার প্রতি এটা সুস্পষ্ট চ্যালেঞ্জ। লন্ডন এ ব্যাপারে আরো বেশি তথ্য সংগ্রহ ও গোটা পরিস্থিতি মূল্যায়ন করার চেষ্টা করছে। সাময়িকভাবে ওই এলাকা এড়িয়ে চলার জন্য যুক্তরাজ্যের নৌযানগুলোকে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

এদিকে ব্রিটেনের পররাষ্ট্র সচিব জেরেমি হান্ট বলেন,‘ব্রিটেন সামরিক পদক্ষপের পরিবর্তে কূটনৈতিক ভাবে উত্তেজনা নিরসনের চেষ্টা করছে।’
ট্যাংকার আটকের ঘটনায় ওয়াশিংটন ইরানকে দোষারোপ করছে। এক বিবৃতিতে ওয়াশিংটন জানায়, ব্রিটিশ পতাকাবাহী ট্যাংকে ইরান অবিরত হামলা চালিয়েছে।

এএফপি তাদের এক অনলাইন প্রতিবেদনে জানায়, জব্দ ট্যাংকে মোট ২৩ জন ছিল। এদের মধ্যে ১৮ জন ভারতীয়, ৩ জন রাশিয়ান, ১ জন লাতভিয়ান, ১ জন ফিলিপাইনের নাগরিক রয়েছে। ফিলিপাইন ও ভারত সরকার নিজেদের নাগরিকদের মুক্ত করতে তেহরানের সাথে যোগাযোগ করছে।

আইআরজিসি জানিয়েছে, যে ব্রিটিশ পতাকাবাহী ট্যাংকারটি আটক করা হয়েছে সেটি তিনটি আইন লঙ্ঘন করেছে। ১. এটি আন্তর্জাতিক পানিসীমা থেকে ইরানের পানিসীমায় ঢুকে পড়েছিল। ২. নিজেকে শনাক্তকরণ যন্ত্রপাতি (জিপিএস) বন্ধ করে রেখেছিল। ৩. আইআরজিসি’র পক্ষ থেকে বারবার সতর্ক করা হলেও তাতে ভ্রুক্ষেপ করেনি।

বিবৃতিতে আরো বলা হয়েছে, তেল ট্যাংকারটি আটক করে ইরানের উপকূলে নিয়ে আসা হয়েছে এবং আইনগত বিষয়গুলো খতিয়ে দেখার জন্য এটিকে হরমুজগান প্রদেশের বন্দর ও নৌচলাচল বিষয়ক সংস্থার কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

আইআরজিসির বরাতে ইরানে আধা সরকারি বার্তা সংস্থা দ্য তাসনিম জানায়, ব্রিটিশ তেলবাহী ট্যাংকার স্টেনা ইমপেরো সমস্যা করছিল বলে তথ্য ছিল ইরানের বন্দর ও উপকূলবর্তী সংস্থার কাছে। পরে বিষয়টি আইআরজিসিকে অবহিত করা হলে তারা পদক্ষেপ নেয়।


ঢাকাটাইমস/২০জুলাই/আরআর

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :