পলাতক ক্লিনিক মালিকের প্রাণ গেল ট্রাকচাপায়

চাটমোহর (পাবনা) প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৮ নভেম্বর ২০১৯, ১৩:২৭ | প্রকাশিত : ১৮ নভেম্বর ২০১৯, ০৯:৩৭
ফাইল ছবি

পলিয়ে থাকাবস্থায় ট্রাকচাপায় মারা গেলেন পাবনার চাটমোহর পৌর শহরের নারিকেল পাড়া এলাকার ‘ইসলামিক হাসপাতাল’ নামের ক্লিনিকের মালিক আমির হোসেন বাবলু (৫৫)। তিনি চাটমোহর পৌর সদরের আফ্রাতপাড়া মহল্লার তোফাজ্জল সরদারের ছেলে। তার ক্লিনিকে প্রসূতি মৃত্যুর ঘটনায় চাটমোহর থানায় দায়েরকৃত একটি মামলার আসামি হিসেবে পলাতক ছিলেন তিনি।

স্বজনরা জানান, রবিবার দিবাগত রাত একটার দিকে ঈশ্বরদী পৌর সদরের বাবুপাড়া এলাকায় রিকশাযোগে শ্বশুড়বাড়িতে ফেরার পথে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি ট্রাক তাকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই মারা যান আমির হোসেন বাবলু। ঈশ্বরদী ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার আরিফুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে গত ১১ নভেম্বর সোমবার রাতে আমির হোসেন বাবলুর মালিকানাধীন ‘চাটমোহর ইসলামিক হাসপাতাল’ ক্লিনিকে একজন প্রসূতির অপারেশন চলাকালে তাকে মুমূর্ষু অবস্থায় ফেলে রেখে পালিয়ে যাওয়ার সময় কথিত চিকিৎসক সাদ্দাম হোসেন নিবির ও আসাদুজ্জামানেক ধরে পুলিশে দেয় এলাকাবাসী। তবে ওই সময় কৌশলে পালিয়ে যেতে সক্ষম হন আমির হোসেন বাবলু। এরপর ১২ নভেম্বর মঙ্গলবার রাতে ওই ঘটনায় মৃত প্রসূতি তাছলিমা খাতুনের বাবা মজনুর রহমান মজনু বাদী হয়ে চাটমোহর থানায় তিনজনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন।

মামলার আসামিরা হলেন-ক্লিনিক মালিক চাটমোহর পৌর সদরের আফ্রাতপাড়া মহল্লার তোফাজ্জল সরদারের ছেলে আমির হোসেন বাবলু (৫৫), কথিত চিকিৎসক নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলার জালোরা গির্জার মোড় এলাকার মো. ময়েজ উদ্দিনের ছেলে সাদ্দাম হোসেন নিবির (২৭) ও কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার গোরুরা দক্ষিণপাড়া এলাকার মো. আজিজুল হকের ছেলে বর্তমানে বড়াইগ্রামের বনপাড়ার বাসিন্দা মো. আসাদুজ্জামান (৩৮)। পরে পুলিশ গ্রেপ্তারকৃত দুজনকে পাবনা জেলহাজতে পাঠায়। ঘটনার পর থেকে পলাতক ছিলেন ক্লিনিক মালিক আমির হোসেন বাবলু।

(ঢাকাটাইমস/১৮নভেম্বর/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :