বন্যার্তদের পাশে কবি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়

জাককানইবি প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২৩ জুলাই ২০১৯, ০৯:১২

কয়েকদিনের টানা বৃষ্টি ও পাহাড়ি ফলে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়। বিশুদ্ধ পানি ও খাবার সংকটে থাকা বন্যা কবলিত এলাকায় অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ নানা সংগঠন।

‘বন্যার্তদের পাশে কবি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়’ স্লোগানকে সামনে রেখে গত ২২ এপ্রিল আইন ও বিচার বিভাগের উদ্যোগে জামালপুরের ইসলামপুরে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করা হয়। এ সময় বন্যার্ত চার শতাধিক পরিবারকে শুকনো চিড়া, গুড়, কলা, স্যালাইন, বিস্কুট, মোমবাতি, মেস, পানি বিশুদ্ধকরণের জন্য ফিটকিরি ও পানিবাহিত রোগের ওষুধ দেয়া হয়।

এছাড়া বন্যায় দুর্গত মানুষকে সহায়তা করার জন্য বিভিন্ন ধরনের উদ্যোগ নিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়টির বিভিন্ন সংগঠন। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন ভবনের সামনে “বানভাসি” নামে একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

বন্যার্তদের সাহায্য করার জন্য জাককানইবি উদীচী শিল্পী সংসদ আগামী ২৪ ও ২৫ জুলাই বিশ্ববিদ্যালয়ের কনফারেন্স হলে আয়োজন করেছে ডকুমেন্টারি ও চলচ্চিত্র প্রদর্শনী। এছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগ থেকে বন্যার্তদের সাহায্য করার জন্য ময়মনসিংহ, ত্রিশাল, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ও জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন স্থান থেকে এই ত্রাণসামগ্রীর টাকা সংগ্রহের কাজ করছে স্বেচ্ছাসেবী শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

লোকপ্রশাসন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সঞ্জয় কুমার জানান, ‘সামাজিক দায়বদ্ধতার জায়গা থেকেই এমন উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। আসলে এত বেশি মানুষ বন্যার কারণে দুর্ভোগের মধ্যে আছে যে, তাদের অনেক বড় সহায়তা প্রয়োজন। তাই চেষ্টা করছি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদেরকেও এ বিষয়ে সংযুক্ত করতে। যাতে অনেক মানুষকে সহায়তা করা সম্ভব হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু-নীলদলের সভাপতি ড. সিদ্ধার্থ দে জানান, বন্যা দুর্গতদের অর্থ সংগ্রহ করে সাহায্য করার জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের চারটি অনুষদের আমরা শিক্ষক প্রতিনিধিদের দায়িত্ব দিয়েছি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন স্থানে বন্যাদুর্গত এলাকার মানুষদের পাশে দাঁড়াতে সাহায্যের বক্স হাতে নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়সহ নগরীর বিভিন্ন এলাকায় দিনরাত অর্থ সংগ্রহের কাজ করছেন শিক্ষার্থীরা। এ কাজে এগিয়ে এসেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন, জেলা ছাত্র কল্যাণ সংগঠন সহ বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

স্বেচ্ছাসেবী শিক্ষার্থীরা জানান, মানুষ মানুষের জন্য, জীবন জীবনের জন্য। মানুষের বিপদে মানুষই পাশে দাঁড়ায়। এ দায়িত্ববোধ থেকে বানভাসি মানুষের জন্য কিছু করার চেষ্টা করেছি। একদিনের জন্য তাদের মুখে খাবার দিয়ে তাদের মুখের সামান্য হাসি ফিরিয়ে আনার প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।

শিক্ষার্থীদের এ উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোস্তাফিজুর রহমান জানান, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা শুধু পড়াশুনার মধ্যেই আটকে থাকবে না। তাদের সামাজিক দায়িত্বও পালন করতে হবে। দেশের মানুষ যখন দুর্ভোগের মধ্যে আছে তখন তাদের পাশে দাঁড়ানো সেই দায়িত্বর মধ্যেই পড়ে। সেই জায়গা থেকেই শিক্ষার্থীরা এগিয়ে এসেছে। একজন শিক্ষার্থী যখন সামাজিক দায়িত্ব নেয়া শিখবে, যখন তার মাঝে মনুষ্যত্ববোধ কাজ করবে তাই শিক্ষার্থীদের এই উদ্যোগ বন্যার্তদের সহযোগিতা করবে । সকলকে আহবান জানাই বন্যার্তদের পাশে এগিয়ে আসুন।

ঢাকাটাইমস/২৩জুলাই/প্রতিনিধি/এমআর

সংবাদটি শেয়ার করুন

শিক্ষা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :