কাশ্মীর নিয়ে মোদির কড়া সমালোচনায় ভারতের কমিউনিস্ট পার্টি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২১ আগস্ট ২০১৯, ২১:৩৫

ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার কাশ্মীরকে ফিলিস্তিনে পরিণত করার চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ করেছেন ভারতের মার্ক্সবাদী কমিউনিস্ট দলের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি।

তার মতে, ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার কাশ্মীরকে হিন্দু অধ্যুষিত প্রদেশে পরিণত করতে চায়। এ ধরনের চেষ্টা ফিলিস্তিনকে নিয়ে ইসরায়েলের নীতির সঙ্গে সম্পূর্ণ মিলে যায়।

গত ৫ আগস্ট ভারতের সংবিধান থেকে ৩৭০ ধারা বাতিল করা হয়। এর ফলে জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল হয়ে যায়। সরকার নিরাপত্তার অজুহাতে কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রিসহ অসংখ্যা রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ ও কর্মীকে আটক করেছে। সেখানে কারফিউ জারি রয়েছে।

ইলায়াত কুট্টেরেই গোপালান গবেষণা কেন্দ্রে সীতারাম ইয়েচুরি কাশ্মির প্রসঙ্গে মোদি সরকারের আচরণের ফলে এসব মন্তব্য করেন। ইয়েচুরি বলেন, বর্তমান সরকারের গৃহীত পদক্ষেপ গণপ্রজাতান্ত্রিক ভারতকে ভবিষ্যতে হিন্দু রাষ্ট্র তৈরিতে সহায়তা করবে। কারণ আরএসএস ভারতকে হিন্দুরাষ্ট্র হিসেবে অভিহিত করে।

রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘ (আরএসএস) ভারতের একটি দক্ষিণপন্থী হিন্দু জাতীয়তাবাদী, আধাসামরিক ও বেসরকারী স্বেচ্ছা-সেবক সংগঠন। আরএসএস সংঘ পরিবার নামে হিন্দু জাতীয়তাবাদী গোষ্ঠীর একটি অংশ। ক্ষমতাসীন বিজেপি দলের সঙ্গে আরএসএসের আদর্শগত ও সংগঠনগত মিল রয়েছে।

কাশ্মীরের রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের মুক্তির দাবি সম্পর্কে বলেন, ২২ আগস্ট জম্মু এবং কাশ্মীরের সমস্ত রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের মুক্তির জন্য ভারতের সকল ধর্মনিরপেক্ষ গণতান্ত্রিক দল বিক্ষোভ করবে।

বিক্ষোভ সম্পর্কে ইয়েচুরি বলেন, এ বিক্ষোভ সবে শুরু। কারণ আমরা জম্মু-কাশ্মীরকে প্যালেস্টাইনে বাস্তবায়নের চেষ্টা সফল হতে দিবো না। কারণ প্যালেস্টাইনে নাগরিকদের মৌলিক অধিকার লঙ্ঘন করা হচ্ছে। একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ভারতে ঘটার চেষ্টা প্রতিরোধ করবো।

জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা সম্পর্কে ইয়েচুরি বলেন, একমাত্র জম্মু-কাশ্মীরই বিশেষ মর্যাদার সুবিধা ভোগ করছে না। ভারতের আরও দশটি রাজ্য একই সুবিধা ভোগ করছে। এদের মধ্যে অধিকাংশ উত্তরাঞ্চলীয় প্রদেশ যেমন অন্ধ প্রদেশ, তেলেঙ্গানা এবং গুজরা বিশেষ মর্যাদার সুবিধা ভোগ করছে।

৩৭০ ধারা বাতিলে সরকারের দুরভিসন্ধি সম্পর্কে ইয়েচুরি বলেন, একমাত্র মুসলিম অধ্যুষিত হওয়ার কারণে কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদার সুবিধা বাতিল করা হয়েছে। এক্ষেত্রে সরকারের সাম্প্রদায়িক রাজনৈতিক চেতনা প্রধান ভূমিকা রেখেছে। নিজেদের সাম্প্রদায়িক চেতনা বাস্তবায়নের উদ্দেশ্যেই সংবিধানের ধর্মনিরপেক্ষতা, গণতন্ত্র এবং ফেডারেল ব্যবস্থাকে অবজ্ঞা করেছে।

কাশ্মীরের জমি ক্রয় সম্পর্কে সাধারণ সম্পাদক বলেন বলেন, অন্য প্রদেশের কেউ কাশ্মীরে জমি কিনতে পারে না। এ অভিযোগ সত্য। কিন্তু ভারতের হিমাচল প্রদেশ, উত্তরাখণ্ড এবং সিকিম প্রদেশেও একই নিয়ম রয়েছে।  ঐ সব প্রদেশেও অন্য প্রদেশের কেউ জমি কিনতে পারে না।

সীতারাম ইয়েচুরি অভিযোগ করেন, জম্মু-কাশ্মীর নিয়ে সরকার অপপ্রচার করছে।

ঢাকাটাইমস/২১আগস্ট/আরআর

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :