১৯ দিনে ২০০ বেডের করোনা ইউনিট, বিনামূল্যে চিকিৎসা

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৬ মে ২০২০, ২০:৩১ | প্রকাশিত : ১৬ মে ২০২০, ১৬:৪১

করোনা আক্রান্তদের চিকিৎসা দেয়ার জন্য মাত্র ১৯ দিনে আনোয়ার খান মডার্ণ মেডিকেল কলেজে ২০০ বেডের করোনা ইউনিট প্রস্তুত করেছেন বলে জানিয়েছেন হাসপাতালটির চেয়ারম্যান ড. আনোয়ার হোসেন খান এমপি। নতুন প্রস্তুতকৃত এ হাসপাতালে বিনামূল্যে করোনা রোগের সেবা দেয়া হবে বলেও জানান তিনি।

শনিবার আনোয়ার খান মডার্ণ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বর্ধিত ২০০ বেডের করোনা ইউনিট উদ্ধোধনী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন ড. আনোয়ার হোসেন খান।

এই করোনা ইউনিটের উদ্বোধন করেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক।

আনোয়ার খান মডার্ণ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে করোনার চিকিৎসার জন্য কি কি সুবিধা পাচ্ছে- এই প্রশ্নের জবাবে আনোয়ার হোসেন খান বলেন, করোনার চিকিৎসার জন্য বর্তমান প্রেক্ষাপটে সারাবিশ্বে যেভাবে চিকিৎসা দেয়া হয়, আমরা সেই আয়োজন নিয়েই এই হাসপাতালটি তৈরি করেছি।

তিনি বলেন, আমরা মাত্র ১৯ দিনে এই হাসপাতালটি তৈরি করেছি। আর এখানে আইসিইউ আছে এবং কোয়ারেন্টাইন ব্যবস্থাও আছে। করোনা রোগীর যতগুলো টেস্ট দরকার তার সবকিছুই এখানে আছে।

তিনি বলেন, জাতির এই দুর্যোগে আমরা মানুষের সাথে থাকতে চাই। আমরা মানুষের সাথে কাজ করতে চাই। আর আমরা করোনাভাইরাসকে জয় করতে চাই। আর রোগীদের সেবা দিয়ে আমরা এই সফলতা পেতে চাই।

আনোয়ার খান মডার্ণ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চেয়ারম্যান বলেন, এখানে উন্নত চিকিৎসা হবে। এখানে সকল শ্রেণির চিকিৎসক আছেন। আর এখানে তিন বেলায় খাবারও আলাদা জায়গা থেকে তৈরি করে দেয়া হবে।

চিকিৎসার ব্যয় কেমন হবে- সাংবাদিকদের এই প্রশ্নের জবাবে আনোয়ার হোসেন খান বলেন, আমরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সৌজন্য প্রাথমিক অবস্থায় আমরা কোনো খরচ নেবো না। মন্ত্রণালয় আর আমরা যৌথ উদ্যোগে এটা করেছি। সুতরাং এখানে প্রাথমিকভাবে আমরা খরচের চিন্ত করতে চাচ্ছি না।

তিনি আরও বলেন, সরকারি হাসপাতাল যেভাবে চিকিৎসা দিয়ে থাকে, ঠিক সেভাবেই এই হাসাপাতালও প্রধানমন্ত্রী এবং স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঠিক করে দিয়েছেন, যাতে আমরা এটা থেকে কোনো পয়সা না নেই। আর আমরাও পয়সার জন্য এই হাসপাতাল করি নাই। আমরা জীবন বাঁচাতে এবং মানবিক কর্মী হিসেবে মানুষের পাশে থাকতে চাই।

অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, "রাজধানীর প্রাণকেন্দ্রে অত্যাধুনিক সুযোগ-সুবিধা সমৃদ্ধ ২০০ শষ্যার আনোয়ার খান মেডিকেল কলেজটি দেশের মানুষের স্বাস্থ্যসেবায় গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করবে। এই হাসপাতালে সম্পুর্ণ নতুন ২০০টি শষ্যা, ১০ টি নিবিড় পর্যবেক্ষন কেন্দ্র (আইসিইউ), ১০ টি এইসডিও ও পাঁচটি ভেণ্টিলেটর রয়েছে। এর পাশাপাশি করোনা পরীক্ষার জন্য এখানে পিসিআর মেশিনেরও ব্যবস্থা করা হয়েছে।

জাহিদ মালেক বলেন, মাত্র ১৯ দিনে হাসপাতালটি প্রস্তুত করে দিয়ে কর্তৃপক্ষ সরকারের কাজ সহজ করে দিয়েছে। এটি নিয়ে ঢাকায় এখন ১৪ টি কোভিড ডেডিকেটেড হাসপাতাল স্থাপন করা হলো। এই হাসপাতালগুলির মাধ্যমে ঢাকায় বর্তমানে অন্তত ১৫-২০ হাজার মানুষের চিকিৎসার সুযোগ সৃষ্টি করা হয়েছে।এর পরও প্রয়োজন হলে সরকারের আরো বেডসংখ্যা বৃদ্ধি করার পরিকল্পনাও হাতে আছে।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব আসাদুল ইসলাম, স্বাস্থ্য শিক্ষা বিভাগের সচিব আলী নূর, বাংলাদেশ মেডিকেল কলেজ অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মুবিন খান ও আনোয়ার খান মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ এখলাসুর রহমান প্রমুখ।

(ঢাকাটাইমস/১৬মে/এসআর/ইএস)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজধানী বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :