ইইউকে সই ছাড়া চিঠি পাঠিয়ে হাসির খোরাক বরিস

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ঢাকা টাইমস
| আপডেট : ২১ অক্টোবর ২০১৯, ১৫:০৭ | প্রকাশিত : ২১ অক্টোবর ২০১৯, ১২:২৮

ব্রিটিশ পার্লামেন্টে আবারও জটিলতার মুখে পড়েছেন প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। পার্লামেন্টে ব্রেক্সিট চুক্তির মেয়াদ বাড়ানোর বিষয়ে মত দিয়েছেন সাংসদরা। এরপর অনিচ্ছা সত্ত্বেও ইউরোপীয় ইউনিয়নকে একাধিক চিঠি দিয়েছেন বরিস জনসন। তার মধ্যে বেশিরভাগ চিঠিতে সই করেননি তিনি। এ নিয়ে হাসির খোরাক হয়েছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী।

বিরোধী দল লেবার পার্টির ব্রেক্সিট সংক্রান্ত ছায়াসচিব কির স্টারমান বরিসকে বিদ্রুপ করে বলেন, বরিস জনসন একেবারে ‘পাঁচ বছরের শিশুর মতো’ আচরণ করছেন।

জানা গেছে, এক সঙ্গে তিনটি চিঠি দিয়েছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী। তার মধ্যে সই ছাড়া চিঠিও রয়েছে।

চিঠিতে বরিস জানিয়েছেন, ইইউ নেতাদের উদ্দেশে জানানো হচ্ছে আপনাদের সঙ্গে চুক্তিটা ভালই হয়েছিল। কিন্তু পার্লামেন্টের চাপে ফের ব্রেক্সিটের জন্য অতিরিক্ত সময় চাইতে বাধ্য হচ্ছি। আপনারা আদৌ সময় দেবেন কি না, ভেবে দেখুন।

চিঠি নিয়ে বরিসের এই ‘অদ্ভুত’ প্রতিক্রিয়া দেখেই তাকে ‘ছেলেমানুষ’ বলে নিশানা করেছেন লেবার পার্টির নেতা স্টারমার। কেউ কেউ আবার বলেছেন, ‘‘প্রধানমন্ত্রী বরং আর একটা চিঠি লিখুন। আর তাতে লিখবেন, ‘আমার নাম বরিস জনসন। আমার বয়স পাঁচ বছর’!’’

প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পরে বরিস জানিয়েছিলেন, মরে যাই সেও ভাল, ব্রেক্সিটের জন্য আর ইইউয়ের কাছে সময় চাইব না। সেই তাকেই পার্লামেন্টে ব্রেক্সিট চুক্তি পেশ করার আগে প্রবল বাধার মুখে পড়তে হয়। তারপরও ক্ষুব্ধ বরিস বুঝিয়ে দিয়েছিলেন, ইইউ কর্তাদের কাছে চিঠি লিখে ব্রেক্সিট স্থগিত করার কথা তিনি নিজে বলবেন না। তবে শেষমেশ বলতে যখন হলই, তখন সেই চিঠিটিতে সই না করে মুখরক্ষার চেষ্টা করলেন তিনি।

ঢাকা টাইমস/২১অক্টোবর/একে

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :