কানাডায় করোনা প্রতিরোধে স্কার্ফ!

ঢাকাটাইমস ডেস্ক
 | প্রকাশিত : ০২ এপ্রিল ২০২০, ০৮:৫২

টরন্টোর চীফ মেডিকেল অফিসার ড. আইলিন প্রতিদিনই সংবাদ সম্মেলনে করোনা ভাইরাসে টরন্টো সিটির পরিস্থিতি তুলে ধরেন।অত্যন্ত সপ্রতিভ এবং সম্মানিত এই চিকিৎসকের গলায় প্রতিদিনই নতুন নতুন ডিজাইনের, নতুন নতুন রঙের স্কার্ফ থাকে।

তার ব্রিফিং শুনতে প্রতিদিন টেলিভিশনের সামনে হাজির হ্ওয়া নাগরিকদের চোখ এড়ায় না সেই স্কার্ফ কেউ একজন আইলিনের নামের শেষাংশ ব্যবহার করে “Dr. de Villa’s scarf” বলে একটি টুইট করেন টুইটারে। টুইটে ড. আইলিনের নানা ডিজাইনের স্কার্ফের প্রশংসা করেন তিনি।

পরের দিনই গ্লোবাল নিউজের রিপোর্টার সংবাদ সম্মেলনে তাকে প্রশ্ন করে বসেন, ড, আইলিন, তোমার কতোগুলো স্কার্ফ আছে?

‘আমি ঠিক জানি না। অনেক, অনেক।’ পটাপট উত্তর দেন তিনি। পরমুহূর্তেই পাল্টা প্রশ্ন করেন, ‘তোমার (সাংবাদিক) কি বিশেষ কোনো পছন্দ বা ডিজাইন আছে যেটা আমার সংগ্রহে নিই। কিংবা বিশেষ কোনো পছন্দ যা তুমি দেখতে চা্ও?’

রিপোর্টার তার জবাব দেননি।

টেলিভিশনে লাইভ ইন্টারভিউটা দেখছিলেন টরন্টো র‌্যাপটরস-এর তারকা খেলোয়াড় সারজেই ইবাকা। স্কার্ফ নিয়ে প্রশ্নোত্তর পর্বটুকুও তার চোখ এড়ায়নি। আকাশ সমান জনপ্রিয় এই তারকা ড. আইলিনের সঙ্গে কথা বলতে চাইলেন। র‌্যাপটরস-এর টিম আর ড. আইলিনের টিমের মধ্যে কথাবার্তা হয় ফেসটাইমে।

করোনারোধে ‘ঘরে থাকো’র প্রচারণায় নেমে যায় র‌্যাপটরস। সোশ্যাল মিডিয়ায় একটা পোস্ট দেন সারজেই। ‘ঘরে থাকো, গলায় স্কার্ফ পরো।’ ব্যস, ভক্তরা হুমড়ি খেয়ে পড়ে স্কার্ফের দিকে।

ড. আইলিনের স্কার্ফ এখন টরন্টোয় করোনা প্রতিরোধ আন্দোলনের প্রতীক।

[শওগাত আলী সাগরের ফেসবুক স্ট্যাটাস। কানাডাপ্রবাসী এই সাংবাদিক নতুনদেশ পত্রিকার সম্পাদক]

(ঢাকাটাইমস/২এপ্রিল/মোআ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

নির্বাচিত খবর বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :