বিহারি-বাঙালি বিভেদ মুছতে চান সিমা কোরাইশি

কাজী রফিক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৪ জানুয়ারি ২০২০, ১৫:১৩ | প্রকাশিত : ১৪ জানুয়ারি ২০২০, ১৪:৩১

স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় বাংলাদেশে আটকে পড়া পাকিস্তানিদের সঙ্গে বাঙালিদের একটা বিভেদ এখনো রয়ে গেছে। এ নিয়ে এলাকায় আছে অস্বস্তি। সেই বিভেদ মুছতে চান জেনেভা ক্যাম্পের এনএলআরসি চেয়ারম্যান এস এম সিমা কোরাইশি। এবার তিনি ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) ৩২ নম্বর সাধারণ ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে নির্বাচন করছেন।

এই ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হাবিবুর রহমান মিজান বর্তমানে কারাগারে। অস্ত্র, মাদকসহ বিদেশে পালিয়ে যাওয়ার সময় র‌্যাবের কাছে গ্রেপ্তার হন তিনি। পরে জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের দায়ে মিজানের বিরুদ্ধে মামলা করে দুদক। ওই মামলায় রিমান্ড শুনানি শেষে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।

দীর্ঘদিন কাউন্সিলর হিসেবে দায়িত্ব পালন করলেও ওয়ার্ডের অন্তর্গত জেনেভা ক্যাম্প, জান্নাতবাগ ক্যাম্পসহ উর্দুভাষীদের সঙ্গে স্থানীয় বাঙালিদের কোনো সমন্বয় ঘটাতে পারেননি মিজান। সেই সমন্বয়টা করার অঙ্গীকার করছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী সিমা কোরাইশি।

কাউন্সিলর প্রার্থী সিমা কোরাইশি জানান, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ধারাবাহিক অভিযানে ক্যাম্প এখন প্রায় মাদকশূন্য। বর্তমানে কিছু ইয়াবা সিন্ডিকেট বাইরে থেকে ক্যাম্প ও এর আশপাশে মাদক কারবার চালিয়ে যাচ্ছে।

সিমা বলেন, ‘এখানে বিহারি-বাঙালি একটা পার্থক্য আছে। কোনো সমন্বয় নেই। আমি সেই বিভেদটা দূর করতে চাই। ক্যাম্প স্কুল, কমিউনিটি সেন্টার, সড়কের আলোর ব্যবস্থা করতে চাই। এ ছাড়া ক্যাম্পের সবচেয়ে বড় সমস্যা মাদক। কারা মাদক ব্যবসা করে বা করত সেটি সবাই জানে। আমরা প্রশাসনকে তথ্য দিচ্ছি, তারা আমাদের সহযোগিতা করছে। আমরা ক্যাম্প থেকে মাদক পুরোপুরি নির্মূল করতে চাই।’

যারা মাদক ব্যবসা করে তাদের জন্য কাজের ব্যবস্থা করবেন উল্লেখ করে সিমা বলেন, ‘আপনারা জানেন, ক্যাম্পের অসহায় মানুষের সংখ্যা বেশি। খুব অল্প মানুষ ব্যবসা করে। বাকিরা কোনোভাবে দিন কাটাচ্ছে। নারীদের নিয়ে আমার একটা ভাবনা আছে। তারা যেহেতু হস্তশিল্পের কাজ করতে পারে, সেটির মাধ্যমে তাদের জন্য কর্মসংস্থান করতে চাই।’

জেনেভা ক্যাম্পে প্রায় এক লাখ মানুষের বাস। বিপুলসংখ্যক এই বাসিন্দার বর্জ্য ব্যবস্থার কাজ সিটি করপোরেশনের হলেও তা পরিপূর্ণভাবে সিটি করপোরেশনের কর্মীরা করতে চান না বলে অভিযোগ এই উর্দুভাষী নেতার। বলেন, ‘সিটি করপোরেশনের ময়লার গাড়ি আসে। তারা ময়লা ডাস্টবিন থেকে তুলে নেয়ার কথা। কিন্তু তারা সেটা করে না। আমাদের লোক দিয়েই তাদের গাড়িতে ময়লা তুলে দিতে হয়।’

মোহাম্মদপুরের লালমাটিয়া এ থেকে জি ব্লক, ইকবাল রোড, স্যার সৈয়দ রোড, আওরঙ্গজেব রোড, গজনবী রোড, ঢাকা রেসিডেনসিয়াল মডেল এলাকা, জেনেভা ক্যাম্প, হুমায়ুন রোড, বাবর রোড, খিলজী রোড, পিসি কালচার (ক) ব্লক, শ্যামলী মিলিয়ে ঢাকা উত্তরের ৩২ নম্বর ওয়ার্ড। ওয়ার্ডটির মোট ভোটারের একটি বড় অংশ জেনেভা ক্যাম্পের বাসিন্দা। জনশ্রুতি রয়েছে, ক্যাম্পের ভোট বাগিয়ে নিতে পারলে কাউন্সিলর পদ বাগিয়ে নেয়া সহজ।

ওয়ার্ডটিতে এবার কাউন্সিলর পদে আওয়ামী লীগের সমর্থন পেয়েছেন সৈয়দ হাসান নূর ইসলাম। এছাড়াও নূরুল ইসলাম খান রতনসহ আরও বেশ কয়েকজন ওয়ার্ডটির কাউন্সিলর পদের জন্য লড়বেন।

ঢাকাটাইমস/১৪জানুয়ারি/কারই/এমআর

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :