ফরিদপুরে জোড়া খুনের বিচারের দাবি

ফরিদপুর প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১৯ আগস্ট ২০১৯, ২০:২৬

ফরিদপুরের নগরকান্দা উপজেলার কাইচাইল ইউনিয়নে প্রতিপক্ষের গুলিতে নিহত রওশন আলী ও মিরাজুল ইসলাম তুহিনের হত্যাকারীদের বিচারের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছে তার পরিবার।
সোমবার বেলা ১১টায় ফরিদপুর প্রেসক্লাবে এ সংবাদ সম্মেলন হয়।

সংবাদ সম্মেলনে নিহতের স্বজন কাইচাইল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও কাইচাইল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কবির হোসেন ঠান্ডু মাস্টার বলেন, ‘২০১৬ সালে ৪ জুন চেয়ারম্যান নির্বাচিত হই। নির্বাচনের সময় হানিফ, হাসান গং আমার বিরোধিতা করে। তারপর থেকে হানিফ, হাসান গং আমাকে ও আমার পরিবারকে বিভিন্নভাবে হয়রানি করে আসছিল।

এরই প্রেক্ষিতে ২০১৭ সালের ২০ সেপ্টেম্বর আমাকে ও আমার পরিবারের নামে একটি মিথ্যা হত্যা মামলা দিয়ে ফাঁসানোর চেষ্টা করে তারা। মামলাটি ইতোমধ্যে তদন্তপূর্বক মিথ্যা প্রমাণিত হয়েছে। আর সে কারণেই হানিফ, হাসান গং আরও বেশি হিংসাপরায়ণ হয়ে ওঠে।
এরই ধারাবাহিকতায় পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী গত ১০ আগস্ট আমাদের পরিবারের ওপর বর্বরোচিত হামলা চালায় তারা। হামলায় আমার ছোট চাচা ব্যাংকার রওশন আলী ও চাচাতো ভাই বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র মিরাজুল ইসলাম ঘটনাস্থলেই মারা যায়। আহত হয় আমার পরিবারের আরও ১০ জন।’

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন নিহত তুহিনের বোন ড. আসমা শহীদ। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘পরিকল্পিতভাবে হানিফ, হাসান গং গুলি চালিয়ে দুইজনকে হত্যা করে এবং আহত করে আরও আটজনকে। আহতরা বর্তমানে ঢাকাসহ ফরিদপুরের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছে।’

প্রসঙ্গত, গত ১০ আগস্ট পূর্বশক্রতার জের ধরে প্রতিপক্ষের গুলিতে ফরিদপুর অগ্রণী ব্যাংক হাজী শরীয়তুল্লাহ বাজার শাখার অফিসার রওশন আলী ও মিরাজুল ইসলাম তুহিন মিয়া নিহত হন। এ ঘটনা আহত হন আরও ১০ জন। নিহতের ঘটনায় ১১ আগস্ট নিহত রওশনের ভাই ও নিহত তুহিনের পিতা রায়হান উদ্দিন মিয়া ২১ জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা করেন। এ ঘটনায় পুলিশ মূল আসামি হানিফসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করেছে।

(ঢাকাটাইমস/১৯আগস্ট/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :