বাড়ির প্রাচীর টপকে গ্রেপ্তার করা হলো পি চিদাম্বরমকে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২১ আগস্ট ২০১৯, ২৩:৩৮

নাটকীয় ঘটনার মধ্য দিয়ে শেষ পর্যন্ত দেশের প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা কংগ্রেস নেতা পি চিদাম্বরমকে গ্রেপ্তার করলো ভারতের সেন্ট্রাল ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন ইউনিট (সিবিআই)।

বুধবার রাতে আইএনএক্স মিডিয়া মামলায় গ্রেপ্তারের পর তাকে নিজেদের হেফাজতে নিয়েছে বাহিনীটি। এয়ারসেল মাক্সিস, এয়ার ইন্ডিয়া-সহ বেশ কিছু আর্থিক কেলেঙ্কারি মামলাতেও পি চিদাম্বরমের নাম জড়িয়েছিল।

চিদাম্বরমের গ্রেপ্তার নিয়ে নাটকীয় মুহূর্ত তৈরি হয়। রাতে দিল্লিতে প্রাক্তন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর বাড়িতে যায় সিবিআই ও ইডি। চিদাম্বরমের বাড়ির প্রাচীর টপকে ঢোকেন সিবিআই কর্মকর্তারা। এরপরই তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়।

মঙ্গলবার দিল্লি হাইকোর্ট তার আগাম জামিনের আবেদন খারিজ করে দেয়। এরপরই কার্যত আড়ালে ছিলেন চিদাম্বরম। দিল্লি হাইকোর্টের রায়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী। কিন্তু সেখানেও উদ্বেগ বাড়ে চিদাম্বরমের। এ মামলা প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চে পাঠানো হয়। কিন্তু গ্রেপ্তারি পরোয়ানা থেকে রেহাই মেলে না। এরমধ্যে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় চিদাম্বরমের বাড়িতে হানা দেয় সিবিআই ও ইডি। কিন্তু সেসময় বাড়িতে ছিলেন না চিদাম্বরম। অবিলম্বে হাজিরা দেওয়ার জন্য চিদাম্বরমকে নোটিস দেয় সিবিআই। বুধবার সকালেও তাঁর বাড়িতে যান সিবিআই কর্মকর্তারা। চিদাম্বরমের নামে লুকআউট নোটিস জারি করে ইডি।

২০১৮ সালের ২৫ জুলাই প্রথমবার আইএনএক্স মিডিয়ার দুটি মামলায় আগাম জামিন পেয়েছিলেন দেশের প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী। তার পর থেকে কিছুদিন অন্তর এই মেয়াদ বাড়তে থাকে।

৩৫০০ কোটি টাকার এয়ারসেল মাক্সিস চুক্তি এবং ৩০৫ কোটি টাকার আইএনএক্স মিডিয়া মামলায় প্রবীণ কংগ্রেস নেতার ভূমিকা তদন্তকারী সংস্থাগুলির নজরে ছিল। এ দুটি ঘটনাই ঘটে ইউপিএ ১ আমলে, যখন চিদাম্বরম অর্থমন্ত্রী ছিলেন। আইএনএক্স মিডিয়া মামলায় গত ২০১৭ সালের ১৫ মে সিবিআই এফআইআর দায়ের করে। সেখানে বলা হয়েছিল ২০০৭ সালে বিদেশ থেকে ৩০৫ কোটি টাকা ফান্ড পাওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় ছাড়পত্রের ব্যাপারে নিয়ম মানা হয়নি। এর পর গত বছর ইডি এ ব্যাপারে আর্থিক নয়-ছয়ের মামলা রুজু করে।

তাঁর ছেলে কার্তি চিদাম্বরমও এই মামলায় অভিযুক্ত। গত ২৮ ফেব্রুয়ারি সিবিআই তাকে গ্রেফতার করে। পরে দিল্লি হাইকোর্ট কার্তির জামিন মঞ্জুর করে।

গত ৪ জুলাই আইএনএক্স মিডিয়ার প্রাক্তন ইন্দ্রাণী মুখোপাধ্যায়কে সিবিআইয়ের মামলায় রাজসাক্ষী হওয়ার অনুমতি দেয় দিল্লির এক আদালত।

সোমবারই তাকে এয়ার ইন্ডিয়া বিমান ক্রয় মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নোটিস পাঠানো হয়েছিল ইডির তরফ থেকে। আগামী শুক্রবার তার এই মামলার তদন্তকারী অফিসারের কাছে গিয়ে নিজের বয়ান রেকর্ড করার কথা ছিল।

ঢাকাটাইমস/২১আগস্ট/ ইএস

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :