বার-বেঞ্চের সমন্বয়ে ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা হবে: প্রধান বিচারপতি

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২২ জানুয়ারি ২০২০, ২২:৫২ | প্রকাশিত : ২২ জানুয়ারি ২০২০, ২২:৪৭

সমাজের প্রতিটি মানুষের ন্যায়বিচার পাওয়ার অধিকার রয়েছে মন্তব্য করে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন বলেছেন, বার ও বেঞ্চের সমন্বয়েই ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা হয়।

আজ বুধবার সুপ্রিম কোর্টে আইন পেশায় ১৭ জন আইনজীবীর ৫০ বছর পূর্তিতে তাদের সংবর্ধনায় অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন প্রধান বিচারপিত।

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির উদ্যোগে সংবর্ধিত আ্ইনজীবীদের মধ্যে রয়েছেন ব্যারিস্টার শফিক আহমেদ, আব্দুর রাজ্জাক খান, ব্যারিস্টার ফরিদ আলম, মো. শহিদুল হক, ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার, ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন, আব্দুল ওয়াদুদ, রেজা আলী, সাদেক আলী, এ বি এম রফিক উল্লাহ, ব্যারিস্টার রাবেয়া ভুইয়া প্রমুখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রধান বিচারপতি ১৭ প্রথিতযশা আইনজীবীকে অভিনন্দন ও সাধুবাদ জানাতে পেরে আনন্দিত ও গর্বিত বলে জানান। বলেন, আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় ৫০ বছর তারা আইন অঙ্গনকে সমৃদ্ধ ও পরিপক্ব করেছেন। ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠায় তাদের ভূমিকা প্রশংসার দাবিদার।

আইনের শাসনের কোনো বিকল্প নেই উল্লেখ করে প্রধান বিচারপতি সংবর্ধিত আইনজীবীদের উদ্দেশে বলেন, `বিচার বিভাগের সঙ্গে আপনাদের একাগ্রতা ও সততার জন্য আমি আপনাদের প্রতি চিরকৃতজ্ঞ। আইনের শাসন, মৌলিক মানবাধিকার, সামাজিক শাসন, স্বাধীনতা ও সুবিচার প্রতিষ্ঠায় আপনাদের কর্মদক্ষতা ছিল অবিচল।’

৫০ বছরের পেশাজীবনে তাদের ওপর অর্পিত দায়িত্ব সংর্ধিত ১৭ আইনজীবী যথাযথভাবে পালন করেছেন বলে বিশ্বাস করেন প্রধান বিচারপতি। তিনি আশা করেন ভবিষতেও তারা তা পালন করবেন।

ওই প্রবীণ আইজীবীদের উদ্দেশে প্রধান বিচারপতি বলেন, `প্রতিটি মানুষের ন্যায়বিচার পাওয়ার অধিকার আছে। এই ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠায় আপনাদের ৫০ বছর অতিবাহিত ছিল অতি গৌরবের। আইন পেশা একটি অনিশ্চিত পেশা হলেও সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করে বিগত ৫০ বছর গৌরব অর্জন করেছেন আপনারা।’

তাদের এই কর্মজীবন নবীন আইনজীবীদের অনুপ্রেরণা জোগাবে উল্লেখ করে প্রধান বিচারপতি বলেন, বার ও বেঞ্চের সমন্বয়ে ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা হবে। বার ও বেঞ্চ ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করবে এটাই আমার প্রত্যাশা।’

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সুপ্রিম কোর্ট বারের সভাপতি এ এম আমিন উদ্দিন।

ঢাকাটাইমস/২২জানুয়ারি/এআইএম/মোআ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

আদালত বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :