চুয়াডাঙ্গায় সোনা পাচার মামলায় যাবজ্জীবন

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২১:১৬

চুয়াডাঙ্গায় সোনা পাচার মামলায় রাকিব হোসেন নামে এক যুবককে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং রুপা পাচারের দুটি মামলায় উজ্জ্বল নামে এক ব্যক্তিকে ১৪ বছর করে ২৮ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত।

সোমবার বিকালে চুয়াডাঙ্গার স্পেশাল ট্রাইবুনাল-১ এর বিচারক রবিউল ইসলাম এ রায় দেন। রাকিব হোসেন জীবননগর উপজেলার নতুনপাড়া গ্রামের ও উজ্জ্বল হোসেন দামুড়হুদা উপজেলার দর্শনা কেরু মিলপাড়ার বাসিন্দা।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, ২০১৮ সালে বিজিবি জীবননগর উপজেলার গয়েশপুর সীমান্তে অভিযান চালিয়ে রাকিব হোসেনকে আটক করে। এ সময় তার পায়ে বেঁধে রাখা এক কেজি ৮৬৫ গ্রাম স্বর্ণ উদ্ধার করে বিজিবি। এ ঘটনায় বিজিবির পক্ষে সুবেদার আব্দুস সাত্তার বাদী হয়ে জীবননগর থানায় মামলা করেন। এ মামলার তদন্ত শেষে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়। আলোচিত এ মামলায় আদালত মোট আট জনের সাক্ষ্য শেষে রাকিবকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয়।

এদিকে, রুপা পাচারের পৃথক দুটি মামলায় উজ্জ্বল হোসেনকে ১৪ বছর করে ২৮ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। ২০১৮ সালে দামুড়হুদা উপজেলার দর্শনা পুরাতন বাজার এলাকা থেকে তাকে ১৬ কেজি পাঁচশ গ্রাম রুপার গহনাসহ আটক করেছিল বিজিবি। এই মামলায় জামিনে থাকা অবস্থায় ফেব্রুয়ারিতে নিজ বাড়ি থেকে ৪৬ কেজি ৫শ গ্রাম রুপার গহনাসহ উজ্জ্বল আবার আটক হয়।

রুপা পাচারের দুটি মামলায় পুলিশ তাকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করে। চুয়াডাঙ্গার স্পেশাল ট্রাইবুনাল-১ এর বিচারক রবিউল ইসলাম দুটি মামলায় ১৬ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করেন। পরে আদালত উজ্জ্বল হোসেনকে দোষী সাব্যস্ত করে দুটি মামলায় ১৪ বছর করে ২৮ বছরের কারাদণ্ড দেন। একই সাথে ২০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও চার মাসের কারাদণ্ড দেয় আদালত।

(ঢাকাটাইমস/৩০সেপ্টেম্বর/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত