লকডাউন না করে সরকার সমস্যাটা সৃষ্টি করেছে: ফখরুল

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২৭ মে ২০২০, ২০:০৯ | প্রকাশিত : ২৭ মে ২০২০, ২০:০৮

করোনার সংক্রমণ এড়াতে লকডাউন না করে দেশে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা সরকারের ভুল সিদ্ধান্ত ছিল বলে দাবি করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। বলেছেন, ‘সরকার সবচেয়ে বড় ভুলটা করেছে। তারা কোনো লকডাউন না করে সাধারণ ছুটি দিয়ে এই সমস্যাটা সৃষ্টি করেছে।’

বুধবার এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বিএনপি মহাসচিব এসব কথা বলেন। উত্তরার বাসায় সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে সমস্যার গভীরতাকে উপেক্ষা করা হয়েছে।’

ফখরুল বলেন, ‘সরকার লকডাউন না করে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছে। তখন তো ছুটির আমেজ আসবে। তখন কেউ কক্সবাজার যায়, কেউ সিলেট যায়, কেউ বাড়ি যায়, কেউ মামার বাড়ি যায়, কেউ নানার বাড়ি যায়। ওই জায়গায়টাতে সরকার সবচেয়ে বড় ভুলটা করেছে। তারা কোনো লকডাউন না করে সাধারণ ছুটি দিয়ে এই সমস্যাটা সৃষ্টি করেছে।’

দলের প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে সংবাদ সম্মেলনে ভার্চুয়াল কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়।

ফখরুল বলেন, ‘লকডাউন কথাটা প্রত্যেকটি দেশ ব্যবহার করেছে, প্রত্যেকটি সরকার ব্যবহার করেছে। আমাদের সরকার কেন লকডাউন ঘোষণা করলো না সেটা তারা বলতে পারবে। আমি যেটা মনে করি তাদের অভিজ্ঞতার অভাব, তাদের উদাসীনতা। তারা (সরকার) কি এটা বোঝাতে চেয়েছে যে, আমাদের এখানে সমস্যা নেই। আমরা সাধারণ ছুটি দিয়েছি।’

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমরা যদি প্রথমেই লকডাউন দিতাম, এটাকে পালন করতাম তাহলে এই সংক্রমণ ছড়াতো না। লকডাউন তুলে নেয়ার কাজটি যেসব রাষ্ট্র করছে, তারা কিন্তু তিন মাস লকডাউন করে তারপরে তা শিথিল করার চেষ্টা করছে। এখন পর্যন্ত আমরা যেটা লক্ষ্য করেছি আমাদের দেশে, এই ঘনবসতির দেশে এখানে শক্তভাবে এটাকে বাস্তবায়িত না করলে এটাকে মোকাবিলা করা খুব কঠিন।’

সোয়া এক কোটি লোককে ত্রাণ দিয়েছে বিএনপি

বিএনপি জনগণের পাশে নেই আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের এমন অভিযোগের জবাব দেন বিএনপি মহাসচিব। বলেন, ‘আমরা মানুষের পাশে ছিলাম। আমরা আজও তাদের সঙ্গে আছি। ‌ইতিমধ্যে আমরা প্রায় সোয়া কোটি অর্থাৎ এক কোটি ২৫ লাখ মানুষের কাছে ইতিমধ্যে সীমিত সাধ্যের মধ্যে ত্রাণ নিয়ে পৌঁছে গেছি।’

ওবায়দুল কাদেরের বক্তব্যের সমালোচনা করে ফখরুল বলেন, ‘আমরাই শুরু থেকে মানুষকে সচেতন করতে লিফলেট, মাস্ক, বস্তিগুলোতে বেসিন স্থাপন, হাসপাতালগুলোতে পিপিই সরবরাহ করি। শুরুতেই আমরা সুনিদিষ্ট প্রস্তাব দিয়ে অর্থনৈতিক প্যাকেজ দিয়েছি। আমরা মনে করি এই প্যাকেজটি অত্যন্ত বাস্তবসম্মত। কিন্তু তারা সেটা করেননি। তারা যে প্যাকেজটি দিয়েছে শুধু ব্যাংক ঋণের ভিত্তিতে।’

তথ্যমন্ত্রীর প্রসঙ্গ টেনে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘আমরা যে কথাই বলি না কেন, আপনি লক্ষ্য করেছেন যে, তথ্যমন্ত্রী সবসময় যে কথাটা একেবারেই তোতা পাখির মতো বলে যাচ্ছেন, আপনারা মিডিয়াতে দেখাচ্ছেন-আমরা জনগণের পাশে না দাঁড়িয়ে শুধু সমালোচনা করছি।’

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমাদের ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী ও তার প্রতিষ্ঠান প্রথম দিকে করোনা কিট উদ্ভাবন করলেন। এখন পর্যন্ত তারা অনুমোদন পায়নি। উনি করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। আমি তার আশু রোগমুক্তি কামনা করছি। সরকারের কাছে আহ্বান জানাচ্ছি যে, অবিলম্বে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের করোনা কিটের পরীক্ষা শেষ করে তা ব্যবহার করতে দেওয়া হোক। তাতে জনগণ এই রোগ থেকে মুক্তি পাবে।’

(ঢাকাটাইমস/২৭মে/বিইউ/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :