‘করোনা ঠেকাতে স্বাস্থ্য বিজ্ঞানের নিয়মনীতি তোয়াক্কা করা হয়নি’

জহির রায়হান, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ৩০ মে ২০২০, ২১:৪৮

দেশে নভেল করোনাভাইরাস তথা কোভিড-১৯ মহামারীর বিস্তার ঠেকাতে স্বাস্থ্য বিজ্ঞানের অনেক নিয়মনীতিই তোয়াক্কা করা হয়নি বলে মনে করেন প্রিভেন্টিভ মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডা. এম এইচ চৌধুরী লেলিন।

তার ভাষ্য, প্রতিদিনই কোভিড-১৯ আক্রান্তের হার বৃদ্ধির মধ্যে ছুটি বা লকডাউন শিথিল করে দেওয়ায় সংক্রমণের গতি আরও উর্ধ্বমুখি হওয়ার ঝুঁকি তৈরি হয়েছে। এই অবস্থায় স্বাস্থ্য বিজ্ঞানের নিয়মনীতিগুলো কঠোরভাবে পালন করতে হবে।

রাজধানীর হেলথ এন্ড হোপ হাসপাতালের পরিচালক ডা. এম এইচ চৌধুরী লেলিন ঢাকাটাইমসকে বলেন, ‘দেশে এখন করোনা সংক্রমনের গতিটা ঊর্ধ্বমুখী। প্রতিদিনই পাল্লা দিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা।’

‘সংক্রমনের এই গতিটাকে থামানোর জন্যই কিন্তু লকডাউন পদ্ধতি, শারীরিক দূরত্ব, ইত্যাদি আরোপ করা হয়েছে। এটি আরোপের পরে সংক্রমনটা সর্বোচ্চ চূড়ায় পৌঁছানোর পরে আবার কমতে শুরু করলে তখন ধাপে ধাপে সবকিছু শিথিল করতে হয়। এটি হচ্ছে স্বাস্থ্য বিজ্ঞানের নিয়ম নীতি।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের দেশে সরাসরি লকডাউন না বলে বলা হয়েছে সাধারণ ছুটি। সাধারণ ছুটি দেওয়ার পরেও স্বাস্থ্য বিজ্ঞানের অনেকগুলো নিয়মনীতিকে তোয়াক্কা না করেই কিছু কাজ করা হয়েছে।’

‘যেমন গনপরিবহন বন্ধ রেখে গার্মেন্টস শ্রমিকদের হঠাৎ করে ঢাকায় এনে আবার ফেরত পাঠানো। ঈদের আগে মানুষকে দলবেধে বাড়িতে যাওয়ার সুযোগ করে দেয়া, এমন অনেক বিষয় আমরা দেখেছি।’

সীমিত পরিসরে অফিস কিংবা গণপরিবহন খুলে দেওয়ার বিষয়ে প্রিভেন্টিভ মেডিসিন বিশেষজ্ঞ লেলিন চৌধুরী বলেন, ‘ব্যপারটা দাঁড়ালো যখন রোগী এবং মৃত্যুর সংখ্যা বড়ছে আর হাসপাতালে আইসিউ বেড পাচ্ছে না মানুষ। তখন এই লকডাউনটা শিথিল করার একটাই অর্থ যে, সেটা হচ্ছে এই সংক্রমণের গতিটাকে বাড়িয়ে দেওয়া।’

‘এতে দ্রুত আরও মানুষ রোগাক্রান্ত হবে। তারা ভোগান্তির শিকার হবে। অনেকেরই আইসিউ বেড আইসোলেশনের বেশি প্রয়োজন হবে। অর্থাৎ চাপটা সবদিকেই বাড়বে।’

তিনি আরও বলেন, লকডাউনটা তুলে দিয়ে সরকার যে অর্থনৈতিক লাভের কথা ভাবছে মানুষের অসুস্থতা, মৃত্যু, হাসপাতালের ওপর চাপ সবকিছু মিলিয়ে মানুষের বা সরকারি অর্থ খরচ হবে, সেটা কিন্তু অর্থনৈতিক লাভের চেয়েও অনেকগুন বেশি হয়ে যাবে। অর্থাৎ ক্ষতিটা বেশি হবে লাভটা কম হবে।’

‘এ কারনেই আমরা মনে করেছিলাম অন্তত আরও দুই সপ্তাহ লকডাউন বাড়ানো হবে। এখন অবস্থা এমন যে নিয়তির হাতে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। আর এই অবস্থা কোনও মতেই গ্রহণযোগ্য নয়।’

(ঢাকাটাইমস/৩০মে/ডিএম)

সংবাদটি শেয়ার করুন

করোনাভাইরাস বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :