ভিজিএফের তালিকায় ইউপি সদস্যের পাঁচ স্বজন

ফরিদপুর প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১৬ এপ্রিল ২০২০, ২১:৪৩

ফরিদপুরের একটি ইউনিয়নে অতি দরিদ্রদের জন্য খাদ্য সহায়তার যে তালিকা করা হয়েছে তাতে এক সচ্ছল ইউপি সদস্যের দুই ছেলে, স্ত্রী, ভাই ও ভায়ের স্ত্রীর নাম রয়েছে। এ ঘটনা ঘটেছে নগরকান্দা উপজেলার কাইচাইল ইউনিয়নে।

যে ইউপি সদস্যের ছেলে, স্ত্রী, ভাই ও ভায়ের স্ত্রীর নাম ওই তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে তার নাম জাহাঙ্গীর হোসেন। তিনি ওই ইউনিয়নের নয় নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য।

ওই ইউনিয়ন ইউপি চেয়ারম্যান কবির হোসেন গত ৬ এপ্রিল তার ইউনিয়নের এক হাজার ৯০০ দরিদ্র ব্যক্তির একটি তালিকা করে জমা দেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে। ওই তালিকার বিষয় হিসেবে লেখা হয়, ৫নং কাইচাইল ইউনিয়ন পরিষদের আওতায় করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাব মোকাবিলার জন্য ত্রাণ কার্য ভিজিএফের তালিকা।

ওই তালিকার ২৬৭ নম্বরে রয়েছে ইউপি সদস্য জাহাঙ্গীরের ছেলে সাব্বির, ২৬৮ নম্বরে অপর ছেলে ওমর সানি, ২৬৯ নম্বরে রয়েছে জাহাঙ্গীরের ভাই বিদেশফেরত (মালয়েশিয়া) বাবলু, ২৭০ নম্বরে জাহাঙ্গীরের আরেক ভাই লাবলুর স্ত্রী রেজি এবং ২৭১ নম্বরে রয়েছে জাহাঙ্গীরের স্ত্রী মাহফুজার নাম।

এলাকাবাসী বলছে, ওই তালিকা করার সময় ইউপি সদস্য জাহাঙ্গীর একশটি নাম জমা দেন। এর মধ্যে ৫০ জন কান্দি গ্রামের। ওই ৫০ জনের মধ্যে তার ছেলে স্ত্রী, ভাই ও ভায়ের স্ত্রীসহ মোট পাঁচজনের নাম রয়েছে।

এ ব্যাপারে ইউপি সদস্য জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, ওই তালিকা গরিবদের জন্য নয়, মধ্যবিত্তদের জন্য করা হয়েছে। তিনি বলেন, এলাকার একজন নাগরিক হিসেবে তারাও তো সাহায্য চাওয়া কিংবা নেওয়ার অধিকার আছে। তিনি বলেন, এ ব্যাপারে এলাকায় কথা ওঠায় তিনি এখনও ওই মালামাল তোলেননি।

কাইচাইল ইউনিয়নের ইউপি চেয়ারম্যান কবির হোসেন বলেন, তাড়াহুড়ো করে তালিকা করায় তাতে অনেক ভুল হয়েছে। এক ব্যক্তির নাম একাধিকবার এসেছে। অনেক সচ্ছল ব্যক্তির নাম ঢুকে গেছে।

তিনি বলেন, তালিকা যাচাই-বাছাই করে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, তার ইউনিয়নে এক হাজার ৯০০ জনের তালিকা করা হলেও এক হাজার পাঁচশজনকে দিলেই চলবে।

(ঢাকাটাইমস/১৬এপ্রিল/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :