এখন থেকে প্রতিদিন আড়াইটায় স্বাস্থ্য বুলেটিন

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ০৭ এপ্রিল ২০২০, ১৪:৪১ | প্রকাশিত : ০৭ এপ্রিল ২০২০, ১৪:১৮

এখন থেকে ‘প্রেস ব্রিফিং’ করবে না স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও আইইডিসিআর। এর পরিবর্তে ‘স্বাস্থ্য বুলেটিন’ প্রচার করবে তারা। তবে সেখানে সাংবাদিকদের প্রশ্ন করার কোনো সুযোগ থাকবে না। অনলাইনের মাধ্যমে তা প্রচার হবে বেলা আড়াইটা থেকে।

মঙ্গলবার দুপুর ২টায় অনলাইন ব্রিফিংয়ে এসে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আবুল কালাম আজাদ এ তথ্য জানিয়েছেন। আজকের বুলেটিন শেষেও সাংবাদিকরা প্রশ্ন করার সুযোগ পাননি। এমনকি ব্রিফিংয়ের সময় পেছনের ব্যানারেও ছিল না ‘প্রেস ব্রিফিং’ লেখাটি।

মহাপরিচালক বলেন, ‘অনেক টেলিভিশন আমাদের অনুরোধ করেছে যে দুপুর দুইটায় তাদের খবর প্রচারিত হয়। তাই আমরা যে ব্রিফিংটি দিই সেটা যেন দুইটার পরিবর্তে আড়াইটায় দিই। তাদের কথার প্রেক্ষিতে আমরা প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেছি। তারা বলেছেন এটা আড়াইটা বা তিনটায় হলে সমস্যা নেই। তাই এখন থেকে আমরা বেলা আড়াইটায় অনলাইন ব্রিফিংয়ে আসবো। তবে আমরা প্রতিদিন যে ব্রিফিং করছি, তা আর ‘মিডিয়া বিফ্রিং’ হিসেবে প্রচার হবে না। এটি প্রতিদিনের ‘স্বাস্থ্য বুলেটিন’ হিসেবে প্রচার হবে। সাংবাদিক ও মিডিয়াকর্মীদের সঙ্গে আলোচনা করে আমরা এই সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

তবে সাংবাদিকরা ‘স্বাস্থ্র বুলেটিনে’ আগের মতো প্রশ্ন করতে পারবেন না বলে জানান তিনি।

আবুল কালাম আজাদ জানান, ‘প্রতিদিন স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে যে সংবাদবিজ্ঞপ্তি পাঠানো হয়, সেখানে বিস্তারিত জানানো হবে।’

দেশে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব দেখা দেয়ার শুরু থেকেই নিয়মিত প্রেস ব্রিফিং করে আসছিল স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। এতে শুরু থেকেই সাংবাদিকদের সামনে সার্বিক তথ্য তুলে ধরতেন রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের (আইইডিসিআর) পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদি সেব্রিনা ফ্লোরা। শুরুতে সাংবাদিকরা সরাসরি ব্রিফিংয়ে অংশ নিতেন। তারা প্রশ্ন করারও সুযোগ পেতেন।

পরে করোনা পরিস্থিতির অবনতি হলে সবাই সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার পাশাপাশি ঘরে থাকতে বলা হয়। সেই থেকে অনলাইনে ব্রিফিং করে আসছিল স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। যেখানে সাংবাদিকরা অনলাইনে প্রশ্ন করার সুযোগ পেতেন।

সম্প্রতি কয়েকদিন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেকও বাসা থেকে অনলাইনে সংবাদ সম্মেলনে যুক্ত হতেন।

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আরও পাঁচজন করোনা ভাইরাস আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়ালো ১৭ জনে। নতুন আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন ৪১ জন। এই হিসাবে মোট আক্রান্ত হয়েছেন ১৬৪ জন।

(ঢাকাটাইমস/ ৭ এপ্রিল/ এইচএফ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :