থানায় অভিযোগ করতে গিয়ে আহত ব্যক্তি ৭ ঘণ্টা হাজতে

মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২৮ জানুয়ারি ২০২০, ২২:১৯

টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত স্ত্রী ও ছেলেকে নিয়ে থানায় অভিযোগ করতে গেলে অভিযোগ না নিয়ে আহত ছেলেকে প্রায় সাত ঘণ্টা থানা হাজতে আটকে রেখেছে পুলিশ। মঙ্গলবার মির্জাপুর থানায় এ ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী আহত জাকির হোসেন (২৫) পেশায় অটোরিকশা চালক। তিনি মির্জাপুর উপজেলার আনাইতারা ইউনিয়নের চামারী ফতেপুর গ্রামের আদম আলীর ছেলে।

ভুক্তভোগী জাকির জানান, গত রোববার সন্ধ্যার দিকে তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে তার প্রতিবেশি ফেরদৌস মিয়ার সঙ্গে তার বাকবিতণ্ডা হয়। এক পর্যায়ে ফেরদৌস তাকে লাঠি দিয়ে পেটায়। এ ঘটনা দেখে তার মা বেগম এগিয়ে গেলে তাকেও লাঠি ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করা হয়। এতে তার মা-ছেলে গুরুতর আহত হন।

আশপাশের লোকজন তাদের উদ্ধার করে প্রথমে জামুর্কীস্থ মির্জাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এবং পরে টাঙ্গাইল সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে দুইদিন চিকিৎসার পর মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে জাকির ও তার মা বেগমকে নিয়ে জাকিরের বাবা মির্জাপুর থানায় অভিযোগ করতে যান। কর্তব্যরত পুলিশের উপপরির্শক (এসআই) ফজলুর রহমান অভিযোগ না নিয়ে জাকিরকে আটক করে থানা হাজতে রাখেন। এ সময় তারা অনেক কাকুতী মিনতি করলেও তিনি তাকে ছাড়েননি। পরে বিষয়টি মির্জাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সায়েদুর রহমান জানলে তার নির্দেশে সন্ধ্যা ৭টার দিকে ফজলুর রহমান তাকে ছেড়ে দেন।

জাকির হোসেনের মা বেগম বলেন, থানায় অভিযোগ করতে গেলে পুলিশ তার আহত ছেলেকে আটক করেন। আহত দেখেও পুলিশের ওই কর্মকর্তার মায়া হয়নি।

এসআই ফজলুর রহমান জানান, মারামারির ঘটনায় তাদের প্রতিপক্ষ থানায় একটি অভিযোগ দিয়েছে। এলাকায় গিয়ে তাদের না পাওয়ার কারণে থানার কাছে একটি দোকানের পাশে পেয়ে বিকাল চারটার দিকে তাকে আটক করা হয়। ওসি সাহেবের নির্দেশে পরে ছেড়ে দেয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে মির্জাপুর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সায়েদুর রহমানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আটকের বিষয়টি জানতে পেরে তাকে ছেড়ে দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

(ঢাকাটাইমস/২৮জানুয়ারি/কেএম)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :