জাতির পিতা

এম এম ইমরুল কায়েস
| আপডেট : ০৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১১:৩৪ | প্রকাশিত : ০৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১১:২৬

৬ ফুট ২ ইঞ্চির মানুষটি

বাঙালির মুক্তি সংগ্রামের আঁতুড়ঘর:

ধানমন্ডি ৩২ সড়কের ৬৭৭ নম্বর বাড়ি-

বাস করতেন এখানে যিনি।

কারাগার ছিল তাঁর ২য় আবাস।

মানুষের অধিকার আদায়ের আন্দোলনে-

৫৫ বছরের জীবনে ৩ হাজার ৫৩ দিন জেলে!

রাজনীতি এবং কারাগার

.

সারা জীবন স্ত্রী-কন্যা-পুত্রদের করেছে বঞ্চিত।

শিশু সন্তান চিনতো না জন্মদাতাকে!

১৯৪৮ সালে ভাষা আন্দোলনে সক্রিয় নেতৃত্ব।

'৫২-এ মাতৃভাষা 'বাংলা'র স্বীকৃতি আদায়।

'৬৬-তে দেন বাঙালির মুক্তির সনদ ৬-দফা।

'৬৯-এ ভূখণ্ডের নামকরণ করেন ‘বাংলাদেশ'।

'৭০'র নির্বাচনে তাঁর বিচক্ষণতায় নিরঙ্কুশ বিজয়।

'৭১-এর ৭ মার্চে বজ্রকণ্ঠে-

'এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম,

এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম।'

.

আর ২৬ মার্চের প্রথম প্রহরে স্বাধীনতা ঘোষণা।

৯ মাসের মহান মুক্তিযুদ্ধ হয় যার নামের ওপর।

হাজার বছরের ইতিহাসে-

বাঙালিকে দিয়েছেন সাধের স্বাধীনতা,

জন্ম দেন পৃথিবীর একমাত্র ভাষাভিত্তিক জাতিরাষ্ট্র,

বিকাশ ঘটিয়েছেন বাঙালি জাতীয়তাবাদের।

সাড়ে ৭ কোটি বাঙালির জন্য যার অফুরান মমত্ব।

নিজের সবচেয়ে বড় দুর্বলতা হিসেবে জানতেন-

জনগণের প্রতি তাঁর সীমাহীন বিশ্বাস ও ভালোবাসা।

'৭৫-এর ১৫ আগস্টের কালরাতে,

৫৬ হাজার বর্গমাইলসম বুকে-

ধারণ করেন ১৮টি অভিশপ্ত বুলেট!

৫৭০ কাপড় কাচার সাবানে বিদায়ী গোসল

আর রেডক্রিসেন্টের ত্রাণের শাড়ি দিয়ে কাফন!

টুঙ্গিপাড়ায় জন্ম এবং সেখানেই দাফন।

তিনিই আমাদের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।

সংবাদটি শেয়ার করুন

সাহিত্য বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :