চুল, ত্বক ও রোগ নিরাময়ে অ্যালোভেরা

আসাদুজ্জামান
 | প্রকাশিত : ২৫ আগস্ট ২০১৯, ১৩:১৮

সৌন্দর্য চর্চায় জনপ্রিয় ভেষজ অ্যালোভেরা। ত্বক ও চুলের যতেœ এর ব্যবহার অনেক দিনের। পাশাপাশি রোগ নিরাময়েও অ্যালোভেরা অপ্রতিদ্বন্দ্বী। সম্প্রতি এক গবেষণায় দেখা গেছে, অ্যালোভেরা দেহের রোগ নিরাময়ে নীরবে কাজ করে। বিশেষ করে স্থূলতা, অন্ত্রের রোগ এবং শরীর থেকে দূষিত পদার্থ বের করতে সাহায্য করে এটি।

অনেকে মনে করেন, অ্যালোভেরার ব্যবহার মানেই ত্বকে ও চুলের রাশি রাশি সৌন্দর্য। কথাটা সত্যি। কিন্তু অনেকেই জানেন না শরীরের নানাবিধ রোগ মুক্তির কাজেও এটি নিয়ামক হিসেবে কাজ করে। অ্যালোভেরার রস নিয়মিত ডায়েটে থাকা মানেই ভুলেও রোগ ঘেঁষবে না আপনার ধারেকাছে। ওজন কমাবে চোখের পলকে। শরীর রাখবে দূষণমুক্ত। 

ওজন কমায়
হজমশক্তি বাড়িয়ে, শরীরের অতিরিক্ত জলের ভাগ কমিয়ে ওজম কমায় অ্যালোভেরা। শরীরকে দূষণমুক্তও করে। শুরুতে অল্প পরিমাণ অ্যালোভেরা জুস খেয়ে দেখুন। কোনো সমস্যা না হলে রোজ জলের সঙ্গে এই রস মিশিয়ে খেলে উপকার পাবেন। 

ত্বকের যত্নে
খেয়াল করে দেখেছেন নিশ্চয়ই এখনকার সব বিউটি প্রোডাক্টে অ্যালোভেরা ব্যবহৃত হচ্ছে! কারণ অ্যালোভেরার মতো ত্বকের যতœ নিতে আর কেউ পারে না। সেই প্রোডাক্ট ব্যবহার ছাড়া সরাসরি ত্বকে অ্যালোভেরা লাগাতে চাইলে জল দিয়ে মুখ ধুয়ে অল্প অ্যালোভেরা নিয়ে ত্বকে ম্যাসাজ করুন। কিছুক্ষণ রেখে ফেসওয়াশ দিয়ে ধুয়ে নিন মুখ। একইভাবে এই পাতার রস মিশিয়ে নিতে পারেন ফেস প্যাক, টোনারে। নিয়মিত ব্যবহার করলে ব্রণের হামলা কমবে। ত্বকের শুষ্কভাব পালাবে। কমবে সানবার্ন, সংক্রমণ, কালচে ছোপসহ ত্বকের যাবতীয় সমস্যা। 

চুলের যত্নে
ওবেসিটি, ত্বকের যত্নের পাশাপাশি অকালপক্বতা এবং চুল পড়াও কমায়। চুলে রোজ অ্যালোভেরা লাগিয়ে কিছুক্ষণ রেখে ধুয়ে নিন। হারানো জেল্লা ফিরবে। চুলের জন্য স্পেশাল মাস্ক তৈরি করতে পারেন। নারকেল তেলের সঙ্গে সমপরিমাণ এই পাতার রস মিশিয়ে নিন ভালো করে। তারপর সেটি সারা রাত চুল আর স্ক্যাল্পে লাগিয়ে রেখে দিন। পরের দিন শ্যাম্পু করে নিন। সপ্তাহে দুবার এই মাস্ক ব্যবহার করলে চুল হবে স্বাস্থ্যে ঝলমল।
প্রাকৃতিক উপায়ে সৌন্দর্য বাড়াতে আর শরীর সুস্থ রাখতে নিয়মিত খান এই পাতার রস। তবে তাড়াতাড়ি উপকার পেতে প্রথম দিনেই একগাদা করে খেয়ে নেবেন না। হিতে বিপরীত হতে কতক্ষণ! তাই সইয়ে সইয়ে পরিমাণ বাড়ান অ্যালো জেলের।

অন্ত্রের রোগ
যারা গ্যাস্ট্রিক, আলসার কিংবা বদহজমে ভুগছেন তাদের জন্য দাওয়াই হতে পারে অ্যালোভেরা। রোজ নিয়ম করে অ্যালোভেরার জুস পান করুন। ফলটা পাবেন হাতেনাতে। দেখবেন গ্যাস্ট্রিক আলসার বদহজম পালিয়ে আপনার ক্ষুধার পরিমাণ বাড়বে। আপনি হয়ে উঠবেন ফিট।

(ঢাকাটাইমস/২৫আগস্ট/এজেড)

সংবাদটি শেয়ার করুন

ফিচার বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :